Bartaman Patrika
বিদেশ
 

অপারেশন পেপারক্লিপ 
মৃণালকান্তি দাস

১৯৪৫ সালের মার্চ মাস।
দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে জার্মানির তখন টালমাটাল অবস্থা। নাৎসি জার্মানির রন্ধ্রে রন্ধ্রে ঢুকে পড়ছে রাশিয়ার লালফৌজ আর আমেরিকান সেনারা। বিশ্বযুদ্ধের কুখ্যাত খলনায়করা তখন তাদের অপকর্মের প্রমাণ লোপাটে ব্যস্ত। ৩০ এপ্রিল রেড আর্মি বার্লিনের খুব কাছাকাছি চলে এসেছে। জার্মানির মিলিটারি রিসার্চ অ্যাসোসিয়েশনের প্রধান ওয়ার্নার ওসেনবার্গ রেডিওতে শুনতে পেলেন হিটলারের আত্মহত্যার সংবাদ। দ্রুত তিনি সামরিক গবেষণার গুরুত্বপূর্ণ কাগজগুলো টয়লেটে ফ্ল্যাশ করে দিয়ে গা ঢাকা দিলেন। কাগজগুলো বেশিরভাগ চলে গেল ভূগর্ভস্থ নর্দমায়। কিন্তু সম্ভবত জল শেষ হয়ে যাওয়ায়, ফ্ল্যাশ হওয়া থেকে বেঁচে যাওয়া কিছু কাগজ উদ্ধার হওয়ার পর চলে গেল ব্রিটিশ গোয়েন্দা সংস্থা এমআই-৬ এর কাছে। হাতবদল হয়ে সেই কাগজ আবার পৌঁছে গেল আমেরিকান গোয়েন্দাদের কাছে। তখন এই কাগজে থাকা তথ্যগুলোই যে হন্যে হয়ে খুঁজছে মার্কিন গোয়েন্দারা। আর সেসব কাগজ থেকেই শুরু হয়েছিল গোপন এক অভিযান। যার নাম ‘অপারেশন পেপারক্লিপ’। কী লেখা ছিল সেই কাগজে? কী ছিল সেই অভিযানে?
দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে হিটলারের অধীনে নাৎসি জার্মানির উত্থানের পিছনে অনেক বড় ভূমিকা ছিল বিজ্ঞানীদের। তাই যুদ্ধকালীন জার্মানিতে থাকা বিখ্যাত সব বিজ্ঞানী আর গবেষণা প্রতিষ্ঠানকে এক ছাতার নীচে আনতেই গঠন করা হয় মিলিটারি রিসার্চ অ্যাসোসিয়েশন। এর প্রধান করা হয় ওয়ার্নার ওসেনবার্গকে। ওসেনবার্গ সেইসময় হ্যানোভার টেকনিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসর ছিলেন। নাৎসিবাদের ভক্ত হিসাবে তাঁর বেশ খ্যাতি ছিল। তার কাঁধে দায়িত্ব ছিল সামরিক অস্ত্র তৈরিতে সহায়তা করতে সক্ষম এমন বিজ্ঞানী, প্রযুক্তিবিদ আর প্রকৌশলীদের এই সংগঠনে নিয়োগ করা। তিনি তাঁর কাজে সফল ছিলেন বটে। এখানে তিনি কম করে হলেও প্রায় ৫,০০০ বিখ্যাত বিজ্ঞানী, প্রযুক্তিবিদ আর প্রকৌশলী নিয়োগ করেন। নিয়োগপ্রাপ্তদের নামের তালিকার একটি কপিই টয়লেটে ফ্ল্যাশ হওয়া থেকে বেঁচে গিয়েছিল সেদিন। পরবর্তীতে এই তালিকা মার্কিন গোয়েন্দাদের হাতে গিয়ে পড়ে। এই তালিকার ঐতিহাসিক নাম ‘ওসেনবার্গ লিস্ট’। আর এই লিস্ট ধরে জার্মানিতে থাকা মার্কিন সেনাবাহিনীর গোয়েন্দারা শুরু করেন বিজ্ঞানীদের খুঁজে বের করার কাজ।
খ্যাতিমান সেই বিজ্ঞানীদের যুদ্ধবন্দি হিসেবে আমেরিকায় নিয়ে যাওয়ার গোপন মিশন শুরু করেন তাঁরা। তাদের লক্ষ্যের কেন্দ্রবিন্দুতে ছিল রকেট, ক্ষেপণাস্ত্র, রাডার সহ সামরিক যন্ত্রপাতিতে দক্ষ বিজ্ঞানীরা। পারমাণবিক বিশেষজ্ঞ থেকে শুরু করে সামরিক ডাক্তার, জৈব প্রযুক্তিবিদ থেকে শুরু করে সব ক্ষেত্রের সেরাদের ধরে ধরে আমেরিকায় নিয়ে যাওয়ার গোপন এই পরিকল্পনাই করা হয়েছিল ‘অপারেশন পেপারক্লিপ’-এর অধীনে।
মার্কিন গোয়েন্দারা অপারেশন পেপারক্লিপের কাজ শুরু করেন অনেক আগেই। প্রেসিডেন্ট রুজভেল্টের সেক্রেটারি হেনরি ওয়ালেস নিয়মিত খবরাখবর রাখতেন জার্মানির দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময়ের সামরিক গবেষণাগুলোর উপরে। বিশ্বযুদ্ধ যখন শেষের দিকে তখন এই ওয়ালেস আঁচ করতে পেরেছিলেন আমেরিকা আর সোভিয়েত ইউনিয়নের মধ্যে সম্ভাব্য এক স্নায়ুযুদ্ধের কথা। আর কঠিন এই যুদ্ধে জিতে শক্তিশালী হয়ে উঠতে গেলে বিজ্ঞানীদের যে অগ্রগণ্য ভূমিকা পালন করতে হবে, তা ভালোই বুঝতেন দক্ষ অর্থনীতিবিদ আর পরবর্তীতে আমেরিকার ভাইস প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হওয়া হেনরি ওয়ালেস।
তাই যুদ্ধের হাওয়া যখন মিত্রশক্তির দিকে বইছে, তখন প্রায় ১,৮০০ জার্মান বিজ্ঞানীর তালিকা করা হয়। তারা সবাই যুদ্ধকালীন রকেট, ক্ষেপণাস্ত্র, পারমাণবিক বোমা, সামরিক ওষুধপত্র, রাসায়নিক আর জৈব অস্ত্র নিয়ে কাজ করছিলেন। এই ক্ষেত্রগুলোতে নাৎসি জার্মানির বিজ্ঞানীরা অভূতপুর্ব সাফল্য পেয়েছে — এমন খবরও ছিল গোয়েন্দাদের কাছে। আর তাই এদের সকলকে যুদ্ধ পরবর্তী সময়ে আমেরিকায় নিয়ে যাওয়ার জন্য ওয়ালেসের খসড়া তালিকাটি পৌঁছে দেওয়া হয় আমেরিকান সেনা, নৌ আর বিমান বাহিনীর সমন্বয়ে গঠিত বিশেষ একদল গোয়েন্দার কাছে। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের শেষে গঠিত এই গোয়েন্দা দলের কেতাবি নাম ‘United States Joint Intelligence Objectives Agency (JIOA)’। এই দলটিই মূলত ওসেনবার্গ লিস্টের সঙ্গে ওয়ালেসের খসড়াটির সমন্বয় করে চূড়ান্ত তালিকা তৈরির কাজ শুরু করে। এই তালিকাটি ১৯৪৫ সালের মে মাস নাগাদ জার্মানিতে থাকা মার্কিন গোয়েন্দাদের কাছে পৌঁছে দেওয়ার দায়িত্বও ছিল দলটির। এই গোপন অপারেশনের নাম দেওয়া হয় ‘অপারেশন ওভারকাস্ট’। পরবর্তীতে মার্কিন সামরিক বাহিনী এর নামকরণ করে ‘অপারেশন পেপারক্লিপ’।
দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধকালীন জার্মান বিজ্ঞানীরা যে দূরপাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র, বিশেষত রকেট নির্মাণে সাফল্য অর্জন করেছিলেন, তা কারও অজানা ছিল না। নাৎসি বিজ্ঞানীদের নির্মিত ২,০০০ পাউন্ড ওজনের গোলাবারুদ বহনে সক্ষম V-2 rocket মিত্র বাহিনীর জন্য ছিল সাক্ষাৎ মৃত্যু। আর তাই এই গোপন অপারেশনের অন্যতম লক্ষ্য ছিল, এই রকেট নির্মাতা বিজ্ঞানীদের খুঁজে বের করা। আর এই তালিকায় থাকা ইঞ্জিনিয়ার আর বিজ্ঞানী, যাঁদের আমেরিকায় নিয়ে যাওয়া সম্ভব হবে, তাঁদের কাগজপত্রগুলোকে ‘পেপারক্লিপ’ দিয়ে আলাদা করে রাখতেন গোয়েন্দারা। আর তাই ১৯৪৫-এর নভেম্বরে আমেরিকার সামরিকদপ্তর থেকে এই মিশনের নাম রাখা হয় ‘অপারেশন পেপারক্লিপ’।
১৯৪৫ সালের আগস্ট মাসের শুরুর দিকে আর্মি অর্ডিন্যান্সের গবেষণা ও উন্নয়ন বিভাগের রকেট শাখার প্রধান কর্নেল টফটয় জার্মান রকেট বিজ্ঞানীদের প্রাথমিকভাবে এক বছরের একটি চুক্তির প্রস্তাব দেন। টফটয় ওই বিজ্ঞানীদের পরিবারের দেখভালের দায়িত্ব নেওয়ার আশ্বাস দিলে মোট ১২৭ জন বিজ্ঞানী তাঁর প্রস্তাবটি মেনে নেন। ১৯৪৫ সালের সেপ্টেম্বর মাসে ৭ জন বিজ্ঞানীর প্রথম দল জার্মানি থেকে আমেরিকায় পৌঁছান। পরবর্তীতে তাঁদের টেক্সাসে নিয়ে আসা হয় ‘War Department Special Employee’ হিসেবে। এর প্রায় এক দশক পর এই জার্মান বিজ্ঞানীরা যুদ্ধের সময় কোথায় কী কাজে লিপ্ত ছিলেন, সেই বিষয়ে খোজ খবর নেওয়া শুরু হয়। তাঁদের মধ্যে আর্থার রুডলফ দাস শ্রমিক ক্যাম্প, হিউবার্টাস স্ট্রাগহোল্ড মানব পরীক্ষা নিরীক্ষার কাজে নিয়োজিত ছিলেন বলে জানা যায়। তিনি বিশেষ ভূমিকা রেখেছিলেন মহাকাশ বিজ্ঞানের উন্নতিতেও।
ওসেনবার্গ লিস্টের এক নম্বরে ছিলেন রকেট সাইন্টিস্ট ওয়ার্নার ভন ব্রাউন। যুদ্ধ শুরুর আগে প্রতিভাবান এই বিজ্ঞানীর আগ্রহের কেন্দ্রবিন্দু ছিল মহাকাশে মনুষ্যবাহী রকেট পাঠানো। কিন্তু অভিজাত এই জার্মান বিজ্ঞানী শুরু থেকেই ছিলেন হিটলারের নাৎসি বাহিনীর সমর্থক। হিটলার তাকে মিলিটারি স্পেস রিসার্চের প্রধান হিসেবে নিয়োগ করার পর তার হাতেই তৈরি হয় ইংল্যান্ডে আঘাত হানা সেই কুখ্যাত V-2 rocket। অপারেশন পেপারক্লিপের মাধ্যমে আমেরিকায় নিয়ে যাওয়া হয় বিজ্ঞানী ব্রাউন আর দলের সব ইঞ্জিনিয়ারকে। ১০৪ জন রকেট সায়েন্টিস্টের পুরো দলকে মার্কিন সেনাবাহিনী নিয়োজিত করে মহাকাশ গবেষণার কাজে। মার্কিন সরকার এবং সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকে তাঁদের নিশ্চিত করা হয় কড়া নিরাপত্তা। মহাকাশে মার্কিনীদের পাঠানো প্রথম কৃত্রিম উপগ্রহ ‘এক্সপ্লোরার-১’ উৎক্ষেপণ থেকে শুরু করে অ্যাপোলো মিশনে অনেক বড় ভূমিকা রাখেন এই দলের সদস্যরা। অ্যাপোলো-১১ মিশনের সহকারী পরিচালকের দায়িত্বও পালন করেছিলেন ওয়ার্নার ভন ব্রাউন।
‘অপারেশন পেপারক্লিপ’-এর তালিকায় ছিলেন অটো অ্যামব্রোস-এর মতো খ্যাতনামা রসায়নবিদরাও। অটো অ্যামব্রোস ছিলেন ‘সারিন’, ‘ট্যাবুন’ সহ বেশ কয়েকটি নার্ভ গ্যাসের উদ্ভাবক। যুদ্ধের ট্যাঙ্ক সহ যুদ্ধযানের টায়ার নির্মাণে অ্যামব্রোস গবেষণাগারে তৈরি করেন কৃত্রিম রাবার। ১৯৪৪ সালে হিটলার তাঁকে এক ভোজসভায় ডেকে ১০ লক্ষ রাইখমার্ক দিয়ে পুরস্কৃত করেন। কিন্তু, পেপারক্লিপের খপ্পরে পড়ে আমেরিকায় পাড়ি জমানো এই বিজ্ঞানী পরবর্তীতে কাজ করেন মার্কিন সামরিক বাহিনীর জন্য। ভন ব্রাউন আর অটো অ্যামব্রোসের মতো আরও প্রায় ১,৬০০ জার্মান বিজ্ঞানী এই অপারেশনের মাধ্যমে আমেরিকায় যেতে বাধ্য হয়েছিলেন। তাঁদের সবাই আমেরিকায় সামরিক বাহিনীর গবেষণা ক্ষেত্রে সাফল্যের স্বীকৃতি রেখেছেন। তাই অপারেশন পেপারক্লিপ যে মার্কিন শিবিরে অনেকগুণ সফল ছিল তা বলাই বাহুল্য। যা পরবর্তীতে আমেরিকাকে বিশ্বের শক্তিশালী দেশ হিসেবে তুলে এনেছে।
আমেরিকার এই তৎপরতার খবর পেয়ে সোভিয়েত ইউনিয়ন হাত গুটিয়ে বসে থাকবে এমন ভাবা মুর্খামি। সোভিয়েত গোয়েন্দা আর সামরিক বাহিনীও শুরু করে অপারেশন ওসোভিয়াখিম। যার মাধ্যমে যুদ্ধকালীন ২,০০০ জার্মান বিজ্ঞানীকে যুদ্ধবন্দি হিসেবে নিয়ে যাওয়া হয় সোভিয়েত ইউনিয়নে। সোভিয়েত ইউনিয়ন আর আমেরিকার এই অপারেশনে জার্মান বিজ্ঞানীরাও নিশ্চিত হয়ে গিয়েছিলেন যে, তাঁদের জন্মভূমি ছেড়ে পাড়ি জমাতে হবে এই দুই দেশের যেকোনও একটিতে। ওই সময়ে যে সব বিজ্ঞানী ও গবেষকরা সোভিয়েত ইউনিয়নে গিয়েছিলেন, তাঁরাও অনেক বেশি অবাক হয়েছিলেন। কারণ, তাদের সেখানে ভালো ভালো চাকরির প্রস্তাব দেওয়া হয়। এমনকী তাদের স্ত্রী ও পরিবার নিয়ে সোভিয়েত ইউনিয়নে যাওয়ার অনুমতি দেওয়া হয়। যার ফলে সেখানে একটি ছোটখাটো জার্মান কলোনি গড়ে ওঠে। শুধুমাত্র কাজের ক্ষেত্র ছাড়া জার্মান বিজ্ঞানীদের রাশিয়ান লোকদের থেকে আলাদা করেই রাখা হতো এবং রাশিয়ার লোকদের সঙ্গে মেলামেশা করার অনুমতি তাদের ছিল না। ১৯৫২ সালের দিকে যখন রাশিয়ায় তাদের নিজেদের বিজ্ঞানীর সংখ্যা বাড়তে থাকে, তখন গুরুত্বপূর্ণ গবেষণার কাজগুলোতে জার্মান বিজ্ঞানীদের কদর কমতে থাকে। বিশেষ করে শিক্ষকতায়। এমনকী এক বছরের মাথায় জার্মান বিজ্ঞানীদের পূর্ব জার্মানিতে ফেরত পাঠানো হয়। হয়তো সোভিয়েত ইউনিয়ন চায়নি তাদের বৈজ্ঞানিক উন্নয়নের কৃতিত্ব এমন কারও ঝুলিতে যাক যে কি না রাশিয়ান নয়।
এখনও পর্যন্ত এই মিশনের বেশিরভাগই গোপন করে রেখেছে মার্কিন সামরিক বাহিনী আর গোয়েন্দা সংস্থাগুলো। যতটুকু জানা যায়, তা ‘Operation Paperclip: The Secret Intelligence Program That Brought Nazi Scientists to America’ নামে ২০১৪ সালে লেখা একটি বই থেকে। লেখক মার্কিন সাংবাদিক অ্যানি জ্যাকবসেন। 
13th  August, 2019
  কাশ্মীর ইস্যুতে পাকিস্তানকে চাপে
ফেলে ভারতের পাশে ব্রিটেন, ফ্রান্স

 নয়াদিল্লি, ২১ আগস্ট: কাশ্মীর ইস্যুকে ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয় বলে মন্তব্য করলেন ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন। নরেন্দ্র মোদি ও ইমরান খানের সঙ্গে টেলিফোনিক কথোপকথনে দ্বিপাক্ষিক আলোচনার মধ্যে দিয়ে সমস্যা সমাধানের বার্তাও দেন তিনি। উপত্যকায় উত্তেজনা প্রশমনে পাকিস্তানকে সংযত হওয়ার বার্তা দিল ফ্রান্সও।
বিশদ

দিল্লির অভ্যন্তরীণ বিষয়, জানাল ঢাকা
কাশ্মীরে ৩৭০ ধারা বিলোপ করা
নিয়ে ভারতের পাশে বাংলাদেশ

 নিজস্ব প্রতিনিধি, নয়াদিল্লি, ২১ আগস্ট: ‘লুক ইস্ট’ নীতিকে সফল করতে প্রতিবেশী রাষ্ট্রগুলির আস্থা ও সমর্থন আদায়ের প্রয়াস অব্যাহত। সেই প্রয়াসের জেরে কিছুটা ফল মিলতে শুরু করেছে বলে মনে করছে ভারত। আজ কাশ্মীর প্রশ্নে ভারত সরকারের পাশেই দাঁড়িয়েছে বাংলাদেশ।
বিশদ

পাকিস্তান যে ভাষা বোঝে, সেই ভাষাতেই
তাদের জবাব দেওয়া হবে, হুঁশিয়ারি ভারতের

নয়াদিল্লি, ২১ আগস্ট: ভারতের বিরুদ্ধে পাকিস্তান যে কোনও পদক্ষেপ নিতেই পারে। কিন্তু, তাকে টেক্কা দেওয়া ক্ষমতা আমাদের রয়েছে। বুধবার, সোজাসাপ্টা ভাষায় এই কথাই বুঝিয়ে দিলেন রাষ্ট্রসঙ্ঘে ভারতের স্থায়ী প্রতিনিধি সৈয়দ আকবরউদ্দিন।
বিশদ

আফগানিস্তান থেকে সম্পূর্ণভাবে সেনা
প্রত্যাহার করা হবে না, জানালেন ট্রাম্প

ওয়াশিংটন, ২১ আগস্ট (পিটিআই): আফগানিস্তান থেকে পুরোপুরিভাবে সেনা প্রত্যাহার করবে না আমেরিকা। মঙ্গলবার একথা স্পষ্ট করে জানিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। মঙ্গলবার ওভাল অফিসে তালিবানের সঙ্গে শান্তিপ্রক্রিয়া প্রসঙ্গে ট্রাম্প জানান, ‘আমাদের গোয়েন্দা বিভাগ সবসময় সক্রিয় থাকবে।
বিশদ

মুখ রক্ষা করতে এফএটিএফকে
রিপোর্ট জমা দিল পাকিস্তান

ইসলামাবাদ, ২১ আগস্ট (পিটিআই): আন্তর্জাতিক স্তরে আর্থিক ক্ষেত্রে মুখ রক্ষা করতে সক্রিয় পাকিস্তান ফিনান্সিয়াল অ্যাকশন টাস্ক ফোর্সকে (এফএটিএফ) ২৭ দফা অ্যাকশন প্ল্যানের ভিত্তিতে অগ্রগতি রিপোর্ট জমা দিল। সন্ত্রাসে আর্থিক মদত এবং আর্থিক তছরুপের কারণে গত জুনে পাকিস্তানকে ‘ধূসর’ তালিকাভুক্ত করেছে এই আন্তর্জাতিক সংগঠন।
বিশদ

প্রিয়াঙ্কা চোপড়ার বিরুদ্ধে
রাষ্ট্রসঙ্ঘে নালিশ পাকিস্তানের

 ইসলামাবাদ, ২১ আগস্ট: ভারত-পাক সাম্প্রতিক ইস্যুতে অভিনেত্রী প্রিয়াঙ্কা চোপড়ার মন্তব্যে বেজায় ক্ষুব্ধ ইমরান খানের সরকার। অবিলম্বে রাষ্ট্রসঙ্ঘের ‘শান্তির দূত’ পদ থেকে প্রিয়াঙ্কাকে সরানোর দাবি তুলেছে তারা। বিশদ

 মোদির আমিরশাহি সফর কূটনৈতিকভাবে গুরুত্বপূর্ণ, মত রাষ্ট্রদূতের

 দুবাই, ২১ আগস্ট (পিটিআই): প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সংযুক্ত আরব আমিরশাহির সফর দ্বিপাক্ষিক কূটনৈতিক দিক থেকে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। ট্যুইট করে এমনই দাবি করলেন আমিরশাহিতে নিযুক্ত ভারতীয় দূত নভদীপ সিং সুরি। বিশদ

জি-৭ সম্মেলনে কাশ্মীর নিয়ে মোদির সঙ্গে
আলোচনা, জানালেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট

ওয়াশিংটন, ২১ আগস্ট (পিটিআই): আসন্ন জি-৭ বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে কাশ্মীর ইস্যু নিয়ে আলোচনা করবেন বলে জানালেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। গত ৫ আগস্ট জম্মু ও কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বাতিল করে ভারত। এরপরেই বিষয়টি ঘিরে ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যেকার উত্তেজনা চরমে ওঠে।
বিশদ

 মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা নিয়ে সরব রাশিয়া, চীন

মস্কো, ২০ আগস্ট (পিটিআই): মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা নিয়ে সুর চড়াল রাশিয়া ও চীন। মার্কিন সরকারের এহেন পদক্ষেপের ফলে সামরিক ক্ষেত্রে নতুন করে উত্তেজনা তৈরি হবে বলেও দুই দেশের তরফে জানানো হয়েছে।
বিশদ

21st  August, 2019
কাশ্মীর নিয়ে সংযত হন,
ইমরানকে ধমক ট্রাম্পের
মোদির সঙ্গে কথার পরই পাকিস্তানকে নির্দেশ

ওয়াশিংটন, ২০ আগস্ট (পিটিআই): কাশ্মীর ইস্যুতে সংযত হন। সুর নরম করে ভারতের সঙ্গে আলোচনায় বসুন। পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানকে কিছুটা ধমকের সুরেই এমনই বললেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। আগেই মোদির সঙ্গে ফোনে কথা বলেছিলেন ট্রাম্প।
বিশদ

21st  August, 2019
স্বাধীনতা দিবসে আফগানিস্তান থেকে আইএস উৎখাতের ডাক দিলেন প্রেসিডেন্ট আশরাফ ঘানি

কাবুল ও ওয়াশিংটন, ১৯ আগস্ট (পিটিআই ও এপি): দেশের মাটি থেকে আইএস জঙ্গিদের সমূলে উৎখাত করার ডাক দিলেন আফগানিস্তানের প্রেসিডেন্ট আশরাফ ঘানি। শনিবার কাবুলে এক বিয়ের অনুষ্ঠানে আইএস জঙ্গিহানায় প্রাণ হারান ৬৩ জন। যাদের মধ্যে রয়েছে বেশ কয়েকজন শিশুও। জখম হয়েছে কমপক্ষে ২০০ জন।
বিশদ

20th  August, 2019
র‌্যাচেল কার্সনের ‘নীরব বসন্ত’ 
মৃণালকান্তি দাস

কৃষিপণ্য, রাসায়নিক সার এবং কীটনাশক প্রস্তুতকারী সংস্থা মনসান্টোর বিরুদ্ধে দীর্ঘদিন ধরেই ‘বিষ’ ছড়ানোর অভিযোগ উঠছিল। গত বছর এই আগস্টেই এক মামলায় মার্কিন বহুজাতিক সংস্থাটিকে ৩০ কোটি ডলারের ক্ষতিপূরণ দিতে বলেছিল সান ফ্রান্সিসকোর আদালত।  
বিশদ

20th  August, 2019
সুইস ব্যাঙ্কগুলিতে বাংলাদেশিদের টাকা বাড়ছে কেন? 

সুইজারল্যান্ডের ব্যাঙ্কগুলিতে বাংলাদেশিদের আমানতের পরিমাণ এখন ৬১৭.৭২ মিলিয়ন সুইস ফ্রাঁ। বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রায় ৫ হাজার ৩৪৩ কোটি টাকা। এক বছরে সুইস ব্যাঙ্কগুলিতে বাংলাদেশিদের আমানতের পরিমাণ বেড়েছে ১ হাজার ২৭৪ কোটি টাকা। 
বিশদ

20th  August, 2019
বেশি টাকা হারালে ফিরে পাওয়া যায় 

গবেষকেরা দাবি করেছেন, হারানো মানিব্যাগ ফিরে পাওয়ার সঙ্গে টাকার পরিমাণের একটি সম্পর্ক রয়েছে। যত বেশি টাকা থাকবে মানিব্যাগে, তা হারালে ফিরে পাওয়ার সম্ভাবনাও তত।  
বিশদ

20th  August, 2019

Pages: 12345

একনজরে
 দেরাদুন, ২১ আগস্ট (পিটিআই): উত্তরাখণ্ডের উত্তরকাশী জেলায় উদ্ধারকাজে নেমে ভেঙে পড়ল একটি হেলিকপ্টার। ঘটনায় তিনজন প্রাণ হারিয়েছেন। গত কয়েক দিনের বৃষ্টিতে ব্যাপক ক্ষতির মুখে পড়েছে ...

 নিজস্ব প্রতিনিধি, বেঙ্গালুরু: কাল, শুক্রবার স্যামসাং বাজারে নিয়ে আসছে উন্নতমানের মোবাইল গ্যলাক্সি নোট টেন ও টেন প্লাস। এস পেন নামের একটি কলম দিয়ে এই মোবাইল পরিচালনা করা যাবে। ...

 নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: বাড়ি ফিরে গেলেন প্রবীণ অভিনেতা সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়। বুধবার দুপুর পৌনে দু’টো নাগাদ সৌমিত্রবাবু ছুটি পান হাসপাতাল থেকে। মেয়ে পৌলোমীর সঙ্গে বাড়ি ফেরার ...

সংবাদদাতা, নকশালবাড়ি: বুধবার উত্তরবঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের একদল গবেষক বিক্ষোভ প্রদর্শন করেন। কলেজের অতিথি অধ্যাপকদের স্থায়ী করার বিষয়ে রাজ্য সরকার সম্প্রতি উদ্যোগ নিয়েছে। ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

সঠিক বন্ধু নির্বাচন আবশ্যক। কর্মরতদের ক্ষেত্রে শুভ। বদলির কোনও সম্ভাবনা এই মুহূর্তে নেই। শেয়ার বা ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৬৩৯: মাদ্রাজ (বর্তমান চেন্নাই) শহরের প্রতিষ্ঠা করে ব্রিটিশ ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানি
১৮১৮: ভারতে ব্রিটিশ গভর্নর জেনারেল ওয়ারেন হেস্টিংস-এর মৃত্যু
১৯১১: গায়ক দেবব্রত বিশ্বাসের জন্ম
১৯১৫: অভিনেতা শম্ভু মিত্রের জন্ম
১৯৫৫: রাজনীতিক ও প্রখ্যাত চিত্রতারকা চিরঞ্জীবীর জন্ম
১৯৮৯: নেপচুন গ্রহে প্রথম বলয় দেখা গেল

ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭০.৬৯ টাকা ৭২.৩৯ টাকা
পাউন্ড ৮৫.৪৬ টাকা ৮৮.৬১ টাকা
ইউরো ৭৭.৯০ টাকা ৮০.৯০ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৩৮,১৩৫ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩৬,১৮০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৩৬,৭২৫ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৪৩,৯০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৪৪,০০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

৫ ভাদ্র ১৪২৬, ২২ আগস্ট ২০১৯, বৃহস্পতিবার, ষষ্ঠী ৪/২৮ দিবা ৭/৬। ভরণী ৫৩/১১ রাত্রি ২/৩৬। সূ উ ৫/১৯/২১, অ ৬/০/৩, অমৃতযোগ রাত্রি ১২/৪৭ গতে ৩/৩ মধ্যে, বারবেলা ২/৪৯ গতে অস্তাবধি, কালরাত্রি ১১/৩৯ গতে ১/৪ মধ্যে।
৪ ভাদ্র ১৪২৬, ২২ আগস্ট ২০১৯, বৃহস্পতিবার, সপ্তমী ৫৫/২৪/৯ রাত্রি ৩/২৮/৭। ভরণীনক্ষত্র ৪৫/২৬/১৪ রাত্রি ১১/২৮/৫৭, সূ উ ৫/১৮/২৭, অ ৬/২/৫৯, অমৃতযোগ রাত্রি ১২/৪৪ গতে ৩/৪ মধ্যে, বারবেলা ৪/২৭/২৫ গতে ৬/২/৫৯ মধ্যে, কালবেলা ২/৫১/৫১ গতে ৪/২৭/২৫ মধ্যে, কালরাত্রি ১১/৪০/৪৩ গতে ১/৫/৯ মধ্যে।
২০ জেলহজ্জ

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
চন্দ্রযান ২-এর তোলা চাঁদের প্রথম ছবি 
চন্দ্রযান ২-এর তোলা চাঁদের প্রথম ছবি প্রকাশ করল ইসরো ...বিশদ

08:25:16 PM

২৬ আগস্ট পর্যন্ত চিদম্বরমের সিবিআই হেফাজত 
পি চিদম্বরমের ৫ দিনের সিবিআই হেফাজতের নির্দেশ দিল আজ সিবিআই঩য়ের ...বিশদ

06:50:00 PM

ফের আক্রান্ত পুলিস, এবার আমতায়
ফের একবার পুলিসকে মারধর করে উদি ছিঁড়ে নেওয়ার অভিযোগ উঠল। ...বিশদ

04:49:07 PM

রায়গঞ্জে বিজেপি সমর্থকের কান কাটার অভিযোগ তৃণমূলের বিরুদ্ধে 
রায়গঞ্জের পূর্বপাড়া এলাকায় হাঁসুয়া দিয়ে এক মহিলার কান কেটে নেওয়ার ...বিশদ

04:21:05 PM

তারকেশ্বর ডিগ্রি কলেজে গোলমাল, জখম ১ 
তারকেশ্বর ডিগ্রি কলেজে তৃণমূল ছাত্র পরিষদের সদস্য এবং অখিল ভারতীয় ...বিশদ

04:03:52 PM

চিদম্বরমকে ৫ দিনের হেফাজতে চাইল সিবিআই
সিবিআইয়ের বিশেষ আদালতে পি চিদম্বরমকে ৫ দিনের হেফাজতে চাইল সিবিআই। ...বিশদ

04:03:00 PM