Bartaman Patrika
বিশেষ নিবন্ধ
 

তিন তালাক বিল অমানবিক ও বৈষম্যমূলক
শামিম আহমেদ

রাজ্যসভার শীতকালীন অধিবেশন ৯ জানুয়ারি শেষ হল, তিন তালাক বিল লোকসভায় পাশ হলেও রাজ্যসভায় হল না। বিরোধীরা বিলটিকে সিলেক্ট কমিটিতে পাঠানোর দাবিতে অনড় রইল।
তিন তালাকের বিলে কী বলা হয়েছে? মুসলমান কোনও পুরুষ তাঁর স্ত্রীকে এক সঙ্গে তিন তালাক উচ্চারণ করলে তা অপরাধ বলে গণ্য হবে এবং পুরুষটির তিন বছরের কারাদণ্ড ও জরিমানা হতে পারে। বিল অনুযায়ী, তিন তালাক হল ফৌজদারি অপরাধ। ওদিকে সুপ্রিম কোর্ট তিন তালাককে অবৈধ ঘোষণা করেছে গত বছরেই, কিন্তু দণ্ডনীয় অপরাধ হিসাবে চিহ্নিত করেনি। কোনও ধর্মের আইনে বা ধর্মশাস্ত্রে এমন অবৈধ বিচ্ছেদকে দণ্ডনীয় হিসাবে ঘোষণা করা হয়নি; কেন মুসলমানদের পুরুষদের ক্ষেত্রে এমন ভাবনা, তা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে।
তিন তালাকের অবৈধকরণ নিয়ে একটু পিছু হাঁটলে দেখতে পাওয়া যাবে, ২০১৭ সালের অগস্ট মাসে সর্বোচ্চ আদালতের পাঁচ বিচারপতির বেঞ্চের দু’জন—প্রধান বিচারপতি জে এস খেহর ও এস এ নাজির তাৎক্ষণিক তালাক প্রথা ছয়মাসের জন্য স্থগিত রেখে সরকারকে আইন প্রণয়নের কথা বলেছিলেন। কিন্তু সংখ্যাগরিষ্ঠ বিচারপতি (জাস্টিস জোসেফ, নরিম্যান ও ললিত) তাঁদের ঐতিহাসিক ও যুগান্তকারী রায়ে বলেছিলেন, তাৎক্ষণিক তিন তালাক অসাংবিধানিক ও অ-ইসলামীয়। পার্লামেন্টে আইন প্রণয়নের কথা তাঁরা বলেননি। স্পষ্টতই সরকার সংখ্যাগরিষ্ঠ বিচারপতিদের রায় (যেটি প্রকৃত রায় বলে গৃহীত) গ্রহণ না করে অর্থাৎ সুপ্রিম কোর্টকে অগ্রাহ্য করে পার্লামেন্টে তালাক বিল এনেছে বিজেপি সরকার।
তাৎক্ষণিক তিন তালাক অবৈধ, অসাংবিধানিক, সর্বোচ্চ আদালতের এই রায় সত্ত্বেও নতুন করে সংসদে আইন প্রণয়নের তোড়জোড়ের কোনও অর্থ দেখতে পাওয়া যায় না। ওই সময় আইনমন্ত্রী রবিশঙ্কর প্রসাদ জানিয়েছিলেন, সুপ্রিম কোর্টের রায় যেহেতু এই তালাককে বাতিল করা হয়েছে, তাই পার্লামেন্টে আইন প্রণয়নের কোনও প্রয়োজন নেই। কোর্টের নির্দেশ না মানা হলে দেশের যে গার্হস্থ্য আইন রয়েছে সেই মোতাবেক দোষীর বিচার ও শাস্তি হবে। যা অন্যান্য ধর্মের ক্ষেত্রে হয়ে থাকে। কিন্তু শেষ পর্যন্ত মুসলমান পুরুষদের জন্য তিন তালাককে ফৌজদারি অপরাধ বলে শাস্তি দেওয়ার বিল আনল সরকার। লোকসভায় সেই বিল পাশ
হয়েছে, রাজ্যসভায় পেশ হলেও মান্যতা পায়নি।
সুপ্রিম কোর্টের রায় অনুযায়ী, একজন মুসলমান স্বামী তাঁর মুসলিম স্ত্রীকে ‘তালাক তালাক তালাক’ (তোমার সঙ্গে থাকছি না) বললেও বিবাহ-বিচ্ছেদ হবে না। এত কাল যে হত, সেটাই চরম লজ্জার। ধর্মীয় অনুশাসন না মেনে এক দল লোক এমন কুপ্রথাকে আঁকড়ে ছিল। সর্বোচ্চ আদালতের রায়ে সেই লজ্জা দেরিতে হলেও ঘুচেছে। এখানেই বিষয়টা শেষ হয়ে যেতে পারত। তেমন হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু তালাক বিলে মুসলমান পুরুষদের শাস্তির (অন্য ধর্মে এটা দণ্ডনীয় নয়) কথা বলে সংবিধানের সমানাধিকারে কুঠারাঘাত করা হয়েছে। তালাক বিলে বলা হয়েছে, স্বামী যদি ‘বিচ্ছেদ বিচ্ছেদ বিচ্ছেদ’ এহেন কথা স্ত্রীকে বলে, তবে তাঁর তিন বছর পর্যন্ত জেল হবে। এমন ফৌজদারি অপরাধ হল নন-কগনিজেবল অফেন্স। কিন্তু এখানে অপরাধটি ঠিক কী সংঘটিত হচ্ছে, তা বোঝা যাচ্ছে না। যদি কোনও স্ত্রী স্বামীর বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ করেন যে গত রাতে উনি নিভৃতে তিন বার তালাক শব্দ উচ্চারণ করেছেন, পুলিশ ওই পুরুষকে প্রমাণ ছাড়াই তুলে নিয়ে যেতে পারবে। তার পর জেলের ঘানি টেনে ওই পুরুষের সঙ্গে তাঁর স্ত্রীর সম্পর্কের উন্নতি হবে নিশ্চয়! ওই কারাবাসের তিন বছর স্ত্রীর দেখভাল করবে কে, কে তাঁর ও সন্তানদের খোরপোষ দেবে, সেসব কথা বিলে লেখা নেই! ফুসকুড়ি (তাৎক্ষণিক তিন তালাক প্রথাকে ফুসকুড়ি বলা হচ্ছে না) ভাল করতে গিয়ে গোটা পা-টাকে কেটে বাদ দেওয়ার নিদান দেওয়ায় এই বিলকে মানবতা-বিরোধী আখ্যা দেওয়া যায়। শাস্তিতত্ত্বের নিয়ম অনুযায়ী, যে-কোনও শাস্তির পিছনে চরম অনিবার্যতা না থাকলে ওই শাস্তি হয়ে পড়ে অত্যাচার, প্রজাপীড়ন ও ক্ষমতার অপব্যবহার। সরকার এই বিলের ক্ষেত্রে তাই করতে চলেছে।
জেরেমি বেন্থাম বলেছিলেন, তিনটি ক্ষেত্রে ফৌজদারি আইন ব্যবহার করা যাবে না, যার অন্যতম হল—যেখানে কুকর্মের চেয়ে শাস্তির ওজন বেশি। বর ঝগড়ার সময় বউকে যদি ‘তোমার সঙ্গে বাস করা যায় না’ বা ‘আর থাকছি না তোমার সঙ্গে’ জাতীয় কথা বেশ কয়েক বার বলে ফেলেন, দম্পতিরা যা আকছার নিজেদের ঝগড়ায় বলে থাকেন; এমন ক্ষেত্রে বরের জেল হবে। কুকর্ম ও শাস্তির পার্থক্য এখানে পাতাল আর আকাশ। তাছাড়া, এই তালাক বিল যে আইন আনতে চলেছে, আধুনিক শাস্তিতত্ত্ব অনুযায়ী তা মধ্যযুগীয়। আইনমন্ত্রী রবিশঙ্কর প্রসাদ গত বছরেই বলেছিলেন, তাৎক্ষণিক তালাক হল পাপ। মুসলমান আইন অনুযায়ী তার শাস্তি হওয়া অনিবার্য। মন্ত্রীমশাই জানেন না যে, এই দেশের শাস্তিতত্ত্ব মধ্যযুগীয় প্রতিশোধাত্মক মতবাদে বিশ্বাসী নয়। ভারতে নিবৃত্তিমূলক শাস্তির প্রচলন আছে। শাসক দল ‘ন্যায়-এর পথ অনুসরণ না করে ‘ক্ষমতা’র অপব্যবহার করছেন। সুপ্রিম কোর্ট তিন তালাককে অবৈধ ও অসাংবিধানিক ঘোষণা করেছে, এই রায় যথেষ্ট। অগণতান্ত্রিক পদ্ধতিতে পার্লামেন্টে আইন প্রণয়ন করার মধ্য দিয়ে নরেন্দ্র মোদির সরকার আসলে মুসলমান সমাজের সর্বনাশ ডেকে আনছে। সেইসঙ্গে নিজের অপদার্থতা, কুশাসন ইত্যাদির অভিমুখ ঘুরিয়ে দিয়েছে এই ধর্ম-অধর্ম সার্কাসে।
২০১১ সালে আদমশুমারি অনুয়ায়ী, এই দেশে প্রায় ২৩ লক্ষ ৭০ হাজার মহিলা স্বামী পরিত্যক্তা, আইনিভাবে বিচ্ছিন্না নন। ওই মহিলারা স্বেচ্ছায় আলাদা থাকেন নাকি স্বামীরা তাঁদের ত্যাগ করেছেন বা বাড়ি থেকে বের করে দিয়েছেন তা জানার উপায় নেই। ওই মহিলাদের মধ্যে ১৯ লক্ষ হিন্দু আর ২.৮ লক্ষ মুসলমান। সুতরাং যাঁরা ভাবছেন যে মহামারীর মতো মুসলমান নারী স্বামী পরিত্যক্তা হচ্ছেন, অতএব তিন তালাক বিল এনে মুসলমান পুরুষদের ভয় না দেখালে চলবে না, তাঁরাও ভুল ভাবছেন। পক্ষান্তরে, ২০১১ সালের আদমশুমারি অনুযায়ী, মুসলমানদের মধ্যে আইনি বিবাহবিচ্ছেদের পরিমাণ ০.৫৬%, হিন্দুদের ক্ষেত্রে ০.৭৬%। এই দেশে দেওয়ানি আইনের ভিন্নতা থাকলেও ফৌজদারি আইনের তেমন ভিন্নতা নেই বলেই জানা ছিল। এই তালাক বিল সেই বৈষম্যের সূচনাও করল।
দেশে যদি স্বামী পরিত্যক্তা মহিলাদের জন্য আইন হয় এবং সংশ্লিষ্ট পুরুষকে শাস্তির আওতায় আনা ন্যায়বিচার বলে মনে করা হয়, তবে ‘সবকা সাথ সবকা বিকাশ’ নামক স্লোগান মেনে ওই হতভাগ্য ২৩ লক্ষ ৭০ হাজার নারীর সকলের ক্ষেত্রেই তা হোক। সেটাই হবে সর্বজনীন ন্যায়। যেখানে দেশের প্রধানমন্ত্রী থেকে রহিম শেখ-রামা কৈবর্তরা অভিন্ন ফৌজদারি আইনের একটি ছাতার নীচে আসবেন।
 লেখক বেলুড় রামকৃষ্ণ মিশন বিদ্যামন্দিরে দর্শন বিভাগের প্রধান অধ্যাপক
12th  January, 2019
দক্ষ ম‌্যানেজারদের চাই, নিছক চৌকিদারদের নয় 
পি চিদম্বরম

পি চিদম্বরম: চৌকিদার হওয়াটা সম্মানের কাজ যেটা অনেক শতাব্দী ধরে চলে আসছে। চৌকিদার বা ওয়াচম‌্যানদের পাওয়া গিয়েছে সমস্ত গোষ্ঠী-সম্প্রদায় এবং পরিবেশ-পটভূমি থেকে। তাঁরা ছিলেন কিছু ব‌্যক্তি এবং তাঁদের কাজটি ছিল নিয়মমাফিক। আবাসন থেকে বাণিজ‌্য কেন্দ্র প্রভৃতি নানা স্থানে বেসরকারি উদ‌্যোগে নিরাপত্তারক্ষী নিয়োগের একটি সংগঠিত ব‌্যবসার জন্ম দিয়েছে উদারীকরণ নীতি।  বিশদ

 লোকসভা ২০১৯: প্রার্থী বাছতেই
হিমশিম, মমতাকে রুখবেন কীভাবে!
শুভা দত্ত

 দোল শেষ। তবে, রাজ্যজুড়ে রঙের উৎসবের আমেজ এখনও যথেষ্টই রয়েছে। পথেঘাটে মানুষের শরীরে মনে তার ছাপ এখনও স্পষ্ট। এবার দোলে গরম তেমন অসহনীয় ছিল না। বৃষ্টিও হয়নি। বরং, শুক্রবার হোলির বিকেলে কালবৈশাখী এসে যেটুকু ভ্যাপসা গরম জমে ছিল তাও ধুয়েমুছে নিয়ে গেছে।
বিশদ

24th  March, 2019
কংগ্রেস-সিপিএম জোট যেন
সান্ধ্য মেগা সিরিয়াল!
মৃণালকান্তি দাস

শত্রু চিহ্নিত হয়েছিল বছরখানেক আগেই। কেন্দ্রে বিজেপি, রাজ্যে তৃণমূল। সেই শত্রুকে বধ করতে কংগ্রেসের সঙ্গে হাতে হাত ধরে লড়াইয়ের ময়দানে থাকতে হবে, সেই বার্তাও দেওয়া হচ্ছিল বহুদিন ধরে। সূর্যকান্ত মিশ্র থেকে সুজন চক্রবর্তী, অধীর চৌধুরি থেকে আব্দুল মান্নান—যাঁদের জোট চর্চার সঙ্গে শত্রু-বিরোধী গরম গরম ভাষণও শোনা গিয়েছিল অনেক। কিন্তু লোকসভা ভোটের আগেই অশ্বডিম্ব প্রসব করে চূড়ান্ত হাস্যস্পদে পরিণত হয়েছে দুই দল।
বিশদ

24th  March, 2019
ধর্মের বেশে ভোটব্যাঙ্ক!
শান্তনু দত্তগুপ্ত

 

দুপুর গড়িয়ে বিকেলের পথে। তারিখটা ২৭ মে, ১৯৬৪। দিল্লির রাজপথে কালো মাথার ভিড়ে তিল ধারণের জায়গা নেই। আর ভিড়ের বেশিরভাগেরই গতিমুখ তিনমূর্তি ভবনের দিকে। সেখানে শায়িত জওহরলাল নেহরু। শেষযাত্রায় প্রধানমন্ত্রীকে শ্রদ্ধা জানাতে হাজির গ্র্যানভিল অস্টিনও। মার্কিন ছাত্র। থিসিস লিখছেন ভারতের সংবিধানের উপর। তাই আগ্রহটা বাকিদের থেকে একটু বেশিই।  
বিশদ

23rd  March, 2019
পরিবেশ নিরুদ্দেশ 
রঞ্জন সেন

খবরের কাগজে দেখলাম, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি জানিয়েছেন, সন্ত্রাস ও জলবায়ু পরিবর্তন মানব সভ্যতার সামনে বড় বিপদ। বাতাসে কার্বন নিঃসরণ বাড়ে এমন কোনও কাজ তিনি করেন না। কার্বন নিঃসরণের বিপদ সম্পর্কে প্রধানমন্ত্রীর এমন সতর্কতা খুব ভালো লাগল।  
বিশদ

23rd  March, 2019
এবারের লোকসভা নির্বাচনে বাংলার
বামফ্রন্ট এবং তার প্রার্থীতালিকা
শুভময় মৈত্র

এ দেশে বামপন্থার ইতিহাস আজকের নয়। প্রায় একশো বছর আগে ১৯২৫ সালের বড়দিনের ঠিক পরের তারিখেই কানপুরে কমিউনিস্ট পার্টি অফ ইন্ডিয়ার (সিপিআই) প্রতিষ্ঠা হয়েছিল বলে শোনা যায়। সিপিএমের আবার অন্য তত্ত্বও আছে। তাদের একাংশের মতে ১৯২০ সালের ১৭ অক্টোবর তাসখন্দে ভারতের কমিউনিস্ট পার্টির পথ চলা শুরু।
বিশদ

21st  March, 2019
গত বিধানসভার ফল রাজ্যে এবারের লোকসভার ভোটে কী ইঙ্গিত রাখছে?
বিশ্বনাথ চক্রবর্তী
 

২০১৯-এর লোকসভা নির্বাচনকে সামনে রেখে বেশ কয়েক মাস ধরে চলছে জনমত সমীক্ষার কাজ। ভারতের মতো বৃহৎ গণতান্ত্রিক দেশে যেখানে ৯০ কোটি ভোটার রয়েছেন সেখানে এই বিপুল সংখ্যক মানুষের মনের খোঁজ পাওয়া সমীক্ষকদের পক্ষে কতটুকু সম্ভব তা নিয়ে বিস্তর বিতর্ক রয়েছে—বিশেষ করে ৯০ কোটি ভোটার যেখানে জাত, ধর্ম, অঞ্চলে বিভক্ত।  
বিশদ

19th  March, 2019
মোদিজির বালাকোট স্বপ্ন 

পি চিদম্বরম: গত ১০ মার্চ, রবিবার নির্বাচন কমিশন রণতূর্য বাজিয়ে দিল। সরকারকে শেষবারের মতো ‘ফেভার’ও করল তারা। নির্বাচন ঘোষণাটিকে সাধারণ মানুষ মুক্তির শ্বাসের মতো গ্রহণ করল: আর ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপনের ঘটা নেই, আর অর্ডিন‌্যান্স নেই এবং নেই কিছু নড়বড়ে সরকারি স্কিমের বেপরোয়া সূচনা।  বিশদ

18th  March, 2019
আধাসেনা নামিয়ে কি ভোটযুদ্ধে
মমতাকে ঘায়েল করা যাবে?

শুভা দত্ত 

রাজ্যে ভোটের হাওয়া গরম হচ্ছে। জেলায় জেলায় শাসক এবং বিরোধী—দুই শিবিরের প্রচারও একটু একটু করে গতি পাচ্ছে। মন্দিরে পুজো দিয়ে প্রার্থীদের অনেকেই নেমে পড়েছেন জনসংযোগে। দেওয়াল লেখাও চলছে জোরকদমে। ভোটপ্রার্থীদের সমর্থনে পোস্টার ব্যানার দলীয় পতাকাও দেখা দিতে শুরু করেছে চারপাশে।  
বিশদ

17th  March, 2019
তীব্র জলসঙ্কট হয় মানুষের কারণে
খেসারত দিতে হবে মানুষকেই 
মৃন্ময় চন্দ

নদী বিক্রি? আজব কথা, তাও কি হয় সত্যি? ছত্তিশগড় তখনও নয় স্বয়ংসম্পূর্ণ রাজ্য, কুলকুল করে বয়ে চলেছে ‘শেওনাথ’ নদী। ১৯৯৮ সালে মধ্যপ্রদেশ সরকার ২৩ কিমি দীর্ঘ ‘শেওনাথ’ নদীটিকে ৩০ বছরের লিজে হস্তান্তর করল স্থানীয় এক ব্যবসায়ীর কাছে।  বিশদ

16th  March, 2019
সংরক্ষণের রাজনীতি, রাজনীতির সংরক্ষণ 
রঞ্জন সেন

আগে ব্যাপারটা বেশ সহজ ছিল, সিপিএম, সিপিআই মানেই শ্রমিক-কৃষক- মধ্যবিত্তদের দল, কংগ্রেস উচ্চবিত্তদের দল, বিজেপি অবাঙালি ব্যবসায়ী শ্রেণীর দল। এই সরল শ্রেণীবিভাগ এখন অচল। বাম আমলে আমরা দেখেছি, টাটাদের মতো শিল্পপতিরাও বামেদের বেশ বন্ধু হয়ে গেছেন।   বিশদ

16th  March, 2019
সন্ত্রাসবাদীদের চক্রব্যূহে ফেঁসে
রয়েছেন ইমরান খান
মৃণালকান্তি দাস

২০১৩ সালে মার্কিন বাহিনীর ড্রোন হামলায় নিহত হয়েছিলেন পাকিস্তানি তালিবান কম্যান্ডার ওয়ালি-উর-রেহমান। প্রতিবাদে ফেটে পড়েছিলেন ইমরান খান। সেদিন ট্যুইট করে বলেছিলেন, ‘ড্রোন হামলায় শান্তিকামী নেতা ওয়ালি-উর-রেহমানকে হত্যার মাধ্যমে প্রতিশোধ, যুদ্ধ ও মৃত্যুর দিকে ঠেলে দেওয়া হল যোদ্ধাদের। একদমই মানতে পারছি না।’
বিশদ

15th  March, 2019
একনজরে
সংবাদদাতা, মাথাভাঙা: এবারের লোকসভা নির্বাচনে হলদিবাড়িতে অন্যতম ইস্যু হয়ে উঠেছে টম্যাটো প্রক্রিয়াকরণ শিল্প স্থাপন ও বহুমূখী হিমঘর তৈরির দাবি। কেননা হলদিবাড়ি ব্লকের ছয়টি গ্রাম পঞ্চায়েতে অন্তত ১২০০ হেক্টর জমিতে টম্যাটো চাষ হয়।   ...

 সংবাদদাতা, তারকেশ্বর: তারকেশ্বরের তালপুর গ্রামে প্রায় ছয় কোটি টাকা ব্যয়ে তৈরি হওয়া দু’টি জলপ্রকল্পে উপকৃত হতে চলেছেন তিনটি গ্রামের প্রায় ৫০ হাজার মানুষ। তারকেশ্বর তালপুর পঞ্চায়েতের রামনারায়ণপুর ও নগদীপাড়া গ্রামে দু’টি জলপ্রকল্পের মাধ্যমে বাড়ি বাড়ি জল পৌঁছে দেওয়ার উদ্যোগে খুশি ...

 জয়পুর, ২৪ মার্চ: সোমবার ঘরের মাঠে রাজস্থান রয়্যালস এবারের আইপিএলে অভিযান শুরু করছে কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবের বিরুদ্ধে। এই ম্যাচটির দিকে তাকিয়ে আছে আইসিসি টেস্ট খেলিয়ে ...

সংবাদদাতা, কান্দি: রবিবার কান্দি পুরসভা এলাকার আন্দুলিয়া গ্রামের কাছে অধীর চৌধুরীর সমর্থনে হওয়া মিছিলের বাইক আটকে দেয় পুলিস। এনিয়ে অধীরবাবু পুলিসের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন।  ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

বিদ্যার্থীদের অধিক পরিশ্রম করতে হবে। অন্যথায় পরীক্ষার ফল ভালো হবে না। প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষায় ভালো ফল ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৯২৭: হকি খেলোয়াড় লেসলি ক্লডিয়াসের জন্ম
১৯৪৮: অভিনেতা ফারুক শেখের জন্ম
১৯৮৪: ক্রিকেটার অশোক দিন্দার জন্ম
১৯৯২: ক্রিকেট বিশ্বকাপ জিতল পাকিস্তান 

ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৬৮.১৫ টাকা ৬৯.৮৪ টাকা
পাউন্ড ৮৮.৭৭ টাকা ৯২.১৯ টাকা
ইউরো ৭৬.৬৭ টাকা ৭৯.৬২ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
23rd  March, 2019
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৩২, ৭১৫ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩১, ০৪০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৩১, ৫০৫ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৩৮, ৩০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৩৮, ৪০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]
24th  March, 2019

দিন পঞ্জিকা

১০ চৈত্র ১৪২৫, ২৫ মার্চ ২০১৯, সোমবার, পঞ্চমী ৩৫/৫০ রাত্রি ৮/০। বিশাখা ৩/২৬ দিবা ৭/৩। সূ উ ৫/৪০/২৩, অ ৫/৪৫/২৯, অমৃতযোগ দিবা ৭/১৬ মধ্যে পুনঃ ১০/৩০ গতে ১২/৫৫ মধ্যে। রাত্রি ৬/৩৩ গতে ৮/৫৬ মধ্যে পুনঃ ১১/১৯ গতে ২/২৯ মধ্যে, বারবেলা ৭/১২ গতে ৮/৪২ মধ্যে পুনঃ ২/৪৪ গতে ৪/১৪ মধ্যে, কালরাত্রি ১০/১৪ গতে ১১/৪২ মধ্যে। 
১০ চৈত্র ১৪২৫, ২৫ মার্চ ২০১৯, সোমবার, পঞ্চমী রাত্রি ১২/১৯/৫। বিশাখানক্ষত্র ১১/৯/১১, সূ উ ৫/৪০/৪১, অ ৫/৪৪/৪১, অমৃতযোগ দিবা ৭/১৭/১৩ মধ্যে ও ১০/৩০/১৭ থেকে ১২/৫৫/৫ মধ্যে এবং রাত্রি ৬/৩২/২৫ থেকে ৮/৫৫/৩৭ মধ্যে ও ১১/৫৮/৪৯ থেকে ২/২৯/৪৫ মধ্যে, বারবেলা ২/৪৩/৪১ থেকে ৪/১৪/১১ মধ্যে, কালবেলা ৭/১১/১১ থেকে ৮/৪১/৪১ মধ্যে, কালরাত্রি ১০/১৩/১১ থেকে ১১/৪২/৪১ মধ্যে। 
১৭ রজব 

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
দিল্লি ক্যাপিটালস: ৮২/২ (১০ ওভার) 

24-03-2019 - 09:00:12 PM

সানরাইজার্স হায়দরাবাদের বিরুদ্ধে ৬ উইকেটে জয়ী কেকেআর 

24-03-2019 - 07:55:29 PM

টসে জিতে দিল্লি ক্যাপিটালসকে ব্যাট করতে পাঠাল মুম্বই ইন্ডিয়ান্স 

24-03-2019 - 07:37:38 PM

ইডেন গার্ডেন্সে ফ্লাড লাইট বিভ্রাট, বন্ধ খেলা 

24-03-2019 - 07:22:47 PM

কেকেআর: ১১৪/৩ (১৫ ওভার) 

24-03-2019 - 07:20:08 PM

কেকেআর: ৪০/১ (৫ ওভার) 

24-03-2019 - 06:25:39 PM