Bartaman Patrika
অমৃতকথা
 

 কাব্য

রবীন্দ্রবাবুর জীবনে এবং কাব্যে এত বিচিত্র ভাবের সমাবেশ আছে যে তাহার নানান মহলায় প্রবেশদ্বারের চাবি সকল সময়ে খুঁজিয়া পাওয়া যায় না।
আমাদের দেশে জন্মগ্রহণ করিয়া বিচিত্রতার স্বাদের জন্য কবির চিত্তে এমন সুগভীর আকাঙ্ক্ষা কি করিয়া জাগিল, তাহা আমার কাছে বিস্ময়কর। আমাদের দেশের সমাজের জীবন নানা কারণে অত্যন্ত ক্ষুদ্র—কৃত্রিম লোকাচারের বন্ধন তো আছেই—কিন্তু ক্ষুদ্রতার আসল কারণ এদেশে কর্মক্ষেত্রে নিতান্ত সংকীর্ণ—সেইটুকুর মধ্যে মানুষের বিচিত্র শক্তিকে ভালো করিয়া ছাড় দেওয়া যায় না—তাহাতে আমাদের জীবনের লীলা ব্যাঘাত পায় বলিয়া আনন্দের অভাব ঘটে। শুধু তাই নয়। আমাদের হৃদয়ের ভাব বাহিরের ক্ষেত্রে নানারূপে আপনাকে সৃষ্টি করিতে চায়; সেই সৃষ্টি করিতে গিয়াই সে যথার্থ পরিণতি লাভ করে, সে বল পায়, তাহার বাড়াবাড়ি সমস্ত কাটিয়া যায়, সে আপনার ঠিক ওজনটি রক্ষা করিতে শেখে—এক কথায় সে রীতিমত পাকা হইয়া উঠে। কিন্তু যে সমাজে মানুষের চিত্ত বাহিরে আপনাকে প্রকাশ করিবার এমন প্রশস্ত স্থান ও বিচিত্র অধিকার না পায়, সে সমাজে ভাবুকতা আপনার পরিমাণ হারাইয়া ফেলে; হয়, সে অত্যন্ত ক্ষুদ্র হইয়া পঙ্গু হইয়া নিতান্ত গ্রাম্য হইয়া থাকে, নয় সে আপনাকে অসংগতরূপে স্ফীত করিয়া অদ্ভুত প্রমত্ততার মধ্যে ছুটিয়া যায়। যেখানে জীবনের ক্ষেত্র দূরবিস্তৃত সেখানে মানুষের কল্পনা নিয়তই সত্যের সংস্রবে আপনাকে সুবিহিত আকার দান করিতে পারে— যতদূর পর্যন্ত তাহার শক্তির অধিকার ততদূর পর্যন্ত সে ব্যাপ্ত হয় এবং কোন্‌খানে তাহার সীমা তাহাও আবিষ্কার করিতে তাহার বিলম্ব ঘটে না।
সংগীত, শিল্প, চিত্রকলা, সৌন্দর্য, মানুষের সঙ্গ, ভাবের আলোচনা, শক্তির স্ফূর্তি প্রভৃতি জিনিস বাহির হইতে ক্রমাগত উত্তাপ দিতে থাকিলে আমাদের প্রকৃতি যে শোভায় সৌন্দর্যে একটি আশ্চর্য বিকাশ লাভ করিতে পারে, তাহা আমরা অন্য দেশের অন্য কবিদের জীবনচরিতে দেখিয়াছি। কেবল আমাদেরই দেশে এ সকলের অভাব যে কত বড় অভাব এবং এই সকল প্রাণের উপকরণ হইতে বঞ্চিত হইয়া থাকা যে কত বড় শূন্যতা তাহা আমরা ভালো করিয়া অনুভব করিতেও পারি না।
কিন্তু মানুষের মনুষ্যত্বের আগুনকে চিরকাল ছাই চাপা দিয়া রাখা যায় না। যখনই সে বাহির হইতে খোঁচা পায় তখনই সে শিখা হইয়া জ্বলিয়া উঠিতে চায়। এই তাহার স্বাভাবিক ধর্ম। আমাদের এই বহু দিনের সুপ্তদেশ একদিন সহসা বৃহৎ পৃথিবীর আঘাত পাইয়াছে। যে পশ্চিম-মহাসমুদ্রতীরে মানুষের মন সচেতনভাবে কাজ করিতেছে, চিন্তা করিতেছে ও আনন্দ করিতেছে, সেইখানকার মানসহিল্লোল আমাদের নিস্তব্ধ মনের উপর আসিয়া যখন পৌঁছিল তখন সে কি চঞ্চল না হইয়া থাকিতে পারে? আমাদের মনের এই যে প্রত্যহম উদ্বোধনের চঞ্চলতা ইহা তো নীরব হইয়া থাকিবার নহে। যতদিন সুপ্ত ছিলাম ততদিন আপনার মনের নানা অদ্ভুত স্বপ্ন হইয়া দিব্য রাত কাটিতেছিল, কিন্তু যখন জাগিলাম, যখন শয়ন ঘরের জানালার ফাঁক এঁর মধ্য দিয়া দেখিলাম জীবনের উদার-বিস্তীর্ণ লীলাভূমিতে মানুষ দিকে দিকে আপনার বিচিত্র শক্তিকে আনন্দে পরিকীর্ণ করিয়া দিয়াছে, তখন স্বপ্নের বন্ধন ও পাথরের দেয়ালে আর তো বাঁধা থাকিতে ইচ্ছা হয় না। তখন বিশ্বের ক্ষেত্রে ছুটিয়া বাহির হইয়া পড়িবার জন্য প্রাণ ব্যাকুল হইয়া উঠে।
বিশ্বকে, মানুষের জীবনকে নানা দিক দিয়া উপলব্ধি করিবার এই ব্যকুলতাই কবি রবীন্দ্রনাথের কবিত্বকে উৎসারিত করিয়াছে, ইহাই আমাদের বিশ্বাস। আপনার জীবনের দ্বারা সম্পূর্ণরূপে যে জীবনকে পাওয়া যাইতেছে না অথচ দূর হইতে যাহার পরিচয় পাইতেছি, নিজের অন্তরের ঔৎসুক্যের তীব্র আলোকে তাঁহার দীপ্যমাণ হইয়া দেখা দেয়। কবির ব্যাকুল কল্পনার শতধা-বিচ্ছুরিত নানা বর্ণময় রশ্মিছটায় প্রদীপ্ত জগদ্দৃশ্যই আমরা তাঁহার কাব্যের মধ্যে দেখিতে পাই, একদিক হইতে যে অবস্থাকে প্রতিকূল বলিয়াই মনে করা যাইত, কবিত্বের পক্ষে তাহাও অনুকূল হইয়াছে।
অজিতকুমার চক্রবর্তীর ‘রবীন্দ্রনাথ ও কাব্যপরিক্রমা’ থেকে
মানুষের রূপান্তর

জগতের ইতিহাসে এমন কতকগুলি আশ্চর্য উদাহরণ দেখা যায় যে ক্ষেত্রে নিছক জৈবিক প্রবৃত্তিসম্পন্ন ‘পশু-মানুষে’র রূপান্তর ঘটেছে স্বচ্ছ ভাগবত জ্ঞান ও দৈবী করুনাসম্পন্ন ‘দেবতা-মানুষে’। সাম্প্রতিক কালের বিখ্যাত নাট্যকার গিরিশচন্দ্র ঘোষের কথা মনে পড়ে। পূর্বে তিনি ছিলেন ঘোর যথেচ্ছাচারী।
বিশদ

22nd  April, 2019
 স্বামীজী

মাদ্রাজের এগমোর স্টেশনে ট্রেন পৌঁছালে দেখা গেল হাজার হাজার ব্যক্তি স্বামীজীকে স্বাগত জানাবার জন্য সেখানে সমবেত হয়েছেন। তিনি মাদ্রাজে আসবেন জেনেই নগরবাসীরা তাঁর সংবর্ধনার সমুচিত ব্যবস্থায় নিরত হয়েছিল; মাদ্রাজ হাইকোর্টের বিচারপতির শ্রীযুক্ত সুব্রহ্মণ্য আয়ার প্রভৃতি সম্ভ্রান্ত ও বিশিষ্ট ব্যক্তিগণ এই কার্যের নেতৃত্ব গ্রহণ করেছিলেন এবং আয়ার মহাশয়ের সভাপতিত্বে একটি অভ্যর্থনা সমিতি গঠিত হয়েছিল। বিশদ

21st  April, 2019
কালী

কালী দর্শনের পর যখন জগতের সব কিছুতেই মাকে দেখতে শুরু করলেন, তখন সাধারণ পূজারী ব্রাহ্মণের পূজা-জপ-তপ, নানা পার্বণের উপরে উঠে শ্রীরামকৃষ্ণের কণ্ঠে কেবল রামপ্রসাদ, কমলাকান্ত ও অন্যান্য সাধকদের অনুভূতিময় সংগীত বেজে উঠল। আর সেই সংগীতের সঙ্গে সঙ্গেই মাতৃভাবে উদ্বুদ্ধ অবতারের মাতৃচিন্তায় সমাধি হতে শুরু করল।
বিশদ

20th  April, 2019
অমৃতকথা 

‘বাউল’ শব্দটি ‘বাতুল’ শব্দের অপভ্রংশ। ‘বাতুল’ শব্দ ক্রমশঃ রূপান্তরিত হয়ে ‘বাউল’ শব্দে পরিণতি প্রাপ্ত হয়েছে। ‘বাউল’ শব্দের প্রকৃত মর্মার্থ হল—বাহ্যজ্ঞান রহিত উন্মাদ। অর্থাৎ যিনি বাহ্য ইন্দ্রিয়ের চেতনাশূন্য, বিষয়বুদ্ধি রহিত ভগবৎ প্রেমে পাগল।  বিশদ

19th  April, 2019
জনগণের চৈতন্য জাগরণে শ্রীরামকৃষ্ণ—শিহোর-ফুলুই শ্যামবাজার

 কামারপুকুরের গদাধর অবতার হয়ে দেশে ফিরে এসেছেন। অবতারশক্তির প্রথম প্রকাশ হ’ল যখন শিহোরে খানাকুলের সুপ্রসিদ্ধ শাস্ত্রবিদদের সঙ্গে শাস্ত্র আলোচনায় শ্রীরামকৃষ্ণ জ্ঞানের রাশে পণ্ডিতদের স্তব্ধ করে দিলেন। এবার শুরু হল অবতার শক্তির প্লাবন।
বিশদ

18th  April, 2019
অমৃতকথা 

‘সুনীচেন’ শব্দের ব্যাখ্যায় মহাপ্রভু বলেছিলেন—
‘‘তৃণ হইতে নীচু হইয়া সবে নিক নাম।
আপনি নিরভিমানী, অন্যে দিবে মান।’’  বিশদ

17th  April, 2019
বেদান্ত 

বেদ ও উপনিষদের মর্মবাণীর মধ্যে ভারতের শাশ্বত সনাতন ধর্মের ভাবটি বিদ্যমান। এই উপনিষদ-ভিত্তিক ‘ব্রহ্মতত্ত্ব’ বা ‘আত্মতত্ত্ব’ই হল বেদের সার। এই ‘আত্মতত্ত্বে’র আলোচনামূলক গ্রন্থই ‘বেদান্ত’।
 
বিশদ

16th  April, 2019
 শ্রীরামকৃষ্ণের প্রেমে রামলালার প্রস্তর মূর্তিতে প্রাণসঞ্চার

কামারপুকুরের রঘুবীর জাগ্রত হয়ে উঠেছিলেন ক্ষুদিরামের সেবায় আর সেই রঘুবীরকে দর্শন করেছিলেন ক্ষুদিরাম পুত্র গদাধরের মধ্যে। রামরঘুবীর ও গদাই-এর একত্ব কোনদিন ছিন্ন হয়নি।
বিশদ

15th  April, 2019
শ্রীরামকৃষ্ণের কালীদর্শন

 গতানুগতিক পুরোহিত জীবনে অন্ন উপার্জনের জন্য পূজা পার্বণ, ঝামাপুকুরের রাধাকৃষ্ণ মন্দিরের নিত্যপূজা আর অগ্রজ প্রতিষ্ঠিত টোলের চালকলা বাঁধা বিদ্যা–এ সবই গদাধরের বাল্যকাল থেকে ঈশ্বরসন্ধানী মন প্রত্যাখ্যান করল।
বিশদ

14th  April, 2019
  করুণা পাথার জননী আমার

 জগৎজননী যখন সাংসারিক মায়ের মতো ধরা দেন, তখন পরিতৃপ্ত স্নিগ্ধতায় প্রাণমন জুড়িয়ে দেন। মায়ের সঙ্গে আমার জাগতিক যোগাযোগ ১৯৫৮ সন থেকে। প্রথম দর্শনেই আমি নিজেকে হারিয়ে ফেলি তাঁর কৃপা সমুদ্রে।
বিশদ

13th  April, 2019
স্বপ্ন 

নানারকমের পূর্বাভাসবহ স্বপ্ন আছে। এমন অনেক পূর্বাভাসবহ স্বপ্ন আছে যা সঙ্গে সঙ্গেই ফলে যায় অর্থাৎ আগের দিনে স্বপ্নে যা জানতে পারা যায় তা ঠিক পরের দিনে ঘটে যাবে এবং এমন অনেক পূর্বাভাসবহ স্বপ্ন আছে যা ফলতে কিছু কমবেশী সময় লেগে যায়। সময়ের অবস্থান অনুসারে এই ধরনের স্বপ্ন বিভিন্ন পরিকল্পনায় দেখতে পাওয়া যায়। 
বিশদ

11th  April, 2019
 অহঙ্কার

 মানুষকে সব সময় অহঙ্কারবর্জিত হয়ে থাকতে হবে। মহামন্যতা (superiority complex) বর্জন করতে হবে। কমপ্লেক্স মাত্রেই রোগ। সে ভীতম্মন্যতাই (fear complex) হোক, পরাজিতসুলভ মনোভাবই (defeatist complex) হোক, হীনম্মন্যতাই (inferiority complex)হোক বা মহাম্মন্যতাই (superiority complex)হোক—সমস্ত কমপ্লেক্সই এক এক ধরনের মনের রোগ।
বিশদ

10th  April, 2019
মা

জীবনের সায়াহ্নে এসে ভাবছি জীবনে কি পেলাম? ‘কি পাইনি তার হিসাব মিলাতে মন মোর নহে রাজী।’ আমি যে স্বয়ং ভগবতীর করুণাধারায় ও স্নেহাশীষে স্নাত হয়ে এ জীবনে পুষ্ট হয়ে উঠেছি, তার বেশী মনুষ্য জীবনে আর কি কাম্য থাকতে পারে?
বিশদ

09th  April, 2019
সাধন

সাধনে অন্তরায়—না, সাধনাই অন্তরায়? দুই-ই সত্য। তবে কোটির মধ্যে সম্ভবতঃ একজন সাধকই উপলব্ধি করেন যে, সাধনাই অন্তরায়। অবশিষ্ট একোনকোটি সাধক সাধনে অন্তরায় লইয়াই কোন-না-কোন সময়ে বিব্রত হন। মুনীশ্বর অষ্টাবক্র রাজা জনককে বলেছিলেন, ‘তুমি নিঃসঙ্গ নিষ্ক্রিয় স্বপ্রকাশ নিরঞ্জন—সুতরাং তুমি যে সমাধির অনুষ্ঠান করিতেছ, ইহাই তোমার অন্তরায়।’
বিশদ

08th  April, 2019
 ভাবধারা

  মনে রেখো, ‘সংগ্রামে বৈপরীত্যং’। সংগ্রাম করতে গেলে বিপরীত ভাবধারার সাহায্য নিতে হয়। মানব মনের কালিমা নষ্ট করবার জন্যে বিপরীত ভাবধারা গ্রহণ করতে হয়। কারো প্রগতি দেখে মনে ঈর্ষা জাগলে আনন্দের ভাব নিতে হয়। কারো সৎকর্ম দেখে দুঃখিত না হয়ে তাকে উৎসাহ দিতে হয়। মানসিক ক্ষেত্রেও একই কথা। বিশদ

07th  April, 2019
শ্রীশ্রী মায়ের স্বরূপ প্রকাশ 

সেবার নৈমিষারণ্যে দুর্গা পূজোয় শ্রীশ্রীমার কাছে গিয়েছিলাম। ফিরে আসার সময় মাকে বললাম—মা সংযম সপ্তাহে যেতে ইচ্ছা করে কিন্তু শারীরিক ও সাংসারিক কারণে বোধ হয় যাওয়া হবে না। মা যেন অমৃত ঢেলে দিয়ে বললেন—চেষ্টা করো।  বিশদ

06th  April, 2019
একনজরে
 নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: সম্পত্তি নিয়ে দুই ভাইয়ের মধ্যে মারপিট চলার সময় ভাইয়ের ধাক্কায় রাস্তায় পড়ে যান দাদা। যোধপুর পার্কের তালতলার একটি বেসরকারি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে সেখানেই তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করেন চিকিৎসকরা। ...

সংবাদদাতা, মালবাজার: চিতাবাঘের আতঙ্কে রাত জাগছে ধূপগুড়ি ব্লকের বানারহাটের ডুডুমারি, জ্বালাপাড়া ও আলে এই তিনটি গ্রামের বাসিন্দারা। এছাড়াও ওই তিনটি গ্রামের ছয়টি স্কুলের পড়ুয়াদের মধ্যেও ...

সংবাদদাতা, রামপুরহাট: সোমবার ভোরে সকলের নজর এড়িয়ে তারাপীঠে তারা মায়ের মন্দিরে পুজো দিলেন অভিনেতা মিঠুন চক্রবর্তী। সম্ভবত গুণগ্রাহীদের নজর এড়াতে টুপি পরে, চাদরে মুখ ...

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: চলতি লোকসভা ভোটে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় রিগিং করতে পারছেন না। জাতীয় নির্বাচন কমিশনের নিরপেক্ষ ও সুদৃঢ পদক্ষেপ দিদির রিগিং প্রক্রিয়ায় বড়সড় আঘাত হেনেছে। ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

উপার্জন বেশ ভালো হলেও ব্যয়বৃদ্ধি পাওয়ার কারণে সঞ্চয় তেমন একটা হবে না। শরীর খুব একটা ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

বিশ্ব বই দিবস
১৬১৬ -ইংরেজী সাহিত্য তথা বিশ্বসাহিত্যের প্রথম সারির নাট্যকার ও সাহিত্যিক উইলিয়াম শেক্সপীয়রের জন্ম
১৯৪১ - বিশ্বের প্রথম ই-মেইল প্রবর্তনকারী রে টমলিনসনের জন্ম
১৯৬৯: অভিনেতা মনোজ বাজপেয়ির জন্ম
১৯৯২: সত্যজিৎ রায়ের মৃত্যু

ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৬৮.৯৫ টাকা ৭০.৬৪ টাকা
পাউন্ড ৮৯.০৮ টাকা ৯২.৩৬ টাকা
ইউরো ৭৬.৯৮ টাকা ৭৯.৯৩ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৩১, ৯৯৫ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩০, ৩৫৫ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৩০, ৮১০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৩৭, ৪৫০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৩৭, ৫৫০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]
21st  April, 2019

দিন পঞ্জিকা

৯ বৈশাখ ১৪২৬, ২৩ এপ্রিল ২০১৯, মঙ্গলবার, চতুর্থী ১৪/৩৫ দিবা ১১/৪। জ্যেষ্ঠা ৩০/৫ অপঃ ৫/১৬। সূ উ ৫/১৪/২০, অ ৫/৫৫/৫৪, অমৃতযোগ দিবা ৭/৪৫ গতে ১০/১৮ মধ্যে পুনঃ ১২/৫১ গতে ২/৩২ মধ্যে পুনঃ ৩/২৩ গতে ৫/৫ মধ্যে। রাত্রি ৬/৪১ মধ্যে পুনঃ ৮/৫৬ গতে ১১/১২ মধ্যে পুনঃ ১/২৭ গতে ২/৭ মধ্যে, বারবেলা ৬/৪৯ গতে ৮/২৪ মধ্যে পুনঃ ১/১০ গতে ২/৪৫ মধ্যে, কালরাত্রি ৭/২০ গতে ৮/৪৫ মধ্যে।
৯ বৈশাখ ১৪২৬, ২৩ এপ্রিল ২০১৯, মঙ্গলবার, চতুর্থী ২০/১৭/২৩ দিবা ১/২১/৪৫। জ্যেষ্ঠানক্ষত্র ৩৫/৫৫/৫৪ রাত্রি ৭/৩৭/১০, সূ উ ৫/১৪/৪৮, অ ৫/৫৭/১২, অমৃতযোগ দিবা ৭/৪০ গতে ১০/১৫ মধ্যে ও ১২/৫১ গতে ২/৩৫ মধ্যে ও ৩/২৭ গতে ৫/১১ মধ্যে এবং রাত্রি ৬/৪৭ মধ্যে ও ৯/০ গতে ১১/১১ মধ্যে ও ১/২৩ গতে ২/৫১ মধ্যে, বারবেলা ৬/৫০/৬ গতে ৮/২৫/২৪ মধ্যে, কালবেলা ১/১১/১৮ গতে ২/৪৬/৩৬ মধ্যে, কালরাত্রি ৭/২১/৫৪ গতে ৮/৪৬/৩৬ মধ্যে।
১৭ শাবান

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
আইপিএল: সিএসকের সামনে ১৭৬ রানের টার্গেট খাড়া করল সানরাইজার্স হায়দরাবাদ  

09:37:59 PM

 আইপিএল: হায়দরাবাদ ৯১/১ (১০ ওভার)

08:50:51 PM

গুরদাসপুরে সানি দেওলকে প্রার্থী করল বিজেপি 

08:08:03 PM

টসে জিতে সানরাইজার্স হায়দরাবাদকে ব্যাট করতে পাঠাল সিএসকে 

07:36:29 PM

বিধানসভা উপনির্বাচন: দার্জিলিংয়ে গোর্খা জনমুক্তি মোর্চার প্রার্থী বিনয় তামাং 

06:06:23 PM

মনোনয়ন জমা দিলেন পূর্ব দিল্লি কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী গৌতম গম্ভীর 

06:03:24 PM