রাজ্য
 

  বাঙালিয়ানার আভিজাত্যে নতুন পালক
রসগোল্লার স্বীকৃতি নিয়ে যুদ্ধ জয়ের নেপথ্যে রবিরঞ্জনের অদম্য লড়াই

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: মন্ত্রিত্ব থাকাকালীন তাঁর ভাবনাতেই এসেছিল রসগোল্লাকে বাংলার ‘জিআই রেজিস্ট্রেশন’ করানোর বিষয়টি। এরপর একের পর এক যুদ্ধ। জিআই কর্তৃপক্ষের কাছে একাধিক তত্ত্ব উপযুক্ত প্রমাণসহ দাখিল করতেও তিনি খামতি রাখেননি। স্বাভাবিকভাবেই এই যুদ্ধ জয়ের কাণ্ডারী রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী তথা তৃণমূল বিধায়ক রবিরঞ্জন চট্টোপাধ্যায় বললেন, আমি কতটা খুশি, তা বলে বোঝাতে পারব না। কতটা লড়াই করতে হয়েছে, কতটা পড়াশুনা-সমীক্ষা করতে হয়েছে, সেটাও বোঝাতে পারব না। আমি মন্ত্রী থাকাকালীন আমার বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি দপ্তরের আধিকারিকরা অনেক সাহায্য করেছিলেন। জয়নগরের মোয়া, বর্ধমানের সীতাভোগ-মিহিদানাকে জিআই রেজিস্ট্রেশন করাতে সক্ষম হয়েছিলাম। কিন্তু ওড়িশা রসগোল্লাকে নিজস্ব উপাদান হিসাবে দাবি করায় পুরো বিষয়টি আটকে যায়। নবান্ন সূত্রে জানা গিয়েছে, রবিরঞ্জনবাবু সেই সময় মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গেও দফায় দফায় এনিয়ে বৈঠক করেছিলেন। মুখ্যমন্ত্রীও তাঁকে সবরকমভাবে সাহায্য করেছিলেন। ‘নবীন ময়রা’ তথা নবীনচন্দ্র দাসের বংশধর ধীমান দাসও তাঁকে সাহায্য করেন। রবিরঞ্জনবাবুর কথায়, রসগোল্লা বাংলার লোকসংস্কৃতির সঙ্গে জড়িয়ে গিয়েছে। বাংলা-বাঙালির সঙ্গে রসগোল্লা ওতঃপ্রোতভাবে জড়িয়ে। তাঁর কথায়, রসগোল্লা বলে ক্ষীরমোহন তত্ত্ব খাড়া করেছিল ওড়িশা, তা তো আদতে ক্ষীরের। ক্ষীর দিয়ে কি রসগোল্লা হয়? রসগোল্লা তো ছানার। দুধ জ্বাল দিয়ে ক্ষীর হয়। দুধ কাটিয়ে হয় ছানা। তাই ওই দুই বস্তুর মধ্যে কোনও মিল নেই। বাংলা ছাড়া দুধ কাটিয়ে ছানা কোথাও হয় না। সবশেষে এই জয় অত্যন্ত খুশির। তবে এই জয়ের আনন্দ কোনও রাজ্যকে হেয় করার জন্য নয়। এ ছিল স্বত্ত্ব পাওয়ার লড়াই। তা পেয়ে আমি আবেগতাড়িত এবং আপ্লুত।
প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায় (অভিনেতা): যতই আইনি লড়াই হোক না কেন, রসগোল্লা বাংলার নিজস্ব। স্বীকৃতিটুকুই যা নতুনত্ব। হ্যাঁ, ভালো লাগারই কথা বটে। রসগোল্লা আমার ভীষণ পছন্দের জিনিস। আসলে বাঙালির জাতীয় মিষ্টি যে রসগোল্লা, এ নিয়ে তো কোনও সন্দেহ নেই। বাঙালি যতদিন থাকবে, রসগোল্লাও থাকবে। রসগোল্লা দীর্ঘজীবী হোক।
দেবশ্রী রায় (অভিনেত্রী): আমি তো আগেই বলেছি, ‘আমি কলকাতার রসগোল্লা’। আমার সেই কথা আজ প্রমাণিত হল। কতটা ভালো লাগছে, তা বলে বোঝানো যাবে না। আমি তো খুব খুশি। আরও বেশি করে রসগোল্লা খাব। এখন থেকে বলতে পারব, এটা কলকাতার রসগোল্লা, বাংলার রসগোল্লা। আমি খুবই গর্বিত। রাজ্যের বা দেশের বাইরে থেকে যেই আসুক না কেন, বাংলার রসগোল্লার খোঁজ সবাই করেন। তাহলে তা অন্য রাজ্যের হবে কীভাবে?
কৌশিক গঙ্গোপাধ্যায় (পরিচালক): শুধু রসগোল্লা কেন, দইও তো বাঙালির প্রিয় মিষ্টান্ন। রসগোল্লা বাঙালির। তবে স্বীকৃতি পাওয়ায় আমি দারুণ খুশি।
শিবপ্রসাদ মুখোপাধ্যায় (অভিনেতা-পরিচালক): রসগোল্লা বাঙালি ছাড়া আর কারও হতে পারে না। এটা নিয়ে যে লড়াই চলছিল, সেটা একটা আইনি লড়াই হতে পারে। কিন্তু মন-প্রাণ থেকে, হৃদয় থেকে বাঙালি রসগোল্লার সঙ্গে ওতঃপ্রোতভাবে জড়িত। বাঙালি জানে, যে রসগোল্লা তারই। আমি উত্তর কলকাতার ছেলে। ছোটবেলায় অনেক রসগোল্লা খাওয়ার প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়েছি। এইসময় সেই স্মৃতি মনে পড়ছে। এবার আসি রসগোল্লা নিয়ে ছবি তৈরির গল্পে। পাভেল অনেকগুলি বিষয় নিয়ে ছবি করবে বলে আমার কাছে এসেছিল। তারমধ্যে অন্যতম ছিল রসগোল্লা। অসামান্য লেগেছিল। পরে আমরা যখন নবীনচন্দ্র দাসের পরিবারের থেকে ওঁর বায়োপিক করার লাইসেন্স হাতে পাই তখন জানতে পারি যে, ওটা আসলে একটা প্রেমের গল্প। রসগোল্লা তৈরির নেপথ্যে যে একটা প্রেম আছে, আমাদের মনে হয়েছিল এটা সবার জানা উচিত। কী করে রসগোল্লা তৈরি হয়েছিল, সেই গল্প সকলের সামনে আসা উচিত। ২০১৮ সাল একটি স্মরণীয় বছর হতে চলেছে। কারণ রসগোল্লার দেড়শ বছর। আর এই দেড়শ বছরে শীতের ছুটিতে রসগোল্লা আসবে সিনেমার পরদায়। রসগোল্লার স্বাদ তো আপনারা জিভে পান, কিন্তু যখন এই আস্বাদ চোখে পাবেন, তার মজাটাই অন্যরকম। সেখানে নবীনচন্দ্র দাসের বায়োপিক, কালিকাপ্রসাদের গান, নীতিশ রায়ের প্রোডাকশন ডিজাইন। রসগোল্লার স্বাদ যেমন জিভে লেগে থাকে, আশা করি আপনাদের চোখেও লেগে থাকবে।
পাভেল (রসগোল্লা ছবির পরিচালক): বাঙালির কবিতা, নোবেল পদক, শাড়ি সব চুরি গিয়েছে। রসগোল্লা চুরি যায়নি, সেটাই ভাগ্য। বাঙালির আইডেন্টিটি রসগোল্লা। বাঙালির ছিল, আছে আর চিরকাল থাকবে।
মিমি চক্রবর্তী (অভিনেত্রী): আমি খুবই খুশি। আসলে মিষ্টির সঙ্গে প্রত্যেক বাঙালির একটা আত্মিক সম্পর্ক আছে। আমরা বাঙালিরা আমাদের সব অনুষ্ঠানেই অতিথি অভ্যাগতদের মিষ্টিমুখ করাই। আর সেখানে তো রসগোল্লাই প্রধান মিষ্টি থাকে। আসলে রসগোল্লা ভালোবাসে না, এমন বাঙালি মেলা কঠিন। সেই রসগোল্লার জয় হল মানে এটা গোটা বাঙালি জাতিরই জয়।
হিরণ (অভিনেতা): এক সময় চাকরিসূত্রে চেন্নাই, দিল্লি, মুম্বইয়ে থাকতে হয়েছিল। তখন দেখেছি, দেশের অন্য ভাষাভাষি মানুষরা বলতেন কী দাদা, রসগুল্লা খাওয়ান! অর্থাৎ, বাঙালি মানেই রসগোল্লা। এই বস্তুটির প্রতি লোভ সংবরণ করা দুষ্কর। ছোটবেলায় বিয়েবাড়িতে পাল্লা দিয়ে খেয়েছি। একবার একটি বাড়িতে দুই বন্ধু মিলে এমন খেয়েছি যে গৃহকর্তা এসে বললেন, বাবা, আর খেও না। বাকি অতিথিদের কম পড়ে যাবে। রসগোল্লা ছিল বলেই তো এমন মজার কাণ্ড হয়েছিল!
বিশ্বনাথ বসু (অভিনেতা): রসগোল্লা যে বাংলার নিজস্ব, এর চেয়ে ভালো আর কিছু হয় না। রসগোল্লা স্বার্থপর বাঙালির নিজস্ব আবিষ্কার, এ নিয়েও দ্বিমত থাকতে পারে না। এই জিনিসটি বাঙালির অস্থিমজ্জায় মিশে আছে। বাঙালির হাতে যখন মোবাইল ফোন ছিল না, কোথাও যেতে আসতে হাতে ঝুলিয়ে নিত রসগোল্লার হাঁড়ি। রসগোল্লা এতদূর প্রভাবশালী যে, সাহিত্যে পর্যন্ত তার অবাধ গতিবিধি। আমি নিজে প্রচণ্ড রসগোল্লাসেবী। রসগোল্লা ছাড়া বাঙালি বাঁচতেই পারবে না।
জগন্নাথ বসু (বাচিক শিল্পী): ছোটবেলা থেকে জেনে এসেছি রসগোল্লা আমাদের নিজস্ব। রসগোল্লা বললেই বাঙালি জাতি, শহর কলকাতা, বাগবাজার—আমরা যেন আমাদের অন্তরাত্মাকে খুঁজে পাই। রসগোল্লার নানা জাত, নানা চরিত্র। গরম খেতে একরকম, ঠান্ডায় আরেক রকম। এক এক জায়গার রসগোল্লা একেক রকম। আমার তো পছন্দের জিনিস। বাঙালির নিজস্ব সম্পদের তালিকা একটা বাড়ল, এটা আনন্দের বইকি!
প্রণব নন্দী (গিরিশচন্দ্র ঘোষ ও নকুরচন্দ্র নন্দী মিষ্টির দোকানের মালিক): খুবই আনন্দের। আমি জানি না, ওড়িশা কীভাবে বলল রসগোল্লা তাদের সৃষ্টি! খুবই অস্বাভাবিক লেগেছিল। পাগলামি ছাড়া আর কিছুই বলা যায় না এই দাবিকে।
15th  November, 2017
রাজ্যকে মাত্র চার মাসে
সাড়ে ছ’লাখ ইউনিট রক্ত সংগ্রহের লক্ষ্য দিল কেন্দ্র

 বিশ্বজিৎ দাস, কলকাতা: রক্ত পরিষেবায় পশ্চিমবঙ্গ সহ দেশের সবক’টি রাজ্যের জন্য লক্ষ্যমাত্রা বেঁধে দিল কেন্দ্রীয় সরকার। ১৫ নভেম্বর দেশের সবক’টি রাজ্যকে চিঠি লিখে এই লক্ষ্যমাত্রা বেঁধে দিয়েছেন জাতীয় এইডস নিয়ন্ত্রণ পর্ষদের (ন্যাকো) ডেপুটি ডিরেক্টর জেনারেল ডাঃ এস ভেঙ্কটেশ। ২০১৭-১৮ অর্থবর্ষের মধ্যে এই লক্ষ্যমাত্রা পূরণ করতে বলা হয়েছে সেই চিঠিতে। অর্থাৎ কেন্দ্রের বেঁধে দেওয়া লক্ষ্য পূরণের জন্য বাকি মাত্র চার মাস।
বিশদ

কর্মরত মায়ের শিশুর জন্য ক্রেশ তৈরির তোয়াক্কা করছে না রাজ্যই

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: কর্মরত মায়েদের পাঁচ বছর পর্যন্ত শিশুদের দেখভালের জন্য নিয়োগকারী সংস্থাকে কাজের জায়গায় ক্রেশ তৈরি করতেই হবে। কেন্দ্রীয় সরকারের এই নির্দেশের তোয়াক্কা না করেই এ রাজ্যে রমরমিয়ে চলছে অসংখ্য সরকারি-বেসরকারি সংস্থা। যার মধ্যে সবচেয়ে করুণ দশা রাজ্য সরকারি দপ্তরগুলির।
বিশদ

মোবাইল অ্যাপের সাহায্যে মুহূর্তে তৈরি হচ্ছে ‘জাল’ পরিচয়পত্র, ধন্দে পুলিস

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: মোবাইল অ্যাপের মাধ্যমে কয়েক মুহূর্তের মধ্যেই ‘জাল’ পরিচয়পত্র তৈরি করা যাচ্ছে। বিভিন্ন মোবাইল অপারেটিং সিস্টেমের স্টোরে মিলছে এই অ্যাপের সন্ধান। ডাউনলোড করে তাতে নিজের খুশি মতো ছবি ও পরিচয়ের তথ্য দিলে অনায়াসেই মিলছে আধার কার্ড, প্যান কার্ড, ড্রাইভিং লাইসেন্স, এমনকী পুলিসের পরিচয়পত্রও।
বিশদ

সরকারি কর্মীদের মধ্যে ক্ষোভ আরও তীব্র হওয়ার আশঙ্কা
মন্ত্রীদের পর এবার রাজ্যের বিধায়কদের মাসিক রোজগার দেড় গুণ বাড়তে চলেছে

 নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: সরকারিভাবে মন্ত্রীদের সমান মাসিক রোজগার হতে চলেছে রাজ্যের বিধায়কদের। সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে অর্থ দপ্তরের সবুজ সংকেত পেলেই এই বর্ধিত হার চালু হওয়ার কথা। দৈনিক ভাতা এক থেকে দুই হাজার টাকা করার ব্যাপারে বিধানসভার এনটাইটেলমেন্ট কমিটি সর্বসম্মতভাবে সিদ্ধান্ত নেওয়ার ফলেই বিধায়করা দারুণভাবে উপকৃত হতে চলেছেন।
বিশদ

বাম আমলের তুলনায় রাজ্যে কৃষকের আয় বেড়েছে আড়াই গুণ

 নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: বাম আমলের তুলনায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের আমলে কৃষকের আয় আড়াই গুণ বৃদ্ধি পেয়েছে। আর্থিক সমীক্ষায় জানা গিয়েছে, ২০১০-’১১ আর্থিক বছরে একজন কৃষকের বার্ষিক গড় আয় ছিল ৯১ হাজার ১১ টাকা।
বিশদ

চরিত্র বদল হওয়া জমির স্বীকৃতি জরিমানা দিলেই

সঞ্জয় গঙ্গোপাধ্যায়, কলকাতা: অনেকেই জমির চরিত্র পরিবর্তন না করে নানা ধরনের নির্মাণ করেছেন। রাজ্য সরকার তাঁদের সেই সব জমির চরিত্র পরিবর্তনের সুযোগ করে দিচ্ছে। জমির চরিত্র বদল নিয়ে জটিলতা কাটাতেই এই উদ্যোগ নবান্নের। ভূমিরাজস্ব দপ্তর সিদ্ধান্ত নিয়েছে, গত ৭ নভেম্বরের আগে যাঁরা ভূমিরাজস্ব আইনের ফোর সি ধারায় জমির চরিত্র পরিবর্তন করেননি, তাঁদের সেই সুযোগ করে দিচ্ছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকার।
বিশদ

বধূ মৃত্যুতে শাস্তি পাওয়া শাশুড়ি, স্বামীকে মুক্তির নির্দেশ হাইকোর্টের

 নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: গায়ে আগুন লাগা আর্জিনা বিবিকে ঘরের দরজা ভেঙে উদ্ধার করা হয়েছিল। অথচ, আগুন দিয়ে তাঁকে মারার অভিযোগে সাত বছরের কারাদণ্ড হয়েছিল মৃতের স্বামী জাহাঙ্গির সেখ ও তাঁর মা আলেয়া বেগমের। শুক্রবার কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি দেবীপ্রসাদ দে অবিলম্বে তাঁদের ছেড়ে দেওয়ার নির্দেশ দিলেন।
বিশদ

সাগর থেকে শালিমার হয়ে ডানকুনি পর্যন্ত ফ্রেট করিডর তৈরির সবুজ সংকেত দিল কেন্দ্র

 নিজস্ব প্রতিনিধি, দক্ষিণ ২৪ পরগনা: সাগরদ্বীপ থেকে হাওড়ার শালিমার ছুঁয়ে ডানকুনি পর্যন্ত ১৩৮ কিলোমিটার ফ্রেট করিডর তৈরির ব্যাপারে সবুজ সংকেত দিয়েছে কেন্দ্রীয় রেলমন্ত্রক। তারই প্রথম ধাপ হিসাবে ইতিমধ্যে ফ্রেট করিডরের জন্য রেললাইন পাততে কোথায় কতটা জমি প্রয়োজন, তা নিয়ে চূড়ান্ত সমীক্ষার নির্দেশও দেওয়া হয়েছে।
বিশদ

আজ জন্মশতবর্ষ পূর্তিতে ইন্দিরা স্মরণ ঘিরে নানা অনুষ্ঠান, প্রকাশ্যে আসবে কং দ্বন্দ্বের ছবি?

 নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: আজ, রবিবার ১৯ নভেম্বর ইন্দিরা গান্ধীর জন্মশতবর্ষ পূর্তি অনুষ্ঠান পালিত হতে চলেছে রাজ্যজুড়ে। প্রয়াত জননেত্রীর দল কংগ্রেসের তরফেই মূলত নানা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে।
বিশদ

উত্তরপত্র পুনর্মূল্যায়নে নারাজ এসএসসি জোরালো ধাক্কা খেল কলকাতা হাইকোর্টে

 পল্লব চট্টোপাধ্যায়, কলকাতা: উত্তরপত্র পুনর্মূল্যায়নে নারাজ স্কুল সার্ভিস কমিশন। পরীক্ষার্থী কামালউদ্দিন মিদ্যার অভিযোগ ছিল, অন্তত তিনটি প্রশ্নের উত্তরে তাঁকে নম্বর দেওয়া হয়নি। কলকাতা হাইকোর্টের একক বিচারপতি তাঁর উত্তরপত্র পুনর্মূল্যায়ন করতে বললে কাউন্সিল সেই নির্দেশ চ্যালেঞ্জ করে।
বিশদ

চুরি ও ঝড়বৃষ্টিতে তার ছেঁড়া এড়াতে
মাটির নীচে তার পেতে বিদ্যুৎ সরবরাহ হবে কোচবিহার-নবদ্বীপে

 প্রসেনজিৎ কোলে, কলকাতা: একদিকে বিদ্যুৎ চুরি, অন্যদিকে ঝড়-বৃষ্টিতে তার ছিঁড়ে পরিষেবা ব্যাহত হওয়ার মতো ঘটনা এড়াতে এবার কোচবিহার এবং নবদ্বীপ শহরের গোটা বিদ্যুৎ বণ্টনের পরিকাঠামো পাতাল-প্রবেশ করতে চলেছে! খুঁটি পুঁতে তার নিয়ে যাওয়ার বদলে কেবল পাতা হবে মাটির নীচ দিয়ে।
বিশদ

আধার নিয়ে দু’সপ্তাহের মধ্যে রাজ্যকে সংশোধিত পিটিশন জমা দিতে বলল সুপ্রিম কোর্ট

নিজস্ব প্রতিনিধি, নয়াদিল্লি, ১৭ নভেম্বর: আধার ‘আইনে’র অংশকে তারা চ্যালেঞ্জ করছে না বলেই সুপ্রিম কোর্টে জানিয়ে দিল রাজ্য। বদলে শুধুমাত্র আধার যুক্ত না করলে সরকারি সাহায্য যে বন্ধ হয়ে যাবে তার বিরোধিতা করেই এগবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকার।
বিশদ

18th  November, 2017
আজ বৃষ্টি কম, কাল থামবে,
পরশু নামবে তাপমাত্রা

 নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: বঙ্গোপসাগরে তৈরি হওয়া নিম্নচাপটি দুর্বল হয়ে পড়ছে। তবে আজ, শনিবারও কলকাতা সহ দক্ষিণবঙ্গের সংলগ্ন জেলাগুলিতে বিক্ষিপ্তভাবে হালকা বৃষ্টি হতে পারে। আলিপুর আবহাওয়া অফিসের অধিকর্তা গণেশ দাস জানিয়েছেন, শুক্রবারের তুলনায় শনিবার বৃষ্টির মাত্রা অনেকটাই কমবে।
বিশদ

18th  November, 2017
 গণবণ্টন নিয়ে হাইকোর্টের রায়ে সুবিধা হবে সরকারের: খাদ্যমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: গণবন্টন ব্যবস্থায় নতুন কন্ট্রোল অর্ডার নিয়ে প্রায় চার বছর ধরে চলা মামলায় হাইকোর্ট সম্প্রতি রায় দিয়েছে। বিচারপতি রঞ্জিতকুমার বাগ যে রায় দিয়েছেন তাতে কোনও রেশন ডিলার ও ডিস্ট্রিবিউটরের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা হিসেবে জরিমানা আরোপ করা যাবে না। তবে তাঁদের শো-কজ করে সাসপেন্ড বা ডিলারশিপ খারিজ করা যাবে।
বিশদ

18th  November, 2017

Pages: 12345

একনজরে
 নয়াদিল্লি, ১৮ নভেম্বর: এই প্রথম চীন থেকে আমদানি করা স্টেইনলেস স্টিলের ওপর ব্যাপকভাবে ‘কাউন্টারভেইলিং’ শুল্ক আরোপ করেছে কেন্দ্র। আগামী পাঁচ বছর চীন থেকে কেউ এই পণ্য আমদানি করলে তাকে ১৮.৯৫% হারে ‘কাউন্টারভেইলিং’ শুল্ক (সিভিডি) দিতে হবে বলে অর্থ মন্ত্রক থেকে ...

হারারে, ১৮ নভেম্বর: জিম্বাবোয়ের প্রেসিডেন্ট রবার্ট মুগাবেকে গৃহবন্দি করে রাখার ঘটনাটিকে সামরিক অভ্যুত্থান হিসেবেই দেখছে আফ্রিকান ইউনিয়ন। বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম মুগাবে উৎখাতের এই অভ্যুত্থানের নেপথ্যে ...

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: ভারতীয় ব্যাটিংয়ের অন্যতম ভরসা চেতেশ্বর পূজারা বলেছেন, কাউন্টি ক্রিকেট খেলার সুবিধা পাচ্ছেন তিনি। তিনি এই প্রসঙ্গে আরও বলেন, ‘এই মরশুমে আমি আটটি কাউন্টি ম্যাচ খেলেছি। ফলে ইডেনের উইকেটে ব্যাট করতে খুব বেশি সমস্যা হয়নি। ...

 বিএনএ, চুঁচুড়া: গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব কোনও ভাবেই বরদাস্ত করা হবে না। যে সমস্ত কর্মী দলের পরিবর্তে নিজের স্বার্থরক্ষার জন্য গোষ্ঠী তৈরি করছেন, বহুবার তাঁদের সতর্ক করা হয়েছে। নিজেদের দ্রুত শুধরে নিতে না পারলে তাঁদের বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ, প্রয়োজনে বরখাস্ত করা হবে। ...


আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

বিদ্যার্থীদের বিষয় নির্বাচন সঠিক হওয়া দরকার। কর্মপ্রার্থীরা কোন শুভ সংবাদ পেতে পারেন। কারও সঙ্গে সম্পর্কহানি ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৮৩৮: সমাজ সংস্কারক কেশবচন্দ্র সেনের জন্ম
১৮৭৭: কবি করুণানিধান বন্দ্যোপাধ্যায়ের জন্ম
১৯১৭: ভারতের তৃতীয় প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধীর জন্ম
১৯২২: সঙ্গীতকার সলিল চৌধুরির জন্ম
১৯২৮: কুস্তিগীর ও অভিনেতা দারা সিংয়ের জন্ম
১৯৫১: অভিনেত্রী জিনাত আমনের জন্ম

ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৬৪.০০ টাকা ৬৫.৬৮ টাকা
পাউন্ড ৮৪.৩২ টাকা ৮৭.১৯ টাকা
ইউরো ৭৫.২০ টাকা ৭৭.৮৩ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
18th  November, 2017
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৩০,১৯৫ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ২৮,৬৫০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ২৯,০৮০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৪০,২০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৪০,৩০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

৩ অগ্রহায়ণ, ১৯ নভেম্বর, রবিবার, প্রতিপদ রাত্রি ৭/১৫, নক্ষত্র-অনুরাধা রাত্রি ৯/৫৭, সূ উ ৫/৫৫/৪৩, অ ৪/৪৮/১৭, অমৃতযোগ দিবা ঘ ৬/৪০ গতে ৮/৫০ মধ্যে পুনঃ ১১/৪৪ গতে ২/৩৮ মধ্যে। রাত্রি ঘ ৭/২৩ গতে ৯/১১ মধ্যে পুনঃ ১১/৪৯ গতে ১/৩৪ মধ্যে পুনঃ ২/২৭ গতে উদয়াবধি, বারবেলা ১০/০ গতে ১২/৪০ মধ্যে, কালরাত্রি ১২/৫৯ গতে ২/৩৯ মধ্যে।
ইতু পূজা।
 
২ অগ্রহায়ণ, ১৯ নভেম্বর, রবিবার, প্রতিপদ রাত্রি ৫/৪৫/৪১, অনুরাধানক্ষত্র ৯/২৭/৫২, সূ উ ৫/৫৬/১২, অ ৪/৪৭/১৯, অমৃতযোগ দিবা ৬/৩৯/৩৬-৮/৪৯/৩৮, ১১/৪৩/০-২/৩৬/২১, রাত্রি ৭/২৫/৬-৯/১০/১৬, ১১/৪৮/৩-১/৩৩/১৪, ২/২৫/৫০-৫/৫৬/৫৮, বারবেলা ১০/০/২২-১১/২১/৪৫, কালবেলা ১১/২১/৪৫-১২/৪৩/৯, কালরাত্রি ৯/৪৩/১৩-১১/২১/৫৮।
ইতু পূজা।

২৯ শফর

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
আজ শহরের তাপমাত্রা থাকবে ২৯ ডিগ্রির কাছাকাছি

08:15:00 AM

নিলামে বিক্রি হচ্ছে ট্রাম্প-মেলেনিয়ার বিয়ের কেক
নিলামে বিক্রি হতে চলেছে ট্রাম্প-মেলেনিয়ার বিয়ের কেক। স্মারক হিসাবে মার্কিন ...বিশদ

08:10:00 AM

ইন্টারলকিংয়ের কাজের জন্য আজ সকাল থেকে ১২ঘণ্টা খড়্গপুর স্টেশনে কোনও ট্রেন ঢুকবে না
বিশ্বমানের ইন্টারলকিংয়ের কাজের জন্য আজ, রবিবার সকাল থেকে ...বিশদ

08:00:00 AM

 ইতিহাসে আজকের দিনে
 ১৮৩৮: সমাজ সংস্কারক কেশবচন্দ্র সেনের জন্ম
১৮৭৭: কবি করুণানিধান বন্দ্যোপাধ্যায়ের ...বিশদ

08:00:00 AM

আই এস এল: নর্থইস্ট ইউনাইটেড :০ জামশেদপুর এফ সি :০
আজ গুয়াহাটির ইন্দিরা গান্ধী অ্যাথেলেটিক স্টেডিয়ামে আই এস এল-এ মুখোমুখি ...বিশদ

18-11-2017 - 10:04:08 PM