Bartaman Patrika
সম্পাদকীয়
 

বৃদ্ধিযোগের ভালো-মন্দ

পশ্চিমবঙ্গে হঠাৎ বৃদ্ধিযোগ। সরকারের রাজকোষের সঙ্গে প্রত্যক্ষ ও নানা ভাবে যুক্ত মানুষের পাওনাগণ্ডা অনেকখানি বাড়িয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে রাজ্য। যেমন গত ২৫ জুলাই প্রাথমিক শিক্ষকদের বেতন একলাফে অনেকটাই বাড়ানোর সিদ্ধান্ত ঘোষণা করা হয়েছে। ২৯ জুলাই শিশু শিক্ষা কেন্দ্র (এসএসকে) এবং মাধ্যমিক শিক্ষা কেন্দ্রের (এমএসকে) শিক্ষকদেরও প্রাপ্য বাড়িয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত ঘোষণা করা হয়েছে। সম্প্রতি বাড়ানো হয়েছে ত্রিস্তর পঞ্চায়েতের সদস্য এবং ভোটে নির্বাচিত নানা ধরনের পদাধিকারীদেরও। তার আগে বেড়েছে বিধায়ক এবং রাজ্যের মন্ত্রীদের ভাতাও। ৩০ জুলাই ঘোষিত হল পুর কাউন্সিলারসহ সংশ্লিষ্ট সমস্ত পদাধিকারীর ভাতাবৃদ্ধির সিদ্ধান্ত। বেতন এবং ভাতাবৃদ্ধির প্রতিটি সিদ্ধান্তই স্বাগত। কারণ, দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতি অর্থনীতির ধর্ম। সরকারি কর্মী থেকে জনপ্রতিনিধি সকলেই এই অর্থনীতির অংশ। একই বাজারে সকলকেই বাজার করতে হয়। অতএব দ্রব্যমূল্যবৃদ্ধির সঙ্গে সংগতিপূর্ণ বর্ধিত বেতন এবং ভাতাই সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের প্রাপ্য। সরকার স্বতঃপ্রণোদিত হয়ে এই পাওনাগণ্ডা বাড়িয়েছে এমন নয়। প্রতিটি ক্ষেত্র নিজ নিজ দাবিতে সরব ছিল। স্কুলশিক্ষক এবং এসএসকে, এমএসকের শিক্ষকরা বেতনবৃদ্ধির দাবিতে একাধিকবার আন্দোলনও করেছেন। জনপ্রতিনিধিরা আন্দোলনের পথে যাননি ঠিকই কিন্তু ‘সামান্য’ মাসিক ভাতা নিয়ে তাঁদের একাংশের মনে ক্ষোভ অবশ্যই ছিল। অতএব প্রতিটি ক্ষেত্রে পাওনাগণ্ডা বাড়িয়ে দেওয়ার এই সিদ্ধান্ত সুবিবেচনাপ্রসূত বলেই প্রশংসিত হবে, ধরে নেওয়া যায়।
তবে, এর দুটি প্রভাব সম্পর্কেও হুঁশিয়ার থাকতে হবে। সমাজের একটি অংশের আয়বৃদ্ধির প্রভাব বা‌জারে পড়বে। তার দরুণ জিনিসপত্রের দাম কিছুটা বেড়ে যাওয়ার আশঙ্কা থাকবে। আর একটি সম্ভাবনা হল সরকারের বাকি সমস্ত ক্ষেত্রও একইসঙ্গে বেতনসহ অন্যান্য প্রাপ্য বৃদ্ধির ব্যাপারে প্রত্যাশী হয়ে উঠবে। যেমন হাইস্কুল, কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়, সরকারি এবং সরকার অধিগৃহীত সংস্থাগুলির কর্মীরা। আমরা জানি, সরকারি কর্মীরা মহার্ঘভাতা বৃদ্ধির দাবিতে দীর্ঘদিন যাবৎ সোচ্চার। ইতিমধ্যেই ডিএ মামলায় স্যাটের রায় কর্মীদের পক্ষে গিয়েছে। তাঁদের কেন্দ্রীয় হারে ডিএ দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে স্যাট। নবান্নের উপর আরও রয়েছে ষষ্ঠ বেতন কমিশনের সুপারিশ কার্যকর করার চাপ। দাবিপূরণের দরজা একবার খুলে গেলে তা বন্ধ করে দেওয়া কঠিন। আশঙ্কা হয়, এরপর প্রত্যাশা বাড়বে সামাজিক কল্যাণ ক্ষেত্রে সরকার যত রকম ভাতা দিয়ে থাকে (যেমন বিধবাভাতা, বার্ধক্যভাতা, ছাত্রবৃত্তি প্রভৃতি) সেগুলিও বৃদ্ধির জন্য।
সম্প্রতি যতটা বর্ধিত আর্থিক দায় সরকার স্বীকার করে নিয়েছে তার পরিমাণ বিপুল। এরপর ডিএ, ষষ্ঠ বেতন কমিশনের সুপারিশ গ্রহণ মিলিয়ে আরও এক বিশাল ব্যয়ভার অপেক্ষা করছে। সরকার এই পুরোটাই মেটাতে পারলে তার চেয়ে সুখের কিছু হয় না। কারণ, তাতে নাগরিকদের একটি বৃহৎ অংশের জীবনযাত্রার মানে ইতিবাচক পরিবর্তন সূচিত হবে। যার সুফল বাজারেও পড়বে। কিন্তু প্রশ্ন হল, যে সরকারের কাঁধে ঋণের সুদ বাবদ অবিলম্বে ৫৬ হাজার কোটি টাকা মেটানোর দায় রয়েছে, সেই সরকার এটা কতটা পেরে উঠবে? রাজ্য সরকারের আয়ের ক্ষেত্র সীমিত। কেন্দ্রীয় রাজস্বের প্রাপ্য অংশও রাজ্য কখনও পুরো পায় না। যেমন চতুর্দশ অর্থ কমিশনের নিয়মানুসারে মোট কেন্দ্রীয় রাজস্বের (জিটিআর) ৪২ শতাংশ রাজ্যগুলির প্রাপ্য। এটি রাজ্যগুলির সাংবিধানিক অধিকারও বটে। তারপরেও গত পাঁচ বছরে রাজ্যগুলির প্রাপ্য ৩৬ শতাংশও স্পর্শ করেনি। তাই রাজ্যের দায়ভারকে অংশত কেন্দ্রেরও স্বীকার করে নেওয়া উচিত। তা না-হলে রাজ্যের উপর চাপবৃদ্ধিতে অশান্তিই বাড়বে, বাস্তবে কিছুই করার থাকবে না রাজ্যের। অন্যদিকে, রাজ্যকেও চেষ্টা করতে হবে সংকীর্ণ রাজনীতির ঊর্ধ্বে ওঠার এবং অনাবশ্যক কিছু খরচে লাগাম টানার। আয়বৃদ্ধির নতুন নতুন ক্ষেত্র খুঁজে বের করাও জরুরি। বেতন ভাতা বাবদ যাঁরা বাড়তি অর্থ পেতে চলেছেন, তাঁদেরকেও মনে রাখতে হবে, বাংলার কর্মসংস্কৃতির বিন্দুমাত্র সুনাম নেই। জনপ্রতিনিধিদের একাংশ সম্পর্কেও মানুষের শ্রদ্ধা নষ্ট হয়ে গিয়েছে। অতএব সরকার যখন সাধারণ মানুষের কাছ থেকে সংগৃহীত অর্থে তাঁদের জন্য বাড়তি বিপুল ব্যয়ভার স্বীকার করছে, তখন কর্মসংস্কৃতি এবং স্বচ্ছতা ফেরানোর বিষয়ে তাঁরা যেন আন্তরিকতার পরিচয়টি রাখেন।
01st  August, 2019
ভদ্রতার মুখোশ নয়

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি হামেশাই বলে থাকেন, এ এক নতুন ভারত। অর্থাৎ এই ভারত মার খেয়ে বসে থাকবে না। পাল্টা ঘরে ঢুকে মারবেও। আর এই নীতি যে শুধু বালাকোটের মতো অভিযানে সীমাবদ্ধ থাকবে না, তার আভাস দিয়ে দিলেন তাঁরই প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং।
বিশদ

সত্যের দরজা খুলুক

 দুধে জল মেশানো অথবা জলে দুধ মেশানোর প্রকৃষ্ট উদাহরণ কমলাকান্ত ও প্রসন্ন গোয়ালিনীর কথোপকথনে আছে, সেটা আর এখানে উল্লেখ না করাই শ্রেয়। কিন্তু এই জলে দুধ মিশিয়ে তা বিক্রিযোগ্য করা বা খরিদ করতে বাধ্য করাটা ভিন্ন। আমাদের দেশে শিশুখাদ্য দুধেও জল মেশানোটা অনেকের রক্তে মিশে আছে। বিশদ

17th  August, 2019
গাড়িশিল্পে বিপর্যয় উদ্বেগের

 নরেন্দ্র মোদির নেতৃত্বে কেন্দ্রের সরকারে ফের এনডিএ। জোটধর্মের নিয়মরক্ষাটি সরিয়ে রাখলে এটাকে বিজেপি সরকারও বলা যায়। কারণ, নরেন্দ্র মোদির দল সংসদে একাই সংখ্যাগরিষ্ঠ। আরও একটি সত্য হল, কংগ্রেসসহ বিরোধীদের তীব্র আক্রমণ নস্যাৎ করে দিয়ে মানুষ এবার বিজেপিকে ২০১৪ সালের বেশিই ভোট দিয়েছে।
বিশদ

15th  August, 2019
কড়া হাতে দমন 

স্মৃতি সতত সুখের হয় না। কিছু কিছু পুরনো স্মৃতি পীড়াদায়ক, উদ্বেগও বাড়ায়। সোমবারের ঘটনা সেরকমই একটা পুরনো স্মৃতিকে উস্কে দিল। মনে পড়ে যায় সেই দৃশ্যটি যেখানে প্রাণ বাঁচাতে পুলিসকে আশ্রয় নিতে হয়েছে টেবিলের নীচে।  বিশদ

14th  August, 2019
জালনোট: মূল উপড়ানো দরকার 

সম্প্রতি লোকসভায় কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র দপ্তরের রাষ্ট্রমন্ত্রী যে পরিসংখ্যান দিয়েছেন, তাতে নোটবাতিলের পর থেকে চলতি বছরের জুলাইয়ের মাঝামাঝি সময় পর্যন্ত বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সীমান্তে ভারতীয় জালনোট উদ্ধারের পরিমাণ ২ কোটি ৫৫ লক্ষ টাকা। 
বিশদ

13th  August, 2019
খট্টর-মন্তব্য এবং নারীসমাজ

 হরিয়ানার মুখ্যমন্ত্রী মনোহরলাল খট্টর একটি মন্তব্য করেছেন এবং তার সাফাইও দিয়েছেন। বিষয়বস্তু, ‘কাশ্মীরি বধূ’। ভাবটা খুব পরিষ্কার, সংবিধানের ৩৭০ ধারা কাশ্মীরের উপর আর কার্যকর না থাকায় এবার কাশ্মীর থেকেও ভারতের অন্য রাজ্য বা প্রদেশের পুরুষরা সুন্দরী বধূ নিয়ে আসতে পারবেন। মাননীয় মুখ্যমন্ত্রীর কাছে খুব মজাদার বিষয় বটে।
বিশদ

12th  August, 2019
ব্যালট বনাম প্রযুক্তি

ভারতের মুখ্য নির্বাচন কমিশনার সুনীল অরোরা স্পষ্ট জানিয়ে দিলেন, ব্যালটে ফিরে যাওয়ার কোনও প্রশ্নই নেই। কলকাতায় একটি অনুষ্ঠানে এসে তিনি এই কথা জানিয়েছেন। এই প্রসঙ্গে সুপ্রিম কোর্টের রায় উল্লেখ করার পাশাপাশি মুখ্য নির্বাচন কমিশনার বুঝিয়ে দিয়েছেন, ভারত আর অতীতের দিকে ফিরে তাকাতে চায় না।
বিশদ

11th  August, 2019
ভারতের যুক্তরাষ্ট্রীয় কাঠামোয় আঘাত এবং মমতার লড়াই

 যে যায় লঙ্কায়, সেই হয় রাবণ। দিল্লির তখত-এ-তাউসের মর্মবাণী এই যে, এখান থেকে গোটা ভারতটাকে নিজের পায়ের তলায় দমিয়ে রাখ। যে বা যারা তার বিরোধিতায় যাবে, তাদের ছলে-বলে-কৌশলে জয় করো, অথবা নাম ও নিশান মিটিয়ে দাও।
বিশদ

10th  August, 2019
ব্যর্থ কৌশল ছাড়ুক পাকিস্তান

  জম্মু ও কাশ্মীর রাজ্যের বিশেষ মর্যাদা খারিজ হওয়ার পরিপ্রেক্ষিতে পাকিস্তানের ভারত-নীতি কী হবে—এই দুই বৈঠকে সেটাই আলোচনা করা হয়েছে। পার্লামেন্টের বিশেষ যৌথ অধিবেশনেও কাশ্মীর বিষয়ে গরমাগরম প্রতিক্রিয়া দিয়েছেন নেতৃস্থানীয়রা।
বিশদ

09th  August, 2019
দার্জিলিং: এক অবান্তর প্রসঙ্গ

 কাশ্মীর সমস্যার সমাধানে মোদি সরকার প্রশংসনীয় পদক্ষেপ করতেই দেশাভ্যন্তরের অন্যকিছু অঞ্চল নিয়ে অবান্তর প্রশ্ন তুলতে শুরু করেছেন কেউ কেউ। সাত দশক যাবৎ জম্মু ও কাশ্মীর বিশেষ অধিকার ভোগ করেছে ভারতের সংবিধানের ৩৭০ এবং ৩৫এ ধারায়। আমরা জানি, ৫ আগস্ট ৩৭০ ধারা খারিজ হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে ওই ভূখণ্ডের অঙ্গরাজ্যের তকমাও কেড়ে নেওয়া হয়েছে। বিশদ

08th  August, 2019
ঐতিহাসিক সাহসী পদক্ষেপ 

মোদি সরকার দ্বিতীয় দফায় ক্ষমতায় এসে একের পর এক সাহসী পদক্ষেপ করছে। স্বাধীন ভারতের ইতিহাসে যা ঐতিহাসিক সিদ্ধান্ত। অতীতের বিভিন্ন সরকারের তুলনায় এই সরকার যে অনেক বেশি আগ্রাসী এবং সক্রিয় তা রাজ্যসভায় বিল পাসের মাধ্যমে ৩৭০ ধারাটি খারিজ করে প্রমাণ করে দিল।  বিশদ

07th  August, 2019
বন্দুকবাজদের এই উগ্রপন্থা আমেরিকা আটকাবে কীভাবে

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র আজ যেন বন্দুকবাজদের এক আখড়া। প্রায়ই সেখানে বন্দুকবাজদের এলোপাথাড়ি গুলি চলছে আর মৃত্যু হচ্ছে অসংখ্য নিরীহ মানুষের। যার মধ্যে রয়েছে বহু নিষ্পাপ শিশুও। কোনও দোষ ছিল না তাদের। আজ বন্দুকবাজদের নিয়ে মহা সঙ্কট মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে। মানসিক ক্লেদ এবং হিংসার বিষ অনুভূতি বয়ে নিয়ে চলেছে এই ঘাতকরা।
বিশদ

06th  August, 2019
ভূস্বর্গ পুনরায় ভয়ঙ্কর

 মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র সফরে গিয়ে পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান জঙ্গিদমনের যতই গল্প শুনিয়ে আসুন না কেন, ফের কাশ্মীর উপত্যকার মাটিতে সন্ত্রাস ছড়ানোর অভিযোগে বিদ্ধ তাঁর দেশ, পাকিস্তান। ফের একবার কাশ্মীরে পাকিস্তান সন্ত্রাস তৈরিতে মদত দেয়, এই তথ্য প্রমাণিত হল।
বিশদ

05th  August, 2019
 জঙ্গি তকমার আইন

ইউএপিএ সংশোধনী বিলটি রাজ্যসভায় পাশ হওয়া মাত্র বিরোধীরা সরব হয়েছে একটিই কারণ দেখিয়ে। তাদের দাবি, এর ফলে ভারতবাসীর মৌলিক অধিকার খর্ব হবে। প্রত্যেক মানুষের মত প্রকাশের অধিকার রয়েছে। আজ যদি কারও ভাবধারার প্রতি সহমত হওয়া বা সোশ্যাল মিডিয়ায় কোনও পোস্ট ফরওয়ার্ড করার জন্য একজন ভারতবাসীকে জঙ্গি তকমা পেতে হয়, তা মোটেই সংবিধানকে মান্যতা দেয় না।
বিশদ

04th  August, 2019
ব্যাধির উৎস শিকড়ে 

একটির পর একটি। তারপর আরও একটি। নারী নির্যাতনের যেন বিরাম নেই। একেকবার এক-একটি ঘটনাকে কেন্দ্র করে উত্তাল হয় দেশ। কিছুদিন তর্ক-বিতর্ক চলে, রাজনৈতিক বেনিয়ারা মুনাফা তোলার চেষ্টা করে—তারপর আবার যে কে সেই।   বিশদ

03rd  August, 2019
নিঃসঙ্গ প্রবীণ ভাবনা প্রশংসনীয়

 রাজ্যের অন্যসকল অঞ্চলের তুলনায় কলকাতায় শিক্ষার হার বেশি। এখানকার উচ্চ শিক্ষিতদের একটি বড় অংশ দিল্লি, মুম্বই, বেঙ্গালুরু, হায়দরাবাদ, চেন্নাই প্রভৃতি স্থানে কর্মরত। যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা, অস্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ড, সিঙ্গাপুর এবং আরব ও ইউরোপের নানা দেশে গবেষণা, চাকরি অথবা বাণিজ্য সূত্রে বসবাস করেন। অনেকের পক্ষে বছরের পর বছর দেশে ফেরা সম্ভব হয় না। তাঁদের বৃদ্ধ বাবা-মা কলকাতা অথবা শহরতলির বাড়িতে বা ফ্ল্যাটে কার্যত নিঃসঙ্গ জীবনযাপন করেন। বিশদ

02nd  August, 2019
একনজরে
করাচি, ১৭ আগস্ট (পিটিআই): পাকিস্তানের বালুচিস্তান প্রদেশের একটি মসজিদে বিস্ফোরণে মৃত্যু হল পাঁচজনের। এঁদের মধ্যে রয়েছেন শীর্ষ তালিবান নেতা মুল্লা হাইবাতুল্লার ভাই হাফিজ আহমাদুল্লা। কোয়েত্তা থেকে ২৫ কিলোমিটার দূরে কুচলক এলাকায় রয়েছে শেখ হাইবাতুল্লা মাদ্রাসা। ...

 নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: আর উপায় নেই। সুপ্রিম কোর্ট এবার রাজ্য সরকারের ‘রিভিউ পিটিশন’ খারিজ করে দেওয়ায় ২০০৬ সালের নিয়োগ প্রক্রিয়ায় অংশগ্রহণকারী প্রায় ১২০০ প্রার্থীকে প্রাথমিক শিক্ষক পদে নিয়োগ করতে হবে রাজ্য সরকারকে। ...

সংবাদদাতা, বসিরহাট: ভ্যাপসা গুমোট গরমের শেষে একটানা বৃষ্টির স্বস্তি এখন অস্বস্তির কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে বসিরহাট পুরসভা এলাকায়। বেশিরভাগ ওয়ার্ডের রাস্তাঘাট, ঘরবাড়ি জলের তলায়। বাসিন্দাদের অভিযোগ, ...

 নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: গোটা বিশ্বেই মধ্যবিত্ত শ্রেণী বাড়ছে দ্রুত। নতুন প্রজন্ম অর্থ উপার্জন করছে বলেই এই শ্রেণীর বাড়বাড়ন্ত। সরকারেরও উচিত তাদের কাজের সুযোগ করে দেওয়া। সেই কারণেই সরকার যতটা পেনশন খাতে খরচ করে, তার চেয়ে গুরুত্ব দেওয়া উচিত শিক্ষা খাতে ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

হঠাৎ জেদ বা রাগের বশে কোনও সিদ্ধান্ত না নেওয়া শ্রেয়। প্রেম-প্রীতির যোগ বর্তমান। প্রীতির বন্ধন ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৯০০: রাজনীতিক বিজয়লক্ষ্মী পণ্ডিতের জন্ম
১৯৩৬: গীতিকার ও পরিচালক গুলজারের জন্ম
১৯৫৮: ইংলিশ চ্যানেল অতিক্রম করলেন প্রথম এশীয় ব্রজেন দাস
১৯৮০: সঙ্গীতশিল্পী দেবব্রত বিশ্বাসের মৃত্যু

ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭০.৫৯ টাকা ৭২.২৯ টাকা
পাউন্ড ৮৪.৮১ টাকা ৮৭.৯৪ টাকা
ইউরো ৭৭.৮৩ টাকা ৮০.৭৮ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
17th  August, 2019
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৩৮,২৪৫ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩৬,২৮৫ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৩৬,৮৩০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৪৩,৯০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৪৪,০০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

১ ভাদ্র ১৪২৬, ১৮ আগস্ট ২০১৯, রবিবার, তৃতীয়া ৪৯/৪৯ রাত্রি ১/১৪। পূর্বভাদ্রপদ ২৯/২ অপঃ ৪/৫৫। সূ উ ৫/১৮/২, অ ৬/৩/১৪, অমৃতযোগ দিবা ৬/৯ গতে ৯/৩৩ মধ্যে। রাত্রি ৭/৩২ গতে ৯/২ মধ্যে, বারবেলা ১০/৫ গতে ১/১৬ মধ্যে, কালরাত্রি ১/৫ গতে ২/৩০ মধ্যে।
৩২ শ্রাবণ ১৪২৬, ১৮ আগস্ট ২০১৯, রবিবার, তৃতীয়া ৪৩/৯/৬ রাত্রি ১০/৩২/৩৬। পূর্বভাদ্রপদনক্ষত্র ২৬/১/৪১ দিবা ৩/৪১/৩৮, সূ উ ৫/১৬/৫৮, অ ৬/৫/৪৬, অমৃতযোগ দিবা ৬/১২ গতে ৯/৩১ মধ্যে এবং রাত্রি ৭/২২ গতে ৮/৫৪ মধ্যে, বারবেলা ১০/৫/১৬ গতে ১১/৪১/২২ মধ্যে, কালবেলা ১১/৪১/২২ গতে ১/১৭/২৮ মধ্যে, কালরাত্রি ১/৫/১৬ গতে ২/২৯/১০ মধ্যে।
 ১৬ জেলহজ্জ

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
নয়াদিল্লির এইমস-এ আগুন
নয়াদিল্লির এইমস -এ আগুন। ঘটনাটি ঘটে আজ বিকাল ৫টা নাগাদ। ...বিশদ

17-08-2019 - 05:47:48 PM

ভাইকে নিয়ে স্বামীকে খুন, যাবজ্জীবন কারাদণ্ড 
ভাইকে সঙ্গে নিয়ে স্বামীকে খুনের ঘটনায় দু’জনকেই যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের সাজা ...বিশদ

17-08-2019 - 04:09:34 PM

জলমগ্ন শহর, পুরকর্মীদের ছুটি বাতিল 
টানা বৃষ্টিতে কার্যত জলের নীচে মহানগর। ব্যাহত হচ্ছে জনজীবন। দ্রুত ...বিশদ

17-08-2019 - 02:13:11 PM

ট্রাকে ধাক্কা যাত্রীবোঝাই বাসের, জখম ২০ 
গভীর রাতে দাঁড়িয়ে থাকা ট্রাকের পেছনে ধাক্কা যাত্রীবোঝাই বাসের। ঘটনায় ...বিশদ

17-08-2019 - 01:55:28 PM

ভুয়ো পরিচয় দিয়ে লক্ষ লক্ষ টাকার প্রতারণা, ধৃত অবসরপ্রাপ্ত সরকারি কর্মী 
সচিব পদমার্যাদার অফিসার পরিচয় দিয়ে বিভিন্ন সরকারি কর্মীদের লক্ষ লক্ষ ...বিশদ

17-08-2019 - 01:07:00 PM

সঙ্কটে জেটলি, রাখা হল লাইফ সাপোর্টে 
আরও সঙ্কটে অরুণ জেটলি। এদিন সকাল থেকে প্রাক্তন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রীকে ...বিশদ

17-08-2019 - 12:57:58 PM