Bartaman Patrika
অমৃতকথা
 

প্রকৃতিরাজ্যের বিভিন্ন নিয়ম-শৃঙ্খলা

প্রকৃতিরাজ্যের বিভিন্ন বিভাগে শক্তির যে সব বিচিত্র পরিণাম, বিচিত্র ক্রিয়া-প্রতিক্রিয়া, বিচিত্র গতিবিধি ও কার্য্যোৎপাদন আমরা সাধারণতঃ দেখতে পাই, তার মধ্যে প্রায়শঃ আমরা নিয়ম-শৃঙ্খলার পরিচয় পাই। সব ক্ষেত্রেই শক্তির যেন সুনির্দ্দিষ্ট কর্মপদ্ধতি আছে। বিজ্ঞান এরূপ অনেক নিয়ম আবিষ্কার করেছে ও করছে। এগুলিকে আমরা প্রাকৃতিক নিয়ম বলি এবং প্রায়শঃ অখণ্ডনীয় ব’লে গণ্য করি। কিন্তু সূক্ষ্মতর অনুসন্ধানে দেখতে পাই যে, সব ক্ষেত্রেই যে শক্তি এই সব নিয়মের বন্ধন মেনে চলে তা নয়। আমাদের আবিষ্কৃত নিয়মশৃঙ্খলাকে উল্লঙ্ঘন করেও শক্তি অনেক ক্ষেত্রেই ক্রিয়া করে এবং আপনার স্বাতন্ত্র্যের পরিচয় দেয়। শক্তিকে আমরা সর্ব্বতোভাবে নিয়মাধীন বলতে পারি না। শক্তির কার্য্য দেখেই নিয়ম আবিষ্কার করি, কিন্তু বিশেষ বিশেষ ক্ষেত্রে সাধারণ নিয়মের ব্যতিক্রম ক’রেও শক্তি কার্য্য করে। শক্তির ক্রিয়ার মধ্যে স্থূল জগতে আমরা এক জাতীয় নিয়ম দেখি, সূক্ষ্ম জগতে অন্যপ্রকার; জড় জগতে একপ্রকার, জীবজগতে কখনও কখনও তার বিপরীত। সুতরাং শক্তি যে শুধু নিজের সত্তায় সত্তাবতী, তা নয়; কার্য্যজগতে আপনাকে বিচিত্রভাবে অভিব্যক্ত করার পদ্ধতি সম্বন্ধে তার নিজস্ব স্বাতন্ত্র্যও আছে—এ সিদ্ধান্ত অনিবার্য্য হ’য়ে পড়ে।
এই পরিদৃশ্যমান জগতে আমরা যে এত বিভিন্ন স্তরের, বিভিন্ন প্রকারের শক্তিপরিণাম দেখি, এত অভিনব সৃষ্টি ও আকস্মিক ধ্বংস দেখি, এত নিয়মের বাঁধন ও তার সাথে এত নিয়মের ব্যভিচার দেখি, এর মধ্যেও আমাদের বৈজ্ঞানিক দৃষ্টি একথা অস্বীকার করতে পারে না যে, দেশ কাল দ্বারা অপরিচ্ছিন্ন, অসংখ্য সৌরমণ্ডল নক্ষত্রমণ্ডল বিশিষ্ট, অশেষ জটিলতা-সমাকীর্ণ এই বিশ্বপ্রপঞ্চ একটা রহস্যময় ঐক্যসূত্রে গ্রথিত। এর একটা আভ্যন্তরীণ যোগসূত্র আছে, এর সর্ব্বাবয়বে একটা অদ্ভুত সামঞ্জস্য আছে। একটা প্রাণশক্তি যেন এই বিশাল ব্রহ্মাণ্ডকে বিধৃত ক’রে রয়েছে। এটা যেন কারো একটা বিরাট দেহ; একথাটা শুধু কবিকল্পনা মনে হয় না।
এই বিরাট বিশ্বের একটা ক্ষুদ্র অংশ আমাদের পৃথিবী। এই পৃথিবীর ক্রম-বিকাশের ইতিহাসও সাক্ষ্য দিচ্ছে যে, কি আকস্মিকভাবে সূর্য্যের একটা টুকরো খ’সে এসে একটা নির্দ্দিষ্ট কক্ষে সূর্য্যকেই প্রদক্ষিণ করতে আরম্ভ করল, কি অদ্ভুতভাবে একটা প্রচণ্ড তাপবিশিষ্ট অগ্নিগোলকের অবস্থা থেকে শক্তিপরিণামের ভিতর দিয়ে সূর্য্যের এই টুকরাটি আকাশে, বাতাসে, জলে, স্থলে, পর্ব্বতে অরণ্যে, অগ্নি, বিদ্যুদাদিতে বিভক্ত হ’য়ে এ সকলের সুন্দর সমাবেশে কালক্রমে জীববহসতির যোগ্যতা লাভ করলে, কি রহস্যময় প্রণালীতে এই জড় পিণ্ডের মধ্যে প্রাণের অভ্যুদয় হ’ল, প্রাণের মধ্যে আবার মনের বিকাশ হ’ল, মনের মধ্যে বুদ্ধির উদয় হ’ল, এবং ক্রমে এই পৃথিবী মনুষ্য সভ্যতার লীলাভূমি হ’ল। এই বিবর্ত্তনের মধ্যে কতবার কত প্রকার ভাঙ্গাগড়া হয়েছে, কত সৃষ্টি-প্রলয় ঘটেছে। বৈজ্ঞানিকদৃষ্টিতে এসবই তো শক্তিরই খেলা। প্রাণ, মন, বুদ্ধি, সবই তো এক শক্তিরই বিচিত্র রূপ। সূর্য শক্তিময়, নক্ষত্রাদি ও শক্তিময়, পৃথিবীও শক্তিময়ী। কত সৃষ্টি ও ধ্বংসের সমাবেশে কী অদ্ভুত সংগঠন!
বিজ্ঞান আমাদের সামনে যে সব তথ্য উপস্থাপিত করেছে, তা থেকে আমরা অক্লেশেই এই সিদ্ধান্তে উপনীত হতে পারি যে, এই বিশ্বপ্রপঞ্চ অশেষ বৈচিত্র্যসমাকুল ও প্রতিনিয়ত পরিবর্ত্তনশীল হ’লেও এবং প্রত্যেক ক্ষেত্রে সর্ব্বদা সৃষ্টি-স্থিতি-প্রলয়ের তাণ্ডবলীলা চললেও, এর সমস্ত অতীত, বর্তমান ভবিষ্যতের মধ্যে একটা একত্ব আছে, একটা যোগযুক্ত সংঘবদ্ধ ভাব আছে। সুতরাং নিশ্চয়ই এর একটা প্রাণকেন্দ্র অবশ্যই অনন্ত শক্তির আধার, স্বসত্তায় সত্তাবান, স্বয়ং প্রকাশ, স্বয়ং ক্রিয় ও স্বতন্ত্র। সেই প্রাণকেন্দ্র থেকেই চিরকাল অসংখ্য প্রকার শক্তি বিকীর্ণ হচ্ছে, অসংখ্য প্রকার রূপান্তরের সৃষ্টি হচ্ছে, সেই প্রাণকেন্দ্রই স্বীয় অসীম শক্তিতে বিশ্বের সকল অংশকে, সকল অঙ্গপ্রত্যঙ্গকে বিধৃত ক’রে, সংঘবদ্ধ ক’রে, যোগযুক্ত ক’রে ধ’রে রেখেছে, সেই প্রাণকেন্দ্রই বিশ্বের সকল ব্যষ্টি ও সমষ্টিসত্তার অফুরন্ত উৎস, আশ্রয় ও নিয়ামক।
মহানামব্রত ব্রহ্মচারীর ‘চণ্ডী চিন্তা’ থেকে
10th  September, 2019
  কর্মের রহস্য

 মানুষ শরীর বাক্য ও মন দ্বারা যাহা কিছু করে তাহাই কর্ম। জীবমাত্রই সকল অবস্থায় সর্বদা কোন-না-কোন কর্ম করে। ‘‘কর্মহীন হইলে শরীরযাত্রাও নির্বাহিত হয় না।’’ শারীরিক ও মানসিক ক্রিয়াই জীবনের লক্ষণ। ‘‘কর্ম না করিয়া কেহ ক্ষণকালও থাকিতে পারে না।’’
বিশদ

ঐহিক ও পারত্রিক কল্যাণ

জনসাধারণের ঐহিক ও পারত্রিক কল্যাণ কামনায় পূর্ব্বাপর মঠ মন্দির সকল প্রতিষ্ঠিত হইত। ঐ সকল মঠই আমাদের দেশের ধর্ম্ম কর্ম্ম ও শিক্ষা দীক্ষার প্রধান কেন্দ্রস্থল ছিল এবং সাধারণের [সেবায়] মঠের সিংহদ্বার সর্ব্বদাই উন্মুক্ত থাকিত। বিদ্যাদানে এক একটী মঠই ভুবনখ্যাত বিশ্ববিদ্যালয়ে পরিণত হইয়াছিল।
বিশদ

09th  September, 2019
 শিক্ষা

 নিবেদিতার প্রতি স্বামীজীর নির্দেশ ছিল—ভারতীয় মেয়েদের জাতীয়ভাবে দেশীয় ঐতিহ্য বজায় রেখেই শিক্ষা দিতে হবে। তিনি আরও স্মরণ করিয়ে দিয়েছিলেন, শ্রীরামকৃষ্ণ শুধুমাত্র নারীমুক্তির জন্য আসেননি, তিনি জনগণেরও ত্রাণকর্তা। বিশদ

08th  September, 2019
জপ

নামের যে নাদ তার মধ্যে যেমন নামী বিদ্যমান, নামের যে সত্তা তার মধ্যে আমিও স্বরূপত বিরাজমান। নামী নামের মধ্যে অবস্থান করছেন—নামের অন্তে বিরাজ করছেন—নামের আদিতে স্থিত আছেন। নামের লক্ষ্যার্থ হলেন তিনি। নাম একটি নাদ, একটি অর্থ, একটি ইঙ্গিত, একটি ভাব বহন করে—সেই নাদ, ভাব, অর্থ, ইঙ্গিত ইত্যাদি হলেন স্বয়ং তিনি।
বিশদ

07th  September, 2019
দুঃখ

 যেখানেই থাক, যে-দিকেই ফের, ভগবানের দিকে যতক্ষণ চোখ না ফেরাও ততক্ষণ দুঃখ থেকে তোমার মুক্তি নেই। তোমার ইচ্ছা ও অভিপ্রায় মতো সব কিছু করা না হলে তোমার এত দুঃখ হয় কেন? এমন কেউ কি কোথাও আছে যে সব কিছুই নিজের মনোমতো পেয়েছে, না আমি, না তুমি, না এই পৃথিবীর আর কেউ?
বিশদ

06th  September, 2019
মাতৃ পূজার মর্মকথা

 পূজার দুটি দিক—একটি বাইরের দিক, সেটি বিজ্ঞানধর্মী, অপরটি অন্তরের দিক, সেটি আত্মধর্মী। বাইরের দিক হতে পূজা একটি বিজ্ঞানসম্মত পন্থা বিশেষ। অন্তরের দিক হতে পূজা একটি আত্মধর্মী প্রেমপূর্ণ সমর্পণ বিশেষ। ইহা কেবল মহাশক্তির নিকট পৌঁছাবার পথমাত্র নয়, মাতৃঅঙ্কে আরোহণ ক’রে মাতৃত্বের স্নিগ্ধতার আনন্দে পূর্ণ হওয়াও পূজার ফল।
বিশদ

05th  September, 2019
ধর্ম ও দর্শন

ধর্মের যথার্থ সংস্কৃত শব্দ ‘দর্শন’। এই ‘দর্শন’ শব্দটির দুটি অর্থ আছে। এর অর্থ দর্শন বা অনুভূতি—যে পথে অনুভূতি লাভ করা যায়, সাধনা এর আর একটি অর্থ। ধর্ম বলতে এদের উভয়কেই বুঝতে হবে। ‘দর্শনের’ অর্থ আবার দর্শনশাস্ত্রও হতে পারে। হিন্দুধর্মে যে ছয় প্রকার দর্শনশাস্ত্র আছে তাদেরও ‘দর্শন’ বলা হয়ে থাকে। হিন্দুধর্মে ধর্ম ও দর্শন একই অর্থে প্রযুক্ত হয়।
বিশদ

04th  September, 2019
ধন 

ভূগর্ভে রক্ষিত ধনরত্নাদি পাইতে হইলে প্রথমে যেমন যে ব্যক্তি উহার সন্ধান জানেন তাঁহার উপদেশপ্রাপ্তির এবং পরে ভূমিখননের, ধনের উপর স্থাপিত প্রস্তরাদির অপসারণের এবং ধনাদি স্বয়ং গ্রহণের প্রয়োজন হয়, কেবল শব্দ করিলে অর্থাৎ ‘ধন, তুমি এস’ বলিয়া ডাকিলে ধনলাভ হয় না, সেইরূপ মায়ানির্মুক্ত নিজের শুদ্ধ স্বরূপ অবগত হইতে হইলে ব্রহ্মজ্ঞ পুরুষের নিকট উপদেশপ্রাপ্তির পর মনন-ধ্যানাদির প্রয়োজন হয়। 
বিশদ

03rd  September, 2019
প্রলাপ না সত্য

একটি গল্প আছে যে, পঞ্চাশ বৎসর পূর্বে ভূকৈলাসের রাজারা আবাদের নিমিত্ত মাটি খনন করিতে-করিতে, মাটির নীচে সমাধিস্থ একজন মহাপুরুষকে পান। মহাপুরুষকে ভূকৈলাসে আনিয়া, সমাধিভঙ্গের নানাবিধ চেষ্টা হয়, কিন্তু কিছুদিন কোনোরূপে সমাধিভঙ্গ হইল না।  বিশদ

02nd  September, 2019
ভগবান 

ভগবান লাভ করতে হলে সাধকের চাই:—(১) ধৈর্য্য। (২) অধ্যবসায়। (৩) দেহ ও মনের পবিত্রতা। (৪) তীব্র আকাঙ্ক্ষা বা ব্যাকুলতা। (৫) ষট্‌ সম্পৎ অর্থাৎ শম (অন্তঃকরণের স্থিরতা), দম (ইন্দ্রিয়নিগ্রহ), উপরতি (বিষয়ে আসক্তি-ত্যাগ), তিতিক্ষা (সকল প্রকার দুঃখে অবিচলিত থাকা), শ্রদ্ধা (গুরু ও শাস্ত্রবাক্যে বিশ্বাস) ও সমাধান (ইষ্টে চিত্তস্থাপন)। 
বিশদ

01st  September, 2019
 আত্মভোলা বাঙালী জাতি

বাংলার বিশেষ সম্পৎ শক্তির উপাসনা। গৌড়ীয়া-বিদ্যা তন্ত্রের আর এক নাম। বর্ত্তমানে তন্ত্রবিষয়ে গবেষণা বা আলোচনা নাই বলিলেই হয়। আত্মভোলা বাঙালী জাতি নিজ সম্পদ্‌ সম্বন্ধে যদিও একেবারে উদাসীন, তাহা সত্ত্বেও তন্ত্রের সাধনার ধারা একেবারে মৃত নহে।
বিশদ

31st  August, 2019
নিবেদিতার শিক্ষাকার্যের সূচনা

বহু বিঘ্ন অতিক্রম করিয়া, বহু সমস্যা সম্মুখে রাখিয়া কর্মক্ষেত্রে নিবেদিতার প্রথম পদক্ষেপ। ১৮৯৮ খৃষ্টাব্দের ১৩ই নভেম্বর নিবেদিতা প্রথম বাগবাজার পল্লীতে ১৬ নং বোসপাড়া লেনে তাঁহার বিদ্যালয়ে শিক্ষাকার্যের সূচনা করিলেন। বিদ্যালয়ের জন্য অর্থসংগ্রহ, ছাত্রীসংগ্রহ, বিদ্যালয় পরিচালনা প্রভৃতি প্রতিটি কার্য নিবেদিতা একাকী সম্পন্ন করিতেন।
বিশদ

30th  August, 2019
রামকৃষ্ণের মহাকাব্য: জীবনের ধ্রুবতারা

ঈশ্বর সম্বন্ধে যেরূপ মতভেদ, এরূপ মতভেদ বোধহয় আর কোনো বিষয়ে নয়। ঈশ্বর আছেন কিনা, তিনি সাকার বা নিরাকার এবং কোন্‌ সাকার মূর্তি তাঁহার স্বরূপ-মূর্তি, অজ্ঞানবশতঃ ইহা লইয়া বাদানুবাদ নিয়তই চলিতেছে। ম্যাকস্‌মুলার বলেন যে, প্রধানত আট প্রকার ধর্ম প্রচলিত আছে।
বিশদ

29th  August, 2019
গিরিশ ঘোষ

 “শ্রীরামকৃষ্ণের সকল ভক্তের মধ্যে...একজনের প্রতি সহানুভূতি আমি বিশেষভাবে অনুভব করেছি; তাঁর বিষয়ে পড়ামাত্র তাঁকে আমি পছন্দ করে ফেলেছি; তিনি আমাকে গভীর আশ্বাস ও প্রেরণা দিয়েছেন—গিরিশচন্দ্র ঘোষ। কয়েকদিন আগে এক রাত্রে [ইশারউড তখন কলকাতায়] স্টার থিয়েটার তীর্থযাত্রা করেছিলাম। বিশদ

28th  August, 2019
বিধিব্যবস্থার মূল কথা

মানুষের কাছে যে আচরণ তোমরা প্রত্যাশা কর, সেরূপ আচরণ তোমরা অপরের প্রতি করবে। এই হল বিধিব্যবস্থার মূল কথা। যীশু এখানে সকল ধর্মের সার্বজনীন তত্ত্বের উপদেশ দিয়েছেন। এই হচ্ছে সনাতন রীতি এবং মনুষ্যসমাজে আচরণবিধি নিয়ামক। মহাভারতে অনুরূপ উপদেশের উল্লেখ আছে: ‘‘নিজের প্রতি যেমন ব্যবহার আশা কর অপরের প্রতি তেমন ব্যবহার করবে।’’
বিশদ

27th  August, 2019
জীবন-শৃঙ্খল

 সারা জগৎ মুক্তির জন্য উদ্‌গ্রীব, অথচ প্রত্যেক জীব তার শৃঙ্খলকেই ভালবাসে। এই হল আমাদের স্বভাবের প্রথম প্রহেলিকা ও দুর্ভেদ্য গ্রন্থি। জন্মের বন্ধন মানুষ ভালবাসে, তাই ত জন্মের দোসর মৃত্যুর বন্ধনে সে আবদ্ধ। এই যাবতীয় শৃঙ্খলের মধ্যে থেকেই সে তার সত্তার মুক্তি, তার আত্মপরিপূর্ণতার ঈশ্বরত্ব আকাঙ্ক্ষা করে। বিশদ

25th  August, 2019
একনজরে
ইসলামাবাদ, ১০ সেপ্টেম্বর (পিটিআই): আল-আজিজিয়া দুর্নীতি মামলায় প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফের আবেদনের শুনানির জন্য দুই সদস্যের বেঞ্চ গঠন করল ইসলামাবাদ হাইকোর্ট। পাক সংবাদপত্র ‘ডন’-এর দাবি, বিচারপতি আমির ফারুক এবং বিচারপতি মহসিন আখতার কিয়ানির ওই বেঞ্চে ১৮ সেপ্টেম্বর থেকে শুনানি শুরু ...

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: মঙ্গলবার ছিল মহরম। তাই সোমবার সন্ধ্যাতেই রেফারি দীপু রায়ের রিপোর্ট চেয়ে পাঠান আইএফএ সচিব। তিনি সাড়ে দশটা পর্যন্ত ছিল দপ্তরে। পুলিসের গাড়িতে ...

বিএনএ, সিউড়ি ও সংবাদদাতা, শান্তিনিকেতন: নানুরে নিহত বিজেপি কর্মী স্বরূপ গড়াইয়ের মৃতদেহ নেওয়া নিয়ে মঙ্গলবার দিনভর টানাপোড়েন চলল। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় বোলপুর মহকুমা হাসপাতালের মর্গ থেকে ...

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: জেএমবির অন্যতম বড় মাথা আসাদুল্লাহকে গ্রেপ্তার করল কলকাতা পুলিসের স্পেশাল টাস্ক ফোর্স (এসটিএফ)। মঙ্গলবার ভোররাতে চেন্নাইয়ের একটি বাড়ি থেকে ধরা হয়েছে তাকে। ভুয়ো পরিচয় দিয়ে সে এখানে বাড়ি ভাড়া নিয়েছিল। তার কাছ থেকে মিলেছে একটি মোবাইল ফোন, ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

ঝগড়া এড়িয়ে চলার প্রয়োজন। শরীর স্বাস্থ্য বিষয়ে অহেতুক চিন্তা করা নিষ্প্রয়োজন। আজ আশাহত হবেন না ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৮৬২- মার্কিন ছোট গল্পকার ও হেনরির জন্ম
১৮৯৩- শিকাগোর ধর্ম সম্মেলনে স্বামী বিবেকানন্দ ঐতিহাসিক বক্তৃতা করেন
১৯০৮- বিপ্লবী বিনয় বসুর জন্ম
১৯১১- ক্রিকেটার লালা অমরনাথের জন্ম
২০০১- নিউ ইয়র্কের ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারে এবং পেন্টাগনে বিমান হানায় অন্তত ৩ হাজার মানুষের মৃত্যু





ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭০.৮৪ টাকা ৭২.৫৪ টাকা
পাউন্ড ৮৬.৪২ টাকা ৮৯.৫৯ টাকা
ইউরো ৭৭.৫৭ টাকা ৮০.৫২ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
10th  September, 2019
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৩৮,৭০০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩৬,৭১৫ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৩৭,২৬৫ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৪৭,০০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৪৭,১০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

২৫ ভাদ্র ১৪২৬, ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, বুধবার, ত্রয়োদশী ৫৯/১৩ শেষ রাত্রি ৫/৭। শ্রবণা ২১/২৫ দিবা ১/৫৯। সূ উ ৫/২৫/৩১, অ ৫/৪১/৩৮, অমৃতযোগ দিবা ৭/৪ মধ্যে পুনঃ ৯/৩০ গতে ১১/৮ মধ্যে পুনঃ ৩/১৩ গতে ৪/৫১ মধ্যে। রাত্রি ৬/২৮ মধ্যে পুনঃ ৮/৪৯ মধ্যে পুনঃ ১/৩১ গতে উদয়াবধি, বারবেলা ৮/২৯ গতে ১০/১ মধ্যে পুনঃ ১১/৩৩ গতে ১/৫ মধ্যে, কালরাত্রি ২/৩০ গতে ৩/৫৮ মধ্যে।
২৪ ভাদ্র ১৪২৬, ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৯, বুধবার, ত্রয়োদশী ৫৮/৩৭/১১শেষরাত্রি ৪/৫১/৫৭। শ্রবণা নক্ষত্র ২৪/৫৬/২৬ দিবা ৩/২৩/৩৯, সূ উ ৫/২৫/৫, অ ৫/৪৩/৪৫, অমৃতযোগ দিবা ৭/২ মধ্যে ও ৯/৩১ গতে ১১/১০ মধ্যে ও ৩/১৮ গতে ৪/৫৭ মধ্যে এবং রাত্রি ৬/৩৩ গতে ৮/৫৩ মধ্যে ও ১/৩১ গতে ৫/২৫ মধ্যে, বারবেলা ১১/৩৪/২৫ গতে ১/৬/৪৫ মধ্যে, কালবেলা ৮/২৯/৪৫ গতে ১০/২/৫ মধ্যে, কালরাত্রি ২/২৯/৪৫ গতে ৩/৫৭/২৫ মধ্যে। 
 ১১ মহরম

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
রাজ্যে এখনই চালু হচ্ছে না নয়া মোটর ভেইকেলস আইন 
রাজ্যে এখনই চালু হচ্ছে না নয়া মোটর ভেইকেলস আইন। আজ ...বিশদ

06:41:55 PM

এবার রেল স্টেশনেও নিষিদ্ধ হচ্ছে প্লাস্টিক
এবার একবার ব্যবহারযোগ্য প্লাস্টিক নিয়ে আর প্রবেশ করা যাবে না ...বিশদ

04:56:20 PM

কৈখালিতে গাড়ির ধাক্কায় মৃত যুবক 

04:17:00 PM

কলেজে ভর্তিতে দুর্নীতি রুখতে জেলায় সাহায্য কেন্দ্র খুলবে সরকার 
ভর্তি প্রক্রিয়া বেশ কিছু বছর ধরে অনলাইনেই চলছে। তবুও দুর্নীতি ...বিশদ

03:56:24 PM

দিদিকে বলো কর্মসূচিতে গিয়ে বিক্ষোভের মুখে ইংলিশবাজার পুরসভার ভাইস চেয়ারম্যান 

03:32:00 PM

তমলুকে মহিলা আইনজীবীর অস্বাভাবিক মৃত্যু, আটক স্বামী
তমলুকে মহিলা আইনজীবীর অস্বাভাবিক মৃত্যু। মৃতার নাম প্রিয়াঙ্কা কাণ্ডার সরকার(২৪)। ...বিশদ

03:05:44 PM