Bartaman Patrika
বিশেষ নিবন্ধ
 

ওয়াটার মার্কেট
সমৃদ্ধ দত্ত

বিহারের গয়া জেলার কাপাসিয়া ব্লকের গুলাড়িয়া চক গ্রামের গনৌরি কুমার আর মুসাফির মাঝি পার্লামেন্ট স্ট্রিটে দাঁড়িয়ে এক পুলিস কর্মীকে বললেন, তোমাদের এখানে যমুনা নদীটা দেখতে যাব কীভাবে? কেন? না, মানে, কেমন জল আছে একবার দেখতাম! আবার কবে আসা হবে তা তো জানি না। এরপর যখন আসব যদি শুকিয়ে যায়! পুলিস কর্মী হাসলেন। বলে দিলেন কীভাবে যেতে হবে। গনৌরি আর মুসাফির মাঝি গ্রাম ছেড়ে এখানে কেন? এসেছিলেন এই সেদিন হয়ে যাওয়া কৃষক বিক্ষোভে। দিল্লির কেন্দ্রস্থলে ছিল জমায়েত। নিজের বাড়ি আছে? জমি আছে? জানতে চাওয়ায় মুসাফির মাঝি বললেন, এই যে শরীরটা দেখছো শুধু এটাই আছে। আর কিছু নেই। ২০ বছর আগে যে জমিতে বসেছিলাম আজও তার পাট্টা দেয়নি। থাকার বলতে ছিল মোহানা নদী। গ্রামের পাশ থেকেই গিয়েছে। সেই নদীর জল বাড়িতে নিয়ে এসে কাজ সারতাম। কিন্তু কয়েক বছর ধরে সেই নদীর জল আর থাকে না। গরমে তো নয়ই। বর্ষাতেও না। নদীর জল যায় কোথায়?
১৮ বছরের দুর্গম কল্যাণী দেখত তার বাবা লাগাতার কাঁদছেন। ধান আর তুলো চাষ করলেও সেগুলি রাখা যাচ্ছে না। কারণ সেচের জল নেই। বোরওয়েলের জল শুকিয়ে গিয়েছে। ট্যাঙ্কারের জলের যা রেট তা দেওয়া অসম্ভব বাবা বেঙ্কা‌ইয়ার পক্ষে। তেলেঙ্গানার জয়শঙ্কর ভূপালাপল্লির বেঙ্কাইয়া গত অক্টোবরে স্রেফ ফসলের খেতে জল না পেয়ে ফসল রক্ষা করতে না পারায় দেনার দায়ে ডুবে গিয়ে কীটনাশক খেয়ে আত্মহত্যা করেন। গত বৃহস্পতিবার পার্লামেন্ট স্ট্রিটে গোটা দেশ থেকে আসা কৃষকদের মধ্যে ছিল এই কল্যাণী। তার গলায় বাবার ছবি ঝোলানো ছিল। সে বলছিল, জল না পেলে আমরা সবা‌ই মরে যাব। ঋণ মকুব নয়, মিনিমাম সাপোর্ট প্রাইস নয়, ভর্তুকি নয়। জল চাইছে চাষিরা।
নালগোন্ডা জেলার উরসু কবিতা স্বামীকে খাবার দিতে গিয়ে গত ২৩ সেপ্টেম্বর দেখেছিলেন তার আগেই স্বামী খেয়ে নিয়েছেন। পেস্টিসাইড। এখন উরসু কবিতা তাঁর স্বামীর ঋণ শোধ করতে সকাল ৬টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত ফসলের খেতে মজুরি করেন। তারপর বাড়ি ফেরেন না। গ্রামের বাইরে একটা সেলাই ইউনিটে গিয়ে তিন ঘণ্টার একটা শিফট করেন। কবিতার শ্বশুর ঠিক একইভাবে ৮ বছর আগে আত্মহত্যা করেছিলেন। কারণ কী? যথেষ্ট ফসল ফলানোর জন্য জল নেই। ফসলের দামও নেই। কারণ জলের দাম প্রচুর দিতে হয়। খরা নয়, অনাবৃষ্টি নয়। ভারতের কৃষকদের সবথেকে সঙ্কট হল গ্রামের জল অবাধে ট্রান্সফার হয়ে যাচ্ছে শহরে। বারাণসী, জয়পুর, কেরল, তামিলনাড়ু, অন্ধ্রপ্রদেশে লাগাতার যে আন্দোলনটি হয়ে চলেছে গ্রামে গ্রামে সেটি হল বিশ্বের সবথেকে নামজাদা দুটি আমেরিকান সফট ড্রিংকস কোম্পানি ভারতের রাজ্যে রাজ্যে অবাধে মাটির ভেতর থেকে জল নিয়ে নিচ্ছে নিজেদের প্রোডাকশন ইউনিটে। সবথেকে বিস্ময়কর কথা হল ক্যালিফোর্নিয়া সহ বহু প্রদেশে এই কোম্পানিগুলিকে মাটি খুঁড়ে জল নিতে দেওয়া হয় না। নিষিদ্ধ। তাই ওইসব কোম্পানির সবথেকে বেশি সংখ্যক প্রোডাকশন ইউনিট ভারতে। কয়েকবছর আগে থানে জেলায় আদিবাসীদের গ্রামগুলি থেকে এর প্রতিবাদে আন্দোলন করে আদিবাসীরা। মহারাষ্ট্র সরকার সেই সময় দুর্দান্ত মজা করেছিল। ওই সংস্থাগুলিকে সম্পূর্ণ বিনামূল্যে ভারতের মাটির জল নিতে দেওয়া যাবে না বলে হুমকি দিয়ে ২৫ পয়সা লিটার প্রতি চার্জ করেছিল! আর চন্দ্রবাবু নাইডু অন্ধ্রপ্রদেশে আরও ইন্টারেস্টিং কাজ করেছেন। তিনি নিজেই সরকারি উদ্যোগে গোটা রাজ্যজুড়ে মাটি থেকে জল সংগ্রহ করে সরকারি খরচে ট্রিটমেন্ট করে ২৫ পয়সা লিটারে ওইসব সংস্থার কাছে জল বিক্রি করেছিলেন। যা তারা বাজারে বিক্রি করত ২০ টাকা লিটার।
ভারতে একদিকে চাষের জন্য জল কমছে। পানীয় জল কিংবা বাড়িতে ব্যবহারের জন্য জল কমছে। কিন্তু একইসঙ্গে কোন ইন্ডাস্ট্রি সবথেকে দ্রুতহারে বাড়ছে? বটলট ওয়াটার ইন্ডাস্ট্রি। অর্থাৎ মিনারেল ওয়াটারের বোতলের ব্যবসা। প্রতি বছর যেখানে মোবাইল থেকে সফটঅয়্যার, অটোমোবাইল থেকে ইলেকট্রনিক্স সমস্ত সেক্টর চরম লোকসান করছে, সেখানে ভারতে প্রতিদিন লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে বটলড ওয়াটার শিল্প। অফিসিয়ালি অর্থাৎ লাই঩সেন্সপ্রাপ্ত বটলড মিনারেল ওয়াটার কোম্পানি ভারতে কত? ৫৭৩৫ লাইসেন্সড ব্র্যান্ড। আর লাইসেন্সহীন? শুধু দিল্লি, গুরগাঁও, নয়ডাতেই সাড়ে ৩ হাজার লাইসেন্সহীন পানীয় জলের বোতল কোম্পানি। তার মানে বোঝাই যাচ্ছে গোটা দেশে কত! যেখানে সর্বত্র জলের জন্য হাহাকার সেখানে এই বটলড ওয়াটার ইন্ডাস্ট্রি এত জল পাচ্ছে কীভাবে? এটা সরকারগুলির জবাব দেওয়া উচিত নয়? এই যে জলের জন্য দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে কখনও নাসিক থেকে মুম্বই, কখনও দিল্লিতে না খেয়ে না থেমে পদযাত্রা করছেন কৃষকরা তাঁদের ভালো ভালো কথা শুনিয়ে আর কতদিন ফাঁকি দেওয়া হবে? এখন রাস্তায়, হোটেলে আমরা খুব বেশি কোম্পানির নাম ফলো করি না যে কোন কোম্পানির বোতলের জল দেওয়া হল। আমরা ২০ টাকা দিয়ে বোতলটা নিয়ে নিই। ইউরোমনিটর সংস্থার সমীক্ষা জানাচ্ছে, গত বছর এই সেক্টর ১৩ হাজার কোটি টাকার ব্যবসা করেছে। সফট ড্রিংকসের তুলনায় দ্বিগুণ ব্যবসা এখন বটলড ওয়াটারের। তাই সফট ড্রিংকস সংস্থাগুলি বেশি বেশি ইনভেস্ট করছে বটলড ওয়াটারে। ভারতের গ্রামগঞ্জের মাটি খুঁড়ে জলস্তর ধ্বংস করে জল চুরি করে নিয়ে আবার সেই ভারতবাসীর কাছেই সেই জল বোতলে বিক্রি করা হচ্ছে চড়াদামে। লো ইনভেস্ট হাই প্রফিট! তাই বছরে গড়ে ২০ শতাংশ করে বাড়ছে এই ইন্ডাস্ট্রি। এক লিটার বোতলভর্তি জল তৈরি করতে যে জল তোলা হয়, তার ৬৬ শতাংশ মাত্র ব্যবহার করা যায়। বাকিটা প্রসেসিংয়ের সময় নষ্ট হয়। আমাদের প্রতিটি সরকার যদি বিশুদ্ধ পানীয় জল দেওয়ার ব্যবস্থা করত তাহলে কী এইসব ইন্ডাস্ট্রি এত রমরম করে বেড়ে যেত?
ভারতজুড়ে জলের ক্রাইসিস ঘটিয়ে তিনটি প্রধান ইন্ডাস্ট্রি তথা ব্যবসাক্ষেত্রে প্রবেশ করেছে গোটা দেশবিদেশের রাজনীতি, কর্পোরেট আর মাফিয়া গোষ্ঠী। সেটি হল বোরওয়েল ইন্ডাস্ট্রি , ওয়াটার ট্যাঙ্কার আর ক্যাশ ক্রপ ইন্ডাস্ট্রি। জোয়ার, বজরা গম ছেড়ে আজকাল সর্বত্র বাদাম কিংবা আখের চাষ করার জন্য চাষিদের বেশি বেশি প্ররোচনা ও লোন দেওয়া হয়। এক একরে আখের চাষে দরকার বছরে ১৮০ লক্ষ লিটার জল। সেখানে খাদ্যশস্য ফলনে দরকার মাত্র ১৮ লক্ষ লিটার জল। আখে লাভ বেশি কর্পোরেটের। কারণ চিনি শুধু নয়, বিয়ার তৈরিতে কাজে লাগে আখ। তাই ধানগমের থেকে আখ, বাদাম ভালো।
তামিলনাড়ুর নালাক্কাল জেলার তিরুচেনগোড় শহরের প্রায় সকলেই একটি ব্যবসায় যুক্ত। বোরওয়েল। বোরওয়েল খননের জন্য যে রিগস ট্রাক তৈরি কিংবা মেরামতি হয় সেটা গোটা দেশের মধ্যে সবথেকে বেশি এই শহরে। ঝাড়খণ্ড থেকে অন্ধ্রপ্রদেশ। জম্মু থেকে মিজোরাম। তিরুচেনগোড় থেকে হাজার হাজার বোরওয়েল খননের রিগস ট্রাক যাচ্ছে। আর তাই এখন গোটা দেশের লেবার ফোর্সের একটি বড় অংশ যায় ওই শহরে। ২০০ টাকা প্রতি দিনের মজুরি। তিনবার খাওয়া। এটাই স্ট্যান্ডার্ড। মাটি খোঁড়ার কাজ বাড়ছে। গোটা দেশ থেকে লেবার বাড়ছে। কারণ একমাত্র এই সেক্টরে সারা বছর কাজ পাওয়া যাচ্ছে। তাই মজুরিও কমছে। এবং ট্যাঙ্কার। প্রতিটি শহরে হাজার হাজার ট্যাঙ্কার। শহরের বাইরে গিয়ে সরকারি দপ্তরকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে বোরওয়েল বসিয়ে মাটির জল তুলে নিচ্ছে। এই ট্যাঙ্কার ইন্ডাস্ট্রি সম্পূর্ণ পরিচালনা করে মাফিয়া গোষ্ঠী। আর সেইসব জলের সিংহভাগ সাপ্লাই হচ্ছে সবথেকে বেশি দেশজুড়ে নির্মীয়মান কনস্ট্রাকশন শিল্পে। অর্থাৎ রিয়াল এস্টেট। গ্রামের জল যাচ্ছে শহরে। বোরওয়েল বসছে যত্রতত্র। এখানে একটি সুন্দর চক্র কাজ করছে। গ্রামে জল নেই। তাই চাষ নেই। তাই খেতমজুরির কাজ নেই। তাই গ্রামবাসীরা দলে দলে এসে ঠিক সেইসব বটলড ওয়াটার সেক্টরে, সেইসব সফট ড্রিংকস সেক্টরে, সেইসব সুইমিং পুল সহ হাউজিং কমপ্লেক্সগুলির কনস্ট্রাকশন সেক্টরে চলে যাচ্ছে কাজ করতে।
বস্তুত আমাদের আড়ালে ভারতে তৈরি হয়েছে নতুন এক ইকনমি। ওয়াটার ইকনমি। মাটির থেকে সব জল দিনেদুপুরে রোজ ডাকাতি হয়ে যাচ্ছে। চাষ জল পাচ্ছে না। গ্রাম জল পাচ্ছে না। বস্তি জল পাচ্ছে না। মধ্যবিত্ত জল পাচ্ছে না। নীতি আয়োগ সম্প্রতি একটি রিপোর্ট প্রকাশ করে বলেছে, আসছে জলদুর্ভিক্ষ! আগামীদিনে পর্যাপ্ত জল পাবে শুধু ধনী সমাজ।
আইপিএল ক্রিকেট ম্যাচে ফিল্ড ওয়েট করা, টয়লেট, মেনটেন্যান্সে সব মিলিয়ে কত জল দরকার? বম্বে হাইকোর্টে বিসিসিআই তথ্য জমা দিয়ে জানিয়েছে, সাড়ে তিন লক্ষ লিটার জল খরচ হয়! শুধু একটিমাত্র আইপিএল ম্যাচে!
07th  December, 2018
দক্ষ ম‌্যানেজারদের চাই, নিছক চৌকিদারদের নয় 
পি চিদম্বরম

পি চিদম্বরম: চৌকিদার হওয়াটা সম্মানের কাজ যেটা অনেক শতাব্দী ধরে চলে আসছে। চৌকিদার বা ওয়াচম‌্যানদের পাওয়া গিয়েছে সমস্ত গোষ্ঠী-সম্প্রদায় এবং পরিবেশ-পটভূমি থেকে। তাঁরা ছিলেন কিছু ব‌্যক্তি এবং তাঁদের কাজটি ছিল নিয়মমাফিক। আবাসন থেকে বাণিজ‌্য কেন্দ্র প্রভৃতি নানা স্থানে বেসরকারি উদ‌্যোগে নিরাপত্তারক্ষী নিয়োগের একটি সংগঠিত ব‌্যবসার জন্ম দিয়েছে উদারীকরণ নীতি।  বিশদ

 লোকসভা ২০১৯: প্রার্থী বাছতেই
হিমশিম, মমতাকে রুখবেন কীভাবে!
শুভা দত্ত

 দোল শেষ। তবে, রাজ্যজুড়ে রঙের উৎসবের আমেজ এখনও যথেষ্টই রয়েছে। পথেঘাটে মানুষের শরীরে মনে তার ছাপ এখনও স্পষ্ট। এবার দোলে গরম তেমন অসহনীয় ছিল না। বৃষ্টিও হয়নি। বরং, শুক্রবার হোলির বিকেলে কালবৈশাখী এসে যেটুকু ভ্যাপসা গরম জমে ছিল তাও ধুয়েমুছে নিয়ে গেছে।
বিশদ

24th  March, 2019
কংগ্রেস-সিপিএম জোট যেন
সান্ধ্য মেগা সিরিয়াল!
মৃণালকান্তি দাস

শত্রু চিহ্নিত হয়েছিল বছরখানেক আগেই। কেন্দ্রে বিজেপি, রাজ্যে তৃণমূল। সেই শত্রুকে বধ করতে কংগ্রেসের সঙ্গে হাতে হাত ধরে লড়াইয়ের ময়দানে থাকতে হবে, সেই বার্তাও দেওয়া হচ্ছিল বহুদিন ধরে। সূর্যকান্ত মিশ্র থেকে সুজন চক্রবর্তী, অধীর চৌধুরি থেকে আব্দুল মান্নান—যাঁদের জোট চর্চার সঙ্গে শত্রু-বিরোধী গরম গরম ভাষণও শোনা গিয়েছিল অনেক। কিন্তু লোকসভা ভোটের আগেই অশ্বডিম্ব প্রসব করে চূড়ান্ত হাস্যস্পদে পরিণত হয়েছে দুই দল।
বিশদ

24th  March, 2019
ধর্মের বেশে ভোটব্যাঙ্ক!
শান্তনু দত্তগুপ্ত

 

দুপুর গড়িয়ে বিকেলের পথে। তারিখটা ২৭ মে, ১৯৬৪। দিল্লির রাজপথে কালো মাথার ভিড়ে তিল ধারণের জায়গা নেই। আর ভিড়ের বেশিরভাগেরই গতিমুখ তিনমূর্তি ভবনের দিকে। সেখানে শায়িত জওহরলাল নেহরু। শেষযাত্রায় প্রধানমন্ত্রীকে শ্রদ্ধা জানাতে হাজির গ্র্যানভিল অস্টিনও। মার্কিন ছাত্র। থিসিস লিখছেন ভারতের সংবিধানের উপর। তাই আগ্রহটা বাকিদের থেকে একটু বেশিই।  
বিশদ

23rd  March, 2019
পরিবেশ নিরুদ্দেশ 
রঞ্জন সেন

খবরের কাগজে দেখলাম, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি জানিয়েছেন, সন্ত্রাস ও জলবায়ু পরিবর্তন মানব সভ্যতার সামনে বড় বিপদ। বাতাসে কার্বন নিঃসরণ বাড়ে এমন কোনও কাজ তিনি করেন না। কার্বন নিঃসরণের বিপদ সম্পর্কে প্রধানমন্ত্রীর এমন সতর্কতা খুব ভালো লাগল।  
বিশদ

23rd  March, 2019
এবারের লোকসভা নির্বাচনে বাংলার
বামফ্রন্ট এবং তার প্রার্থীতালিকা
শুভময় মৈত্র

এ দেশে বামপন্থার ইতিহাস আজকের নয়। প্রায় একশো বছর আগে ১৯২৫ সালের বড়দিনের ঠিক পরের তারিখেই কানপুরে কমিউনিস্ট পার্টি অফ ইন্ডিয়ার (সিপিআই) প্রতিষ্ঠা হয়েছিল বলে শোনা যায়। সিপিএমের আবার অন্য তত্ত্বও আছে। তাদের একাংশের মতে ১৯২০ সালের ১৭ অক্টোবর তাসখন্দে ভারতের কমিউনিস্ট পার্টির পথ চলা শুরু।
বিশদ

21st  March, 2019
গত বিধানসভার ফল রাজ্যে এবারের লোকসভার ভোটে কী ইঙ্গিত রাখছে?
বিশ্বনাথ চক্রবর্তী
 

২০১৯-এর লোকসভা নির্বাচনকে সামনে রেখে বেশ কয়েক মাস ধরে চলছে জনমত সমীক্ষার কাজ। ভারতের মতো বৃহৎ গণতান্ত্রিক দেশে যেখানে ৯০ কোটি ভোটার রয়েছেন সেখানে এই বিপুল সংখ্যক মানুষের মনের খোঁজ পাওয়া সমীক্ষকদের পক্ষে কতটুকু সম্ভব তা নিয়ে বিস্তর বিতর্ক রয়েছে—বিশেষ করে ৯০ কোটি ভোটার যেখানে জাত, ধর্ম, অঞ্চলে বিভক্ত।  
বিশদ

19th  March, 2019
মোদিজির বালাকোট স্বপ্ন 

পি চিদম্বরম: গত ১০ মার্চ, রবিবার নির্বাচন কমিশন রণতূর্য বাজিয়ে দিল। সরকারকে শেষবারের মতো ‘ফেভার’ও করল তারা। নির্বাচন ঘোষণাটিকে সাধারণ মানুষ মুক্তির শ্বাসের মতো গ্রহণ করল: আর ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপনের ঘটা নেই, আর অর্ডিন‌্যান্স নেই এবং নেই কিছু নড়বড়ে সরকারি স্কিমের বেপরোয়া সূচনা।  বিশদ

18th  March, 2019
আধাসেনা নামিয়ে কি ভোটযুদ্ধে
মমতাকে ঘায়েল করা যাবে?

শুভা দত্ত 

রাজ্যে ভোটের হাওয়া গরম হচ্ছে। জেলায় জেলায় শাসক এবং বিরোধী—দুই শিবিরের প্রচারও একটু একটু করে গতি পাচ্ছে। মন্দিরে পুজো দিয়ে প্রার্থীদের অনেকেই নেমে পড়েছেন জনসংযোগে। দেওয়াল লেখাও চলছে জোরকদমে। ভোটপ্রার্থীদের সমর্থনে পোস্টার ব্যানার দলীয় পতাকাও দেখা দিতে শুরু করেছে চারপাশে।  
বিশদ

17th  March, 2019
তীব্র জলসঙ্কট হয় মানুষের কারণে
খেসারত দিতে হবে মানুষকেই 
মৃন্ময় চন্দ

নদী বিক্রি? আজব কথা, তাও কি হয় সত্যি? ছত্তিশগড় তখনও নয় স্বয়ংসম্পূর্ণ রাজ্য, কুলকুল করে বয়ে চলেছে ‘শেওনাথ’ নদী। ১৯৯৮ সালে মধ্যপ্রদেশ সরকার ২৩ কিমি দীর্ঘ ‘শেওনাথ’ নদীটিকে ৩০ বছরের লিজে হস্তান্তর করল স্থানীয় এক ব্যবসায়ীর কাছে।  বিশদ

16th  March, 2019
সংরক্ষণের রাজনীতি, রাজনীতির সংরক্ষণ 
রঞ্জন সেন

আগে ব্যাপারটা বেশ সহজ ছিল, সিপিএম, সিপিআই মানেই শ্রমিক-কৃষক- মধ্যবিত্তদের দল, কংগ্রেস উচ্চবিত্তদের দল, বিজেপি অবাঙালি ব্যবসায়ী শ্রেণীর দল। এই সরল শ্রেণীবিভাগ এখন অচল। বাম আমলে আমরা দেখেছি, টাটাদের মতো শিল্পপতিরাও বামেদের বেশ বন্ধু হয়ে গেছেন।   বিশদ

16th  March, 2019
সন্ত্রাসবাদীদের চক্রব্যূহে ফেঁসে
রয়েছেন ইমরান খান
মৃণালকান্তি দাস

২০১৩ সালে মার্কিন বাহিনীর ড্রোন হামলায় নিহত হয়েছিলেন পাকিস্তানি তালিবান কম্যান্ডার ওয়ালি-উর-রেহমান। প্রতিবাদে ফেটে পড়েছিলেন ইমরান খান। সেদিন ট্যুইট করে বলেছিলেন, ‘ড্রোন হামলায় শান্তিকামী নেতা ওয়ালি-উর-রেহমানকে হত্যার মাধ্যমে প্রতিশোধ, যুদ্ধ ও মৃত্যুর দিকে ঠেলে দেওয়া হল যোদ্ধাদের। একদমই মানতে পারছি না।’
বিশদ

15th  March, 2019
একনজরে
 লখনউ ও ভোপাল, ২৪ মার্চ (পিটিআই): শনিবার রাতে কংগ্রেস আসন্ন লোকসভা নির্বাচনের জন্য অষ্টম দফায় ৩৮ জন প্রার্থীর নাম ঘোষণা করেছে। কর্ণাটকের গুলবর্গা আসন থেকে লড়বেন লোকসভার বিরোধী দলনেতা মল্লিকার্জুন খাড়গে। মহারাষ্ট্রের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী অশোক চৌহান প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন নানদেদ থেকে। ...

সংবাদদাতা, মাথাভাঙা: এবারের লোকসভা নির্বাচনে হলদিবাড়িতে অন্যতম ইস্যু হয়ে উঠেছে টম্যাটো প্রক্রিয়াকরণ শিল্প স্থাপন ও বহুমূখী হিমঘর তৈরির দাবি। কেননা হলদিবাড়ি ব্লকের ছয়টি গ্রাম পঞ্চায়েতে অন্তত ১২০০ হেক্টর জমিতে টম্যাটো চাষ হয়।   ...

প্রসেনজিৎ কোলে, কলকাতা: রেলের খাবার নিয়ে যাত্রীদের অভিযোগের শেষ নেই। কখনও খাবারের বেশি দাম, কখনও নিম্নমান নিয়ে হামেশাই যাত্রীদের ক্ষোভ আছড়ে পড়ে ট্রেনে বা স্টেশনে। এবার কিছু নামী-দামি ট্রেনের খাবারের মেনু নিয়েই চূড়ান্ত বিভ্রান্তি ছড়িয়েছে যাত্রী মহলে। ...

 লন্ডন, ২৪ মে (এপি): ব্রেক্সিট ইস্যুতে ঘরেবাইরে ক্রমশঃ চাপ বাড়ছে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী টেরিজা মের উপর। নিজের দল কনজারভেটিভ পার্টি থেকেই দাবি উঠেছে হয় অবিলম্বে পদত্যাগ করতে, নয়তো পদত্যাগ দিনক্ষণ চূড়ান্ত করতে। রবিবার এই নিয়েই সরগরম ব্রিটিশ মিডিয়া।  ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

বিদ্যার্থীদের অধিক পরিশ্রম করতে হবে। অন্যথায় পরীক্ষার ফল ভালো হবে না। প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষায় ভালো ফল ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৯২৭: হকি খেলোয়াড় লেসলি ক্লডিয়াসের জন্ম
১৯৪৮: অভিনেতা ফারুক শেখের জন্ম
১৯৮৪: ক্রিকেটার অশোক দিন্দার জন্ম
১৯৯২: ক্রিকেট বিশ্বকাপ জিতল পাকিস্তান 

ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৬৮.১৫ টাকা ৬৯.৮৪ টাকা
পাউন্ড ৮৮.৭৭ টাকা ৯২.১৯ টাকা
ইউরো ৭৬.৬৭ টাকা ৭৯.৬২ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
23rd  March, 2019
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৩২, ৭১৫ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩১, ০৪০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৩১, ৫০৫ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৩৮, ৩০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৩৮, ৪০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]
24th  March, 2019

দিন পঞ্জিকা

১০ চৈত্র ১৪২৫, ২৫ মার্চ ২০১৯, সোমবার, পঞ্চমী ৩৫/৫০ রাত্রি ৮/০। বিশাখা ৩/২৬ দিবা ৭/৩। সূ উ ৫/৪০/২৩, অ ৫/৪৫/২৯, অমৃতযোগ দিবা ৭/১৬ মধ্যে পুনঃ ১০/৩০ গতে ১২/৫৫ মধ্যে। রাত্রি ৬/৩৩ গতে ৮/৫৬ মধ্যে পুনঃ ১১/১৯ গতে ২/২৯ মধ্যে, বারবেলা ৭/১২ গতে ৮/৪২ মধ্যে পুনঃ ২/৪৪ গতে ৪/১৪ মধ্যে, কালরাত্রি ১০/১৪ গতে ১১/৪২ মধ্যে। 
১০ চৈত্র ১৪২৫, ২৫ মার্চ ২০১৯, সোমবার, পঞ্চমী রাত্রি ১২/১৯/৫। বিশাখানক্ষত্র ১১/৯/১১, সূ উ ৫/৪০/৪১, অ ৫/৪৪/৪১, অমৃতযোগ দিবা ৭/১৭/১৩ মধ্যে ও ১০/৩০/১৭ থেকে ১২/৫৫/৫ মধ্যে এবং রাত্রি ৬/৩২/২৫ থেকে ৮/৫৫/৩৭ মধ্যে ও ১১/৫৮/৪৯ থেকে ২/২৯/৪৫ মধ্যে, বারবেলা ২/৪৩/৪১ থেকে ৪/১৪/১১ মধ্যে, কালবেলা ৭/১১/১১ থেকে ৮/৪১/৪১ মধ্যে, কালরাত্রি ১০/১৩/১১ থেকে ১১/৪২/৪১ মধ্যে। 
১৭ রজব 

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
দিল্লি ক্যাপিটালস: ৮২/২ (১০ ওভার) 

24-03-2019 - 09:00:12 PM

সানরাইজার্স হায়দরাবাদের বিরুদ্ধে ৬ উইকেটে জয়ী কেকেআর 

24-03-2019 - 07:55:29 PM

টসে জিতে দিল্লি ক্যাপিটালসকে ব্যাট করতে পাঠাল মুম্বই ইন্ডিয়ান্স 

24-03-2019 - 07:37:38 PM

ইডেন গার্ডেন্সে ফ্লাড লাইট বিভ্রাট, বন্ধ খেলা 

24-03-2019 - 07:22:47 PM

কেকেআর: ১১৪/৩ (১৫ ওভার) 

24-03-2019 - 07:20:08 PM

কেকেআর: ৪০/১ (৫ ওভার) 

24-03-2019 - 06:25:39 PM