Bartaman Patrika
বিশেষ নিবন্ধ
 

ভোটের কৈফিয়ত
পি চিদম্বরম

একটা আত্মবিশ্বাসী সরকার স্বাভাবিক অন্তর্বর্তী বাজেট পেশ করত আর এটাই করা উচিত, কিন্তু আত্মবিশ্বাসের মতো জিনিসটার ঘাটতি রয়েছে বিজেপি নেতৃত্বাধীন এনডিএ সরকারের মধ্যে। শুধু বিজেপি এমপিদের বিষণ্ণ মুখগুলোর দিকে তাকান বিশেষত যাঁরা রাজস্থান, মধ্যপ্রদেশ, ছত্তিশগড় ও উত্তরপ্রদেশ থেকে এসেছেন এবং আপনি আমার সঙ্গে একমত হবেন।
সুতরাং, অন্তর্বর্তী বাজেট পেশের ঘটনাটাকে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি একটা তাৎপর্যপূর্ণ বিষয়ে রূপান্তরিত করার সিদ্ধান্ত নিলেন। ভারপ্রাপ্ত অর্থমন্ত্রী—একজন খেলোয়াড় প্রথমবার ভারতীয় দলে সুযোগ পাওয়ার মতো করে—বাজেট পেশের ঘটনাটাকে একটা প্রদর্শনীর রূপ দেওয়ার চেষ্টা করলেন। আইডিয়াটা ছিল সরকারের বিদায় সঙ্গীতে একটু ‘জোশ’ জোগান দেওয়া। প্রধানমন্ত্রী এবং ভারপ্রাপ্ত অর্থমন্ত্রী যেমনটা ভেবে রেখেছিলেন, ফলটা দুর্ভাগ্যক্রমে, ভীষণই অন্যরকম হয়ে থাকতে পারে।
নির্লজ্জতা
প্রতিশ্রুতিগুলো খোলসা হতে আরম্ভ করেছে।
পিএম-কিষাণ স্কিমের ‘বিরাট’ প্রতিশ্রুতির দিকে তাকানো যাক। এই স্কিমে ২ একর বা তার কম জমির মালিক কৃষকদের বছরে তিন কিস্তিতে মোট ৬০০০ হাজার টাকা দেওয়ার কথা বলা হয়েছে। স্কিমটার কার্যকারিতা পিছিয়ে ২০১৮-র ডিসেম্বরে নিয়ে গিয়ে সরকার নির্বাচন কমিশনকে বোকা বানাবার চেষ্টা করেছে! সেটা সম্ভব কীভাবে? প্রথম কিস্তিতে প্রদেয় ২০০০ টাকা সরকার কি কৃষকদের ব‌্যাঙ্ক অ‌্যাকাউন্টে (২০১৮-র ডিসেম্বরে জমা হচ্ছে ধরে নিয়ে) জমা করে দেবে এবং ওই সময় থেকে হিসেব করে সুদও দিতে নির্দেশ দেবে ব‌্যাঙ্কগুলোকে? নির্বাচনী আচরণবিধি লাগু হওয়ার আগেই যদি প্রথম কিস্তির টাকা দেওয়া হয়ে গিয়ে থাকে তো নির্বাচন কমিশন তাদের অসহায়তার দোহাই দিতে পারে, কিন্তু দ্বিতীয় কিস্তির টাকা দেওয়া যদি নির্বাচন কমিশন ঠেকাতে না-পারে তবে মানুষ ধরেই নেবে যে আরও একটা জাতীয় গুরুত্বপূর্ণ সংস্থার বিশ্বস্ততা ধ্বংস করে দেওয়া হল বা সেটাকে পরপারে পাঠাবার বন্দোবস্ত হল।
ঘুষ
এবার দেখা যাক পিএম-কিষাণ স্কিমের ভালোমন্দটা: প্রত‌্যেক প্রান্তিক ও ক্ষুদ্র কৃষক—যাঁরা ২ একর কিংবা তার চেয়ে কম জমির মালিক—তাঁরা এই প্রকল্পের সুবিধা পাবেন। তার মানে হল, সারা দেশের মোট কৃষিজমির ৮৬.২ শতাংশ এই সুবিধার আওতায় আসবে। যখন কেউ সুবিধা পায় সেটা গুরুত্বপূর্ণ, আবার কেউ সুবিধা ‘না-পাওয়ার দলে’ পড়ে গেলে সেটাও সমান গুরুত্বপূর্ণ:
১. জমির মালিক—তিনি নিজের হাতে চাষ করতে পারেন অথবা অন‌্যদের দিয়ে চাষ করান—দু’পক্ষই এই আর্থিক সুবিধা গ্রহণের যোগ‌্য বিবেচিত হবেন এবং টাকাটা পাবেন।
২. ভাগচাষি এই সুবিধা পাবেন না।
৩. কৃষি শ্রমিকরা এই সুবিধা পাবেন না।
৪. অকৃষি ক্ষেত্রের গ্রামীণ শ্রমজীবীরা—যেমন ছোট মুদি দোকানির মতো মানুষজন, হকার, ছুতোর, স্বর্ণশিল্পী, নাপিত প্রভৃতি এই স্কিমের বাইরে রয়ে যাচ্ছেন।
৫. আর শহুরে গরিবদের পুরোটাকেই এই স্কিমের বাইরে রাখা হয়েছে।
জমির মালিক-কৃষকরা (যাঁরা নিজের হাতে চাষ করেন না তাঁরাও) দৈনিক ১৭ টাকার একটা ‘বড়সড়’ অঙ্ক পাবেন। স্কিমটা নিয়ে আমি আদৌ মশকরা করছি না। ডিজেল, বিদ‌্যুৎ, সার, বীজ প্রভৃতির দাম বাড়িয়ে, ট্রাক্টর, ফসল কাটার যন্ত্র, শস‌্য মাড়াই করার যন্ত্রের উপর জিএসটি চাপিয়ে এবং কৃষিপণ‌্যের ন‌্যায‌্যমূল‌্য না-দিয়ে সরকার কৃষকদের প্রথমেই জখম করে রেখেছে—এখন তার উপর কৃষকদের অপমানও করছে।
পরিবারপিছু দৈনিক ১৭ টাকায় কি তাদের দুর্দশা ঘুচে যাবে অথবা কৃষক-পরিবারের দারিদ্রমুক্তি ঘটবে? নিশ্চিতভাবেই নয়। মাসে ৫০০ টাকার (বছরে ৬০০০ টাকা) এই অনুদানটা অনেক রাজ‌্যের বার্ধক‌্যভাতা, প্রতিবন্ধীভাতা বা বিধবাভাতার থেকেও কম। দৈনিক ১৭ টাকা বা প্রথম কিস্তির ২০০০ টাকাটা মোটেই দারিদ্র-দূরীকরণের উপায় নয়। এটা তাহলে কী? সোজা কথায়, এটা হচ্ছে ভোটের জন‌্য নগদ ইনাম। ভোটে জেতার আশায় নির্বাচনের প্রাক্কালে সরকার এই টাকাটা ভোটারদের দেবে—যেভাবে কিছু দল অসদুপায়ে জোগাড় করা টাকার পুরোদস্তুর আর্ট দেখিয়ে থাকে। পিএম-কিষাণ স্কিমে, এই প্রথম সরকারি অর্থ ভোটারদের ঘুষ দিতে ব‌্যবহার করা হবে।
জমির মালিকানা সংক্রান্ত রেকর্ডপত্তর কি রাজ‌্য সরকারগুলো ‘আপডেট’ এবং ‘ভেরিফাই’ করেছে? একদিকে, জমির মালিকানা সংক্রান্ত রেকর্ড ‘আপডেট’ করে দেওয়ার জন‌্য সরকার গত ৪ ফেব্রুয়ারি রাজ‌্যগুলোকে লিখেছে। অন‌্যদিকে, ওই একই দিনে, সংশ্লিষ্ট সচিব ঘোষণা করে দিয়েছেন যে প্রথম কিস্তির টাকা এখনই দেওয়া হবে এবং দ্বিতীয় কিস্তির টাকাটাও ভোটের আগে দিয়ে দিতে পারে সরকার। ধরে নেওয়া যায় যে সচিব হলেন সরকারের গোপনীয়তার রক্ষাকর্তা।
বাগাড়ম্বর
অন‌্য বড় প্রতিশ্রুতি হল পেনশন প্রকল্প—বাস্তবিক ‘অন‌্য-একটা’ পেনশন প্ল‌্যান—অটল পেনশন যোজনা নামক প্রথমটা ‘ফ্লপ’ হওয়ার কারণেই। পুরনো কনট্রিবিউটরি প্ল‌্যান ২০১৫-র মে মাসে চালু করা হয়েছিল এবং ২০১৮-র ডিসেম্বর অবধি ওতে গ্রাহক নথিভুক্ত করা গিয়েছে মাত্র ১ কোটি ৩৩ লক্ষ। ওই প্ল‌্যানে জমানো টাকার বিনিময়ে বাস্তবে যতটুকু পাওয়া যাবে সেই জটিল হিসেবটা খুব কম গ্রাহকের মাথাতেই ঢুকবে। নতুন প্ল‌্যানটার হিসেবপত্তর তুলনামূলকভাবে সহজ হলেও জমানো টাকার বিনিময়ে শেষাবধি যা পাওয়া যাবে বলা হচ্ছে তাতে গ্রাহকের আর্থিক লাভ কোথায়? ধরে নেওয়া যায় যে একজন গ্রাহক নিরবচ্ছিন্নভাবে ৩১-৪২ বছর মাসে মাসে ৫৫-১০০ টাকা জমা দেবেন। তার বিনিময়ে ৬০ বছর বয়স থেকে মাসিক ৩০০০ টাকা পেনশন পেলেও সেই কালে তার অর্থনৈতিক গুরুত্ব কী থাকবে? এই প্ল‌্যানে গ্রাহক হওয়ার সর্বোচ্চ বয়সসীমা ৫০ বছর, অতএব ভারপ্রাপ্ত অর্থমন্ত্রীর বাজেট ভাষণ থেকে অনুমেয় যে, প্রথম ১০ বছর সরকারকে কোনও পাওনা মেটাতে হবে না। আগের প্ল‌্যানের অভিজ্ঞতা থেকে আমার মনে হয়, প্রস্তাব অনুসারে ১০ কোটি শ্রমজীবী মানুষের নাম এই প্ল‌্যানে নথিভুক্ত হওয়ার কোনও আশা নেই; ভারপ্রাপ্ত অর্থমন্ত্রী এই কর্মসূচির জন‌্য মাত্রই ৫০০ কোটি টাকার সংস্থান রেখেছেন! (ও হ‌্যাঁ, বাজেট ভাষণের ৩৭ নং অনুচ্ছেদ ছাড়া বাজেট ডকুমেন্টের আর কোথায় অ‌্যালোকেশন বা বরাদ্দের উল্লেখ আছে?)
বাগাড়ম্বর করার অন‌্য ব‌্যাপারগুলোর মধ‌্যে রয়েছে নির্মল জেলা ও গ্রামগুলো, প্রত‌্যেক বাড়িতে বিদ‌্যুৎ পৌঁছে যাওয়া, গরিব পরিবারগুলোকে রান্নার গ‌্যাসের নিখরচার সংযোগ এবং ‘মুদ্রা’ স্কিমের ঋণগ্রহীতারাই কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টিকারী—তৎসত্ত্বেও বাস্তবটা হল—এই সমস্ত দাবির প্রত‌্যেকটার অসত‌্যতা প্রকট হয়ে পড়েছে—জ্ঞানীগুণিমহল, এনজিও এবং সাংবাদিকদের ফিল্ড রিপোর্টে।
সব মিলিয়ে অন্তর্বর্তী বাজেট এটাই খোলসা করে দিল যে বিজেপির লোকসভা নির্বাচনের কৌশলটা হল ‘বাগাড়ম্বর এবং ভোটারদের ঘুষের প্রলোভন’।  
11th  February, 2019
আত্মশক্তি ও আমরা
সমৃদ্ধ দত্ত

 এসব থাকলে যেটা হবে তা হল সর্বদা সরকারের উপর নির্ভর করে থাকতে হবে না। আমার কাছে সবথেকে আদর্শ হল গ্রামবাসীরা যদি নিজেদের ভালোর জন্য পারস্পরিক সহায়তায় নিজেরাই জোট বাঁধে। ভেদাভেদ ভুলে কী করলে গোটা গ্রামের উন্নতি ও মঙ্গল হবে, সেটা উপলব্ধি করে নিজেরাই পরিশ্রম করলে দেখা যাবে উন্নতির আলো। বিশদ

23rd  August, 2019
অ্যাট দ্য হোয়াইট হাউস কলাম থেকেই
খবরের কেন্দ্রে মার্কিন প্রেসিডেন্টের বাড়ি
মৃণালকান্তি দাস

 ১৮৯৬ সাল। উইলিয়াম ‘ফ্যাটি’ প্রাইস ওয়াশিংটন ইভিনিং স্টার পত্রিকায় কাজ করার একটা সুযোগ খুঁজছিলেন। পত্রিকার সিটি এডিটর হ্যারি গডউইন প্রাইসকে স্থায়ী চাকরি দেওয়ার আগে হোয়াইট হাউসে পাঠালেন একটি সংবাদ তৈরি করার জন্য। ওই সময় মার্কিন প্রেসিডেন্ট ছিলেন গ্রোভার ক্লিভল্যান্ড। বিশদ

23rd  August, 2019
চক্রব্যূহে জাতীয় কংগ্রেস:
সোনিয়ার প্রত্যাবর্তন
প্রণবকুমার চট্টোপাধ্যায়

 আগস্ট মাস জাতীয় কংগ্রেস ও ভারতীয় রাজনীতিতে স্মরণীয় মাস। ১৯৪২ সালের ৮ আগস্ট ভারত ছাড়ো আন্দোলনের সূচনা হয়, আবার ১৯৪৭ সালের ১৫ আগস্ট ভারত স্বাধীনতা অর্জন করে। মজার কথা, বিগত ১০ আগস্ট মধ্যরাত্রে কংগ্রেস ওয়ার্কিং কমিটি নতুন কংগ্রেস সভাপতির নাম স্থির করার জন্য পাঁচটি কমিটি শলা-পরামর্শে বসে।
বিশদ

22nd  August, 2019
ন্যাশনাল মেডিক্যাল কমিশন বিল: কিছু আশঙ্কা 
বিষাণ বসু

চারদিকে বড় হইচই। বিষয় ন্যাশনাল মেডিক্যাল কমিশন বিল। স্বাধীনতার পর থেকেই দেশের মেডিক্যাল শিক্ষার ব্যাপারটা দেখছিলেন এমসিআই, অর্থাৎ মেডিক্যাল কাউন্সিল অফ ইন্ডিয়া। এমসিআই নিয়ে অভিযোগ ছিল বিস্তর—বিশেষত, তাঁদের কিছু কর্তাব্যক্তিকে নিয়ে। 
বিশদ

20th  August, 2019
জম্মু-কাশ্মীর: উন্নয়ন ও অন্তর্ভুক্তির নতুন প্রভাত
রবিশঙ্কর প্রসাদ
 

জম্মু-কাশ্মীরের সাধারণ মানুষের কল্যাণে সংবিধানের ৩৭০ ধারা বাতিল করা হয়েছে। এর ফলে, ৭০ বছরের পুরনো একটা সমস্যার নতুন সরকারের ক্ষমতা গ্রহণের ৭০ দিনেরও কম সময়ে সমাধান হল। এই কারণে আমাদের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সাহস ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের ইচ্ছাশক্তিকে প্রশংসা করা উচিত।
 
বিশদ

20th  August, 2019
নিস্তেজ অর্থনীতির সত্যটা সরকার ভুলে যাচ্ছে 
পি চিদম্বরম

রাষ্ট্রপতি ভবন হল সরকারের ক্ষমতার আসনের প্রতীক। এক কিলো মিটার ব্যাসার্ধের মধ্যে সংসদ ভবন, প্রধানমন্ত্রীর অফিস (পিএমও), নর্থ ব্লক ও সাউথ ব্লক—মানে স্বরাষ্ট্র, অর্থ, প্রতিরক্ষা ও বিদেশ-এর মতো উচ্চ মন্ত্রকগুলি রয়েছে।   বিশদ

19th  August, 2019
সভাপতি পদে সোনিয়াজির প্রত্যাবর্তনে কংগ্রেস কি ছন্দ ফিরে পাবে
শুভা দত্ত

ছন্দ তো হারিয়েছে বহুদিন। ছন্দে ফেরার চেষ্টা—সেও শুরু হয়েছে বহুদিন। কিন্তু কিছুতেই যেন সেই পুরনো দমদার ছন্দে ফিরতে পারছে না জাতীয় কংগ্রেস! নেহরু-ইন্দিরার আমল থেকে গান্ধী পরিবারের ছত্রচ্ছায়ায় এবং নেতৃত্বে দলের যে অপ্রতিরোধ্য ছন্দ গোটা দেশকে কংগ্রেসি তেরঙ্গায় বেঁধে রেখেছিল, যে ছন্দ কংগ্রেস প্রতীক ইন্দিরার পাঞ্জার উপর বছরের পর বছর দেশের মানুষের আস্থা বিশ্বাস ও আবেগ ধরে রেখেছিল, জরুরি অবস্থা, নাসবন্দির মতো কাণ্ডের পরও যে ছন্দ ক্ষমতার কেন্দ্রে ফিরিয়ে এনেছিল কংগ্রেসকে, ইন্দিরা এবং ইন্ডিয়া হয়ে উঠেছিলেন সমার্থক—জাতীয় কংগ্রেসের সেই অমিত শক্তি রাজনৈতিক ছন্দ অনেক কাল আগেই ইতিহাসের পাতায় ঠাঁই নিয়েছে।
বিশদ

18th  August, 2019
ওয়াল স্ট্রিটের ‘নেকড়ে’-র গল্প!
মৃণালকান্তি দাস

ওয়াশিংটনের অপরিচিত কোনও এক পথে হাঁটতে হাঁটতে গল্পটা শুনিয়েছিলেন এমিলি ব্রাউন। গল্প বলতে, এক অপরাধীর ঘুরে দাঁড়ানোর কাহিনী। জর্ডন বেলফোর্টের গল্প। যিনি জীবনে অপরাধের নেশায় পড়ে সবকিছু হারিয়েছিলেন। কে এই জর্ডন বেলফোর্ট, জানেন? যাঁর জীবন কাহিনী শুনলে মনে হবে, এ এই মার্কিন মুলুকেই সম্ভব! বিশদ

17th  August, 2019
স্বাধীনতা ৭৩ এবং ভূস্বর্গের মুক্তি
মেরুনীল দাশগুপ্ত

গরিবি যতদিন না যাবে ততদিন এই উপত্যকায় শান্তি আসবে না। কারণ, কাশ্মীরি মানুষের গরিবিই ওদের একটা বড় হাতিয়ার। গরিব মানুষজনের অনেকেই ক’টা টাকার লোভে পড়ে সীমান্তর ওপার থেকে আসা লোকজনকে আশ্রয় দিয়ে, লুকিয়ে রেখে, খাবারদাবারের ব্যবস্থা করে ভ্যালির বিপদ বাড়িয়ে তুলছে।
বিশদ

15th  August, 2019
বনে থাকে বাঘ 
অতনু বিশ্বাস

ছেলেবেলায় ‘সহজ পাঠ’-এ পড়েছিলাম ‘বনে থাকে বাঘ’। যদিও এই পাঠটা যে খুব সহজ আর স্বাভাবিক নাও হতে পারে, অর্থাৎ বনে বাঘ নাও থাকতে পারে, সেটা বুঝতে বেশ বড় হতে হল। ছোটবেলায় অবশ্য মনে বদ্ধমূল ধারণা ছিল, বন-জঙ্গল গিজগিজ করে বাঘে। 
বিশদ

13th  August, 2019
রক্ষক আইন যেন ভক্ষক না হয়
শান্তনু দত্তগুপ্ত 

ভিক্টরি ম্যানসনে ঢুকলেন উইনস্টন স্মিথ। বহুতলে ঢুকেই নজরে আসবে দো’তলা সমান আখাম্বা ছবিটা। শুধু একটা মুখ। নীচে ক্যাপশন করা, বিগ ব্রাদার কিন্তু তোমাকে দেখছে। জর্জ অরওয়েলের কালজয়ী উপন্যাস ১৯৮৪-এর শুরুতেই উল্লেখ এই ছবির। আর এই নভেলের সারমর্মও লুকিয়ে এই ছবিতে—বিগ ব্রাদার দেখছে, তাই সাবধান। সাবধান হও সবাই... সরকারি কর্মচারী, ব্যবসায়ী, সাফাইকর্মী, বেসরকারি চাকুরে... মোদ্দা কথা নারী-পুরুষ নির্বিশেষে। সবসময় নজরদারি।  
বিশদ

13th  August, 2019
পুতিন কি পারবেন নতুন বিশ্বের নেতৃত্ব দিতে?
গৌরীশঙ্কর নাগ

 ১৯১৭ খ্রিস্টব্দে বা তার কিছু আগে থেকে লেনিন, ট্রটস্কি প্রমুখ নিবেদিত প্রাণ কমরেডের হাত ধরে সোভিয়েত সমাজতন্ত্র নামক যে মহীরুহটি ধীরে ধীরে গড়ে উঠেছিল তা গর্বাচেভ ক্ষমতাসীন হওয়ার পর কীভাবে তাসের ঘরের মতো ভেঙে পড়েছে—বিস্ময়ের সঙ্গে আমরা সেটা দেখেছি।
বিশদ

12th  August, 2019
একনজরে
 নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: সবকিছু ঠিক থাকলে আগামী দু’বছরেই দেশের বৃহত্তম সৌরবিদ্যুৎ প্রকল্প তৈরি হবে এ’রাজ্যেই। শনিবার বাইপাস সংলগ্ন এক পাঁচতারা হোটেলে ‘এনার্জি কনক্লেভ’-এ জানালেন রাজ্যের বিদ্যুৎমন্ত্রী শোভনদেব চট্টোপাধ্যায়। তিনি বলেন, প্রকল্পটির প্রস্তাব একটি বেসরকারি সংস্থার পক্ষ থেকে তাঁদের কাছে এসেছে। ...

 ওয়াশিংটন, ২৪ আগস্ট (পিটিআই): জম্মু ও কাশ্মীরের সাম্প্রতিক পরিস্থিতিতে ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যেকার উত্তেজনা প্রশমনে দ্বিমুখী নীতি নিয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। শনিবার একথা জানালেন ট্রাম্প প্রশাসনের এক শীর্ষ পর্যায়ের আধিকারিক। তিনি জানিয়েছেন, একদিকে পাকিস্তানকে চাপে রাখার কৌশল গ্রহণ করা হয়েছে। ...

 দীপ্তিমান মুখোপাধ্যায়, হাওড়া: ডিজিটাল রেশন কার্ড বিলি নিয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ক্ষোভ প্রকাশের পরই পুজোর আগেই রাজ্যের সমস্ত মানুষের হাতে ডিজিটাল রেশন কার্ড পৌঁছে দেওয়ার লক্ষ্য নিল খাদ্য দপ্তর। একই সঙ্গে রেশন কার্ড বিলি নিয়েও বেশ কিছু নিয়মের পরিবর্তন করেছে ...

সংবাদদাতা, কালীগঞ্জ: নাকাশিপাড়ার বেথুয়াডহরি-২ গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকায় থাকা বাজারের ছাদ লিজ দেওয়া নিয়ে তৈরি হয়েছে বিতর্ক। জেলা পরিষদের অধীনে থাকা ওই বাজারে প্রায় ৪০টি ঘর রয়েছে। একতলা ওই বাজারের ছাদ বেআইনি ভাবে একজনকে লিজ দেওয়া হয়েছে বলে অভিযোগ বিজেপির।  ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

কর্মপ্রার্থীদের কর্মপ্রাপ্তি বিলম্ব হবে। ব্যবসা সংক্রান্ত কাজে যুক্ত হলে ফল শুভ হবে। উপার্জন একই থাকবে। ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৫৩০: রাশিয়ার জার ইভান দ্য টেরিবলের জন্ম
১৬০৯: আইনপ্রণেতাদের সামনে প্রথম টেলিস্কোপের প্রদর্শন করলেন জ্যোতির্বিজ্ঞানী গ্যালিলিও
১৭৬৮: প্রথম অভিযান শুরু করলেন জেমস কুক
১৮৫৭: ইংরেজ বিজ্ঞানী মাইকেল ফ্যারাডের মৃত্যু
১৯০০: জার্মান দার্শনিক ফ্রেডরিক নিটশের মৃত্যু
১৯৩০: জেমস বন্ড খ্যাত অভিনেতা শঁকনেরির জন্ম
১৯৪৪: দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে প্যারিসকে মুক্ত করল মিত্রশক্তি
১৯৬২: সাহিত্যিক তসলিমা নাসরিনের জন্ম
১৯৯১: সোভিয়েত ইউনিয়নের থেকে স্বাধীনতা লাভ করল বেলারুশ
২০১২: চন্দ্রে অবতরণকারী প্রথম মানুষ নিল আর্মস্ট্রংয়ের মূত্যু

ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭০.৭৯ টাকা ৭২.৪৯ টাকা
পাউন্ড ৮৫.৩৪ টাকা ৮৮.৫১ টাকা
ইউরো ৭৭.৯৮ টাকা ৮০.৯৪ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
23rd  August, 2019
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৩৯, ০২৫ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩৭, ০২৫ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৩৭, ৫৮০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৪৪, ৮৫০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৪৪. ৯৫০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

৮ ভাদ্র ১৪২৬, ২৫ আগস্ট ২০১৯, রবিবার, নবমী ৭/৬ দিবা ৮/১১। মৃগশিরা ৫৬/৩৬ রাত্রি ৩/৫৯। সূ উ ৫/২০/২০, অ ৫/৫৭/৩০, অমৃতযোগ দিবা ৬/১০ গতে ৯/৩২ মধ্যে। রাত্রি ৭/২৯ গতে ৯/০ মধ্যে, বারবেলা ১০/৪ গতে ১/১৩ মধ্যে, কালরাত্রি ১/৪ গতে ২/৩০ মধ্যে।
৭ ভাদ্র ১৪২৬, ২৫ আগস্ট ২০১৯, রবিবার, দশমী ৫২/২/৫৪ রাত্রি ২/৮/১১। মৃগশিরানক্ষত্র ৪৭/৫১/৪৮ রাত্রি ১২/২৭/৪৪, সূ উ ৫/১৯/১, অ ৬/০/২১, অমৃতযোগ দিবা ৬/১১ গতে ৯/৩১ মধ্যে এবং রাত্রি ৭/২৪ গতে ৮/৫০ মধ্যে, বারবেলা ১০/৪/৩১ গতে ১১/৩৯/৪১ মধ্যে, কালবেলা ১১/৩৯/৪১ গতে ১/১৪/৫১ মধ্যে, কালরাত্রি ১/৪/৩১ গতে ২/২৯/২১ মধ্যে।
২৩ জেলহজ্জ

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
পিস হাভেনের সামনে ভেঙে পড়ল পোর্টিকো 
পিস হাভেনের সামনে ভেঙে পড়ল পোর্টিকো। এদিন সন্ধ্যার সময় পিস ...বিশদ

09:22:00 PM

ব্যাডমিন্টন বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন পি ভি সিন্ধু 

06:22:00 PM

জল জমার প্রতিবাদে সোদপুরের এইচবি টাউনে স্থানীয়দের অবরোধ

03:56:55 PM

মালদহের মোথাবাড়িতে প্রতিবেশীকে ইট দিয়ে থেঁতলে খুনের অভিযোগ 
জায়গা সংক্রান্ত বিবাদের জেরে প্রতিবেশীকে ইট দিয়ে থেঁতলে খুনের অভিযোগ। ...বিশদ

02:29:00 PM

বারুইপুর কেন্দ্রীয় সংশোধনাগারে জেলকর্মীর কাছে মিলল গাঁজা
বারুইপুর কেন্দ্রীয় সংশোধনাগার এক জেলকর্মীর কাছ থেকে উদ্ধার হল গাঁজা। ...বিশদ

01:52:00 PM

আজ জাতীয় চক্ষুদান দিবসে ট্যুইট মমতার 
আজ জাতীয় চক্ষুদান দিবস উপলক্ষে ট্যুইট করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ...বিশদ

01:44:00 PM