Bartaman Patrika
বিশেষ নিবন্ধ
 

জাতির গঠনে জাতীয় শিক্ষানীতি
গৌরী বন্দ্যোপাধ্যায়

অভিধান অনুসরণ করে বলা যায়, পঠন-পাঠন ক্রিয়াসহ বিভিন্ন অভিজ্ঞতালব্ধ মূল্যবোধের বিকাশ ঘটানোর প্রক্রিয়াই শিক্ষা। জ্ঞানকে বলা হচ্ছে অভিজ্ঞতালব্ধ প্রতীতি। শিক্ষা দ্বারা অর্জিত বিশেষ জ্ঞানকে আমরা বিদ্যা বলি। কালের কষ্টিপাথরে যাচাই করে মানুষ আবহমান কাল ধরে নিজ অভিজ্ঞতালব্ধ জ্ঞানরাশিকে পরবর্তী প্রজন্মের জন্য পুস্তকের মধ্যে লিখে সঞ্চিত করে গেছে। বিদ্যাশিক্ষা আমাদের সেই জ্ঞানের সঙ্গে পরিচিত করায়। আমাদের বুদ্ধি মন ইত্যাদিকে গড়ে তোলার সঙ্গে নানা ব্যবহারিক বিদ্যার জ্ঞান মানুষকে জীবিকা নির্বাহ করার উপযোগীও করে তোলে। প্রত্যেক দেশ তার প্রাকৃতিক ও সামাজিক পরিবেশের সঙ্গে সঙ্গতি রেখে অধিবাসীদের সামগ্রিক বিকাশের লক্ষ্যে নিজেদের শিক্ষানীতি স্থির করে।
শিক্ষাকে জাতির মেরুদণ্ড বলা হয়। তাই দেশের শিক্ষানীতি অত্যন্ত বিচক্ষণতার সঙ্গে স্থির করতে হয়, যাতে জাতির সেই মেরুদণ্ড সবল ও ঋজু হয়। ভারতের মতো বহু ভাষাভাষীর দেশে, এক দেহে লীন হয়ে যাওয়া বহুজাতির দেশে সবার উপযোগী ও জনপ্রিয় এক শিক্ষানীতি স্থির করা অতি কঠিন ব্যাপার। শিক্ষার বিষয় নির্বাচনে তেমন জটিলতা না থাকলেও শিক্ষার মাধ্যম হিসাবে ভাষা নির্বাচনে সর্বভারতীয় শিক্ষানীতি বারবার নানা বাধার সম্মুখীন হয়ে আসছে। এই বিশ্বায়নের যুগে কীভাবে শিক্ষা পেয়ে আমাদের ছেলেমেয়েরা নিজেদের অস্মিতা রক্ষা করে, নিজেদের ব্যক্তিত্বের বিকাশ ঘটিয়ে বিশ্বের সঙ্গে একাত্ম হয়ে উঠতে পারবে তা স্থির করা এক দুরূহ ব্যাপার।
ভাষা মানুষকে যুক্ত করে, ‘বসুধৈব কুটুম্বকম’-এর পথে প্রেরিত করে। পরিস্থিতি ও প্রেক্ষাপটের পরিবর্তনের সঙ্গে মাতৃভাষা ছাড়া অন্য সব ভাষারই গুরুত্বের হ্রাস-বৃদ্ধি ঘটে। যেমন শিক্ষিত ভারতীয়রা আর ফারসি পড়ে না। ভারতে ইংরেজির দাপট থাকলেও ইউরোপের মূল ভূখণ্ডের দেশগুলিতে বা রাশিয়া, চীনসহ মধ্য এশিয়ায় ইংরেজির তেমন দাপট নেই। কথোপকথনের জন্য ভাষার ব্যবধান দূর করতে বর্তমানে নানা প্রযুক্তির উদ্ভব হয়েছে। ভারতে উচ্চশিক্ষার ক্ষেত্রে এখনও আমরা ইংরেজির দ্বারস্থ হই, তাই মাধ্যমিক পর্যায়ে এখনও ছাত্রছাত্রীদের এমনভাবে ইংরেজি শেখানো দরকার যাতে তারা উচ্চশিক্ষা গ্রহণের সময় ইংরেজিতে শেখার অসুবিধায় মাঝপথে পড়া ছেড়ে না দেয় বা হীনম্মন্যতায় ভুগে আত্মহত্যা না করে। ইংরেজি শিক্ষা কোন পর্যায়ে রাখা হবে তা অত্যন্ত বিচক্ষণতার সঙ্গে স্থির করা দরকার। রবীন্দ্রনাথ লিখে গেছেন ইংরেজি কাজের ভাষা, ‘ভাবের ভাষা নয়’। তাঁর মতে সেই কাজের ভাষা বাল্যাবস্থায় শিখতে গিয়ে ‘শিশুরা সব কূল হারায়’। না হয় তাদের ‘প্রকৃতির সত্যরাজ্যে প্রবেশ করিবার অবকাশ’, না হয় তাদের ‘সাহিত্যের কল্পনা রাজ্যে প্রবেশ করার ক্ষমতা’। তিনি স্পষ্ট ভাষায় বলেছেন ‘বাঙালির ভাব ইংরেজের ভাষায় তেমন জীবন্তরূপে প্রকাশিত হয় না’। তার ধারণায় ভাষা শিক্ষার সঙ্গে ভাব যুক্ত হলে সমস্ত জীবনযাত্রাই নিয়মিত হতে পারে। সেই সঙ্গে বাংলা পাঠ্যগ্রন্থের মান সম্পর্কে বলেছেন ‘অনভিজ্ঞ ম্যাকমিলান কোম্পানির রচিত, অতি সংকীর্ণ, অতি দরিদ্র এবং বিকৃত বাংলা পাঠ্যগ্রন্থ পড়িয়া বাঙালি ছেলেকে মানুষ হইতে হইবে... যাহাতে নিরপেক্ষ উদার জ্ঞানচর্চা পলিটিক্যাল প্রয়োজন সিদ্ধির কাছে খণ্ডিত হইয়া যায়।’ উদ্ধৃত রবীন্দ্রনাথের সবকটি উপলব্ধিই এখনও সমভাবে সত্য।
বিদ্যালয়ে প্রাথমিক পর্যায়কে রাখা উচিত প্রধানত মাতৃভাষার ভিত তৈরি করার জন্য। এই পর্যায়ে ইংরেজি অক্ষর পরিচয়, বহু ব্যবহৃত কিছু শব্দের অর্থ জানা ও ছড়ার মাধ্যমে বাক্য গঠনের জ্ঞান হলেই যথেষ্ট। প্রাথমিক পর্যায়ে মাতৃভাষার পাঠ্য এমন হওয়া উচিত যা ছাত্রছাত্রীরা আগ্রহ নিয়ে আনন্দের সঙ্গে পড়বে। ‘পলিটিক্যাল প্রয়োজন সিদ্ধির’ ব্যাপারটি যেন সেখানে কখনওই না আসে। মাতৃভাষার সঙ্গে মানুষের নাড়ির যোগ থাকে। সেই যোগকে ভুলিয়ে দেওয়ার চেষ্টা না করে তাকে বলিষ্ঠ করার শিক্ষার উদ্দেশ্য হওয়া উচিত। এ প্রসঙ্গে আবার রবীন্দ্রনাথের শরণ নিলাম। তিনি লিখছেন বিদ্যার্থীরা যদি আনন্দের সঙ্গে কোনও কিছু পাঠ করে তবে তাঁদের ‘পড়িবার শক্তি অলক্ষিতভাবে বৃদ্ধি পাইতে থাকে; গ্রহণশক্তি, ধারণশক্তি, চিন্তাশক্তি বেশ সহজে এবং স্বাভাবিক নিয়মে বললাভ করে।’ রবীন্দ্রনাথের এই পর্যবেক্ষণ এক চিরকালীন সত্য।
প্রাচীন গুরুকুল, চতুষ্পাঠী ও টোলের শিক্ষাব্যবস্থাকে সরিয়ে রেখে বাংলায় আধুনিক শিক্ষাব্যবস্থার পথিকৃৎ ছিলেন পণ্ডিত ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর মহাশয়। এক অসাধারণ প্রতিভার অধিকারী সেই মানুষটি মাত্র উনিশ বছর বয়সেই বিদ্যাসাগর উপাধি লাভ করেছিলেন। একুশ বছর বয়সে তিনি ফোর্ট উইলিয়ামে হেড পণ্ডিতের পদে নিযুক্ত হন। তিনি বুঝতেন এবং সর্বত্র বলতেন সংস্কৃতের মাধ্যমেই ভারতীয়রা দেশের ঐতিহ্য, জাতিতত্ত্ব, ভাষাতত্ত্ব ও প্রাচীন ইতিহাস নির্ভুলভাবে জানতে পারবে। আমার দেশ সম্বন্ধে অন্যের লেখা পড়ে সঠিক জ্ঞান হয় না। সংস্কৃত কলেজে অধ্যক্ষ থাকাকালীন তিনি সেই কলেজে প্রবেশাধিকার কেবলমাত্র উচ্চবর্ণের জন্য সংরক্ষিত না রেখে সবার জন্য উন্মুক্ত করে দিয়েছিলেন। সংস্কৃত ভাষার গুরুত্ব আধুনিক বিশ্বের অন্যত্রও পণ্ডিতেরা স্বীকার করেন। পৃথিবীর সকল ভাষার মধ্যে সংস্কৃত সর্বাধিক কম্প্যুটার ফ্রেন্ডলি বা সংগণক বান্ধব ভাষা হিসাবে স্বীকৃতি পেয়েছে। তাঁদের মতে একমাত্র এই ভাষার সাহায্যে মূল শব্দের সঙ্গে সম্বন্ধ রেখে অসংখ্য নতুন শব্দের সৃষ্টি করা সম্ভব।
ভারতে প্রায় সমস্ত ভাষারই মূল প্রোথিত রয়েছে সংস্কৃতে। শুধু তাই নয়, সংস্কৃতের সঙ্গে সম্বন্ধিত ভাষা হল গ্রিক, ল্যাটিন, আবেস্তীয় ও প্রাচীন পারসিক ভাষাও। বিন্ধ্য পর্বতের উত্তরে ও দক্ষিণে সমগ্র ভারতকে একাত্ম করতে সক্ষম অন্য কোনও ভাষা নয়—শুধুমাত্র সংস্কৃত। বলা হয় দাক্ষিণাত্যের সঙ্গে উত্তর ভারতের সাংস্কৃতিক মেলবন্ধনের জনক ছিলেন মহামুনি অগস্ত্য। তাঁর দ্বারাই তাম্রপর্ণী নদীর তীরে তামিল ভাষার বিকাশ হয়। আধুনিক তামিল ভাষা দু’হাজার বছরেরও বেশি প্রাচীন। শুধু দ্রাবিড় গোষ্ঠীরই নয়, অধুনা বিকশিত সব ভারতীয় ভাষার মধ্যে তামিলই সর্বপ্রাচীন এক সমৃদ্ধ ভাষা। অধুনা ধ্বনিগত বৈশিষ্ট্যের জন্য দ্রাবিড় গোষ্ঠীর ভাষাগুলিতে সংস্কৃত ও অন্যান্য প্রাকৃত ভাষাগুলির উপস্থিতি পরিচিতি লাগে না। তারা নিজেরাও অনেক সময়ে সংস্কৃত মূলের সঙ্গে নিজেদের যোগ বুঝতে পারে না। সংস্কৃত ভাষা সমগ্র ভারতকে একাত্ম করতে সক্ষম এ কথা বুঝেছিলেন আমাদের সংবিধানের রচয়িতা বাবাসাহেব আম্বেদকরও। তিনি বলেছিলেন ভারতের রাষ্ট্রভাষা হওয়া উচিত সংস্কৃত। সংস্কৃত শিক্ষার ব্যাপারে আমাদের শিক্ষানীতির নির্ধারকদের সজাগ থাকা প্রয়োজন। মাধ্যমিক পর্যায়ে সংস্কৃত সারা দেশে অবশ্যপাঠ্য হওয়া উচিত। এতৎ সঙ্গে দ্রাবিড় অস্মিতাকে উত্তর ভারতে মান্যতা দিয়ে দক্ষিণ ভারতে হিন্দির স্বীকৃতির পথও প্রশস্ত করা প্রয়োজন।
বর্তমানের প্রেক্ষিতে সর্বভারতীয় যোগাযোগের মাধ্যম হিসাবে হিন্দির প্রতিষ্ঠাকে অস্বীকার করা যায় না। সংস্কৃত শেখার সময়েই দেবনাগরী লিপির সঙ্গে পরিচয় হয়ে যায়। হিন্দিতে বার্তালাপের জন্য বিশেষ প্রয়াসের প্রয়োজন আছে বলে মনে হয় না। নানা মাধ্যমের সাহায্যে ভারতের সর্বত্র, এমনকী ঘোর হিন্দি বিরোধী রাজ্য যেমন তামিলনাড়ু বা মণিপুরেও লোকে হিন্দিতে কথা বলতে শিখে যায়। হিন্দি জোর করে চাপিয়ে দেওয়ার প্রয়োজন নেই। হিন্দি বুঝতে, পড়তে (সংস্কৃতের দৌলতে) বা বলতে অসুবিধা না থাকলেই রাষ্ট্রভাষার মর্যাদা হয়ে যায়। তার সঙ্গে হিন্দি সাহিত্যের পরিচয় থাকলে আরও ভালো। হিন্দি সাহিত্যের সর্বাধিক ঋদ্ধ ও কালজয়ী অংশ রয়েছে মধ্যযুগের কবিদের রচনায়। পাঠক্রমের কোনও একটা পর্যায়ে ছাত্রছাত্রীদের সেই রচনাগুলির সঙ্গে পরিচয় হওয়া উচিত। বিদ্যাসাগর সম্পর্কিত একটি রচনায় জানতে পারি ফোর্ট উইলিয়ামে অধ্যাপনা করার সময়ে তিনি যত্নসহকারে হিন্দি ও ইংরেজি শিখেছিলেন।
রবীন্দ্রনাথের উদাহরণ দিয়েই আরও একটি সর্বকালীন সত্যের কথা বলি। তিনি ছিলেন নোবেল পুরস্কারজয়ী, কলিকাতা ও অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের ডক্টরেট উপাধিপ্রাপ্ত। কিন্তু তিনি স্কুলের প্রথাগত পাঠ সম্পূর্ণ করতে পারেননি। তিনি পাঠে অমনোযোগী ছিলেন না বা তাঁর ধীশক্তিরও অভাব ছিল না। স্কুলের প্রতি তাঁর বিরাগের কারণ হিসাবে নিজের নানা রচনায় কখনও শিক্ষক, কখনও পাঠ্যপুস্তক আবার কখনও বা প্রতিষ্ঠানকে নিজের বিদ্যালয় বিমুখতার কারণ হিসাবে লিখেছেন। ছাত্রের মনোযোগকে ধরে রাখার জন্য শিক্ষকের ভূমিকা অসীম। বিদ্যালয়গুলি যেন ছাত্রদের মনে বিরাগ ও বিরক্তি উৎপাদন না করে সে ব্যাপারটিও গুরুত্বপূর্ণ। সর্বোপরি পাঠ্যবিষয় নির্বাচনের গুরুত্ব অসীম। নির্বাচকেরা ছাত্রছাত্রীদের জন্য মাতৃভাষা, সংস্কৃত, ইংরেজি ও হিন্দির মধ্যে কোন ভাষা কোন পর্যায়ে পড়ানো হবে তা স্থির করবেন ঠিকই কিন্তু কোনও স্তরেই যেন পাঠ্যবিষয়গুলি পলিটিক্যাল ডামাডোলে নষ্ট না হয়ে যায়। বিদ্যালয়ের শ্রেণীকক্ষেই যেন শিক্ষকেরা নিঃশেষে বিদ্যা দান করেন, অসম্পূর্ণভাবে দেওয়া বিদ্যা প্রাইভেট টিউশনের ক্লাসের জন্য তুলে না রাখেন। কোথাও যেন অসম্পূর্ণভাবে বিদ্যাদানের কারণে শিক্ষা অসম্পূর্ণ না থাকে।
 লেখিকা যোগমায়া দেবী কলেজের অবসরপ্রাপ্ত অধ্যাপিকা
09th  September, 2019
জন্মদিনে এক অসাধারণ নেতাকে কুর্নিশ
অমিত শাহ

 আজ, মঙ্গলবার আমাদের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির ৬৯তম জন্মদিন। অল্প বয়স থেকেই মোদিজি নিজেকে দেশের সেবায় উৎসর্গ করেছেন। যৌবন থেকেই তাঁর মধ্যে পিছিয়ে পড়া শ্রেণীর উন্নয়নে কাজের একটি প্রবণতা লক্ষ করা যায়। দরিদ্র পরিবারে জন্মগ্রহণের কারণে মোদিজির শৈশবটা খুব সুখের ছিল না। বিশদ

17th  September, 2019
ব্যাঙ্ক-সংযুক্তিকরণ কতটা সাধারণ মানুষ এবং সামগ্রিক ব্যাঙ্কব্যবস্থার উন্নতির স্বার্থে?
সঞ্জয় মুখোপাধ্যায়

অনেকগুলি ব্যাঙ্ক সংযুক্ত করে দেশে সরকারি ব্যাঙ্কের সংখ্যা কমিয়ে আনা হল আর সংযুক্তির পর চারটি এমন বেশ বড় ব্যাঙ্ক তৈরি হল, আকার আয়তনে সেগুলিকে খুব বড় মাপের ব্যাঙ্কের তকমা দেওয়া যাবে। এসব ঘোষণার পর অর্থমন্ত্রীর বক্তব্য, এতে দেশের অর্থনীতির খুব উপকার হবে।  
বিশদ

16th  September, 2019
রাজনীতির উত্তাপ কি পুজোর আমেজ
জমে ওঠার পথে বাধা হয়ে দাঁড়াচ্ছে?
শুভা দত্ত

 পরিস্থিতি যা তাতে এমন কথা উঠলে আশ্চর্যের কিছু নেই। উঠতেই পারে, উঠছেও। বাঙালির সবচেয়ে বড় উৎসবের মুখে প্রায় প্রতিদিনই যদি কিছু না কিছু নিয়ে নগরী মহানগরীর রাজপথে ধুন্ধুমার কাণ্ড ঘটে, পুলিস জলকামান, লাঠিসোঁটা, কাঁদানে গ্যাস, ইটবৃষ্টি, মারদাঙ্গা, রক্তারক্তিতে যদি প্রায় যুদ্ধ পরিস্থিতির সৃষ্টি হয় এবং তাতে সংশ্লিষ্ট এলাকার জনজীবন ব্যবসাপত্তর উৎসবের মরশুমি বাজার কিছু সময়ের জন্য বিপর্যস্ত হয়ে পড়ে তবে এমন কথা এমন প্রশ্ন ওঠাই তো স্বাভাবিক।
বিশদ

15th  September, 2019
আমেরিকায় মধ্যবয়সের
সঙ্গী সোশ্যাল মিডিয়া
আলোলিকা মুখোপাধ্যায়

যে বয়সে পৌঁছে দূরের আত্মীয়স্বজন ও পুরনো বন্ধুদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখা ক্রমশ আগের মতো সম্ভব হয় না, সেই প্রৌঢ় ও বৃদ্ধ-বৃদ্ধার জীবনে ইন্টারনেট এক প্রয়োজনীয় ভূমিকা নিয়েছে। প্রয়োজনীয় এই কারণে যে, নিঃসঙ্গতা এমন এক উপসর্গ যা বয়স্ক মানুষদের শরীর ও মনের উপর প্রভাব ফেলে। বিশদ

14th  September, 2019
মোদি সরকারের অভূতপূর্ব কাশ্মীর পদক্ষেপ পরবর্তী ভারতীয় কূটনীতির সাফল্য-ব্যর্থতা
গৌরীশঙ্কর নাগ

 এই অবস্থায় এটা অস্বীকার করার উপায় নেই যে, ৩৭০ ধারা বিলোপ পর্বের প্রাথমিক অবস্থাটা আমরা অত্যন্ত উৎকণ্ঠার মধ্য দিয়ে অতিক্রম করেছি।
বিশদ

14th  September, 2019
ব্যর্থতা নয়, অভিনন্দনই
প্রাপ্য ইসরোর বিজ্ঞানীদের
মৃণালকান্তি দাস

 কালামের জেদেই ভেঙে পড়েছিল ইসরোর রোহিনী। না, তারপরেও এ পি জে আব্দুল কালামকে সে দিন ‘ফায়ার’ করেননি ইসরোর তদানীন্তন চেয়ারম্যান সতীশ ধাওয়ান! বলেননি, ‘দায়িত্ব থেকে সরিয়ে দেওয়া হল কালামকে’! তার এক বছরের মধ্যেই ধরা দিয়েছিল সাফল্য। ধাওয়ানের নির্দেশে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়েছিলেন সেই কালাম-ই। তাঁর কথায়, ‘ওই দিন আমি খুব গুরুত্বপূর্ণ পাঠ পেয়েছিলাম। ব্যর্থতা এলে তার দায় সংস্থার প্রধানের। কিন্তু,সাফল্য পেলে তা দলের সকলের। এটা কোনও পুঁথি পড়ে আমাকে শিখতে হয়নি। এটা অভিজ্ঞতা থেকে অর্জিত।’ বিশদ

13th  September, 2019
রাষ্ট্রহীনতার যন্ত্রণা
শান্তনু দত্তগুপ্ত

ভিক্টর নাভরস্কি নিউ ইয়র্কের জন এফ কেনেডি বিমানবন্দরের ইমিগ্রেশনের লাইনে দাঁড়িয়ে আবিষ্কার করলেন, তিনি আচমকাই ‘রাষ্ট্রহীন’ হয়ে পড়েছেন। কারণ, তাঁর দেশ ক্রাকোজিয়ায় গৃহযুদ্ধ শুরু হয়েছে। পরিস্থিতি এতটাই জটিল যে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মতো দেশগুলির কাছে মানবিকতার নিরিখে ক্রাকোজিয়ার আর কোনও ‘অস্তিত্ব’ নেই।
বিশদ

10th  September, 2019
আন্তর্জাতিক সম্পর্কের শতবর্ষে ভারত প্রান্তিক রাষ্ট্র থেকে প্রথম দশে, লক্ষ্য শীর্ষস্থান
বিশ্বনাথ চক্রবর্তী

 প্রথম বিশ্বযুদ্ধ সমাপ্তির মুখে উড্রো উইলসন সমেত বিশ্বের তাবড় নেতারা প্রথম বিশ্বযুদ্ধের ভয়াবহতা দেখে শঙ্কিত হয়ে পড়েন। যুদ্ধের রাহুর গ্রাস থেকে এই সুন্দর পৃথিবীকে কীভাবে রক্ষা করা যায় তা নিয়ে তাঁরা চিন্তিত ছিলেন। উইলসন বুঝতে পেরেছিলেন মানুষের মগজে রয়েছে যুদ্ধের অভিলাষ। যুদ্ধভাবনা মুছে ফেলে শান্তিভাবনা প্রতিষ্ঠা করা দরকার।
বিশদ

09th  September, 2019
পুজোর মুখে বিপর্যয়: ঘরে বাইরে

 দুর্ঘটনা বিপর্যয় তো আর জানান দিয়ে আসে না! নেপালের ভূমিকম্প কি আমাদের আয়েলার মতো প্রাকৃতিক বিপর্যয়ে কত মানুষ ঘর-সংসার সব হারিয়ে রাতারাতি সর্বস্বান্ত হয়েছেন, কত সংসার উজাড় হয়ে গেছে—শত চেষ্টাতেও সেই ক্ষত পুরোটা পূরণ করা গিয়েছে কি? যায়নি। এই বউবাজারে রশিদ জমানার সেই ভয়ানক বিস্ফোরণের পর কত লোকের কত সর্বনাশ হয়েছিল—কজন তার বিহিত পেয়েছিলেন? মেট্রো রেলের সুড়ঙ্গ কাটতে গিয়ে সেপ্টেম্বরের শুরুতে বউবাজারে বাড়ি ধসে যে ক্ষতি বাসিন্দাদের হল তাতে তাই ‘অপূরণীয় ক্ষতি’ বললে কিছুমাত্র ভুল হয় না। বিশদ

08th  September, 2019
বন্ধ হোক বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় পঞ্চায়েত দখল
তন্ময় মল্লিক

পঞ্চায়েত কারও চোখে স্থানীয় সরকার, কারও চোখে উন্নয়নের হাতিয়ার, কারও চোখে চোর তৈরির কারখানা। পঞ্চায়েত সম্পর্কে মানুষের দৃষ্টিভঙ্গি ভিন্ন হলেও একটা ব্যাপারে প্রায় সকলেই এক মত, পঞ্চায়েত আসলে মধুভাণ্ড। এই মধুভাণ্ডের নাগাল পাওয়া নিয়েই যত মারামারি, বোমাবাজি, খুনোখুনি। এই পঞ্চায়েতই নাকি এবার পশ্চিমবঙ্গের লোকসভা ভোটে ওলট-পালটের নাটের গুরু।
বিশদ

07th  September, 2019
অজানা ভবিষ্যৎ
সমৃদ্ধ দত্ত

টাকা কোথায় গেল? একের পর এক গ্রামবাসীর টাকা উধাও। সকলে সেই অফিসে আবার গেলেন। তারা এবার ভালো করে কম্পিউটার চেক করে বললেন, তোমাদের আগে যে ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট ছিল সেটা তো চেঞ্জ হয়েছে। এখানে নতুন এক অ্যাকাউন্ট দেখাচ্ছে। ওখানেই গেছে টাকা। প্রমোদকুমাররা জানেই না কোথায় নতুন অ্যাকাউন্ট! এক সহৃদয় ব্যাঙ্ককর্মী আবিষ্কার করলেন মোবাইল সার্ভিস প্রভাইডার কোম্পানি পেমেন্ট ব্যাঙ্ক চালু করেছে। ওই যে ফোনে আধার নম্বর চাওয়া হল এবং প্রমোদকুমাররা গিয়ে লিংক করিয়ে এলেন, আসলে ওই আধার নম্বরের মাধ্যমে তাঁদের অজ্ঞাতেই তাঁদের নামে পেমেন্ট ব্যাঙ্ক ‌অ্যাকাউন্ট চালু হয়ে গিয়ে সেই অ্যাকাউন্টই শো করতে শুরু করেছে সরকারি দপ্তরে। আর সব টাকা সেখানে যাচ্ছে।
বিশদ

06th  September, 2019
নিজেকে জিজ্ঞেস করো, দেশের জন্য কী করতে পার
মৃণালকান্তি দাস

হোয়াইট হাউস-এর  পবিত্রতা নষ্ট করার দুর্নাম জুটেছিল কি না বেচারি বিল ক্লিন্টনের!‌ তখনও নাকি মার্কিন আম জনতা মুখ বেঁকিয়ে বলেছিল,  কোথায় মেরিলিন মনরো,  আর কোথায় মনিকা লিউইনস্কি!‌ তবে, মনরো–কেনেডির এই প্রেম রীতিমত ঢাক–ঢোল পিটিয়ে উদ্‌যাপিত হয়েছে মার্কিন গণজীবনে। ১৯ মে ১৯৬২। কেনেডির আসল জন্মদিনের ১০ দিন আগেই উৎসব হয়েছিল নিউ ইয়র্কের ম্যাডিসন স্কোয়্যার গার্ডেনে। ১৫ হাজার অতিথির তালিকায় তাবড় রাজনীতিক ও হলিউড সেলেবদের ছড়াছড়ি। বিরাট কনসার্টে মারিয়া কালাস,  এলা ফিটজেরাল্ড-এর মতো ডাকসাইটে শিল্পীদের পাশাপাশি মেরিলিন মনরো!‌ ইতিহাস হয়ে গিয়েছে সেই সন্ধ্যায় মনরোর গাওয়া  ‘হ্যাপি বার্থডে টু ইউ মিস্টার প্রেসিডেন্ট’।  
বিশদ

06th  September, 2019
একনজরে
বাপ্পাদিত্য রায়চৌধুরী, কলকাতা: ঠিকা কর্মীদের মাইনে নেই মাসের পর মাস। বিএসএনএলের পরিষেবা অনেকটাই নির্ভর করে তাঁদের উপর। তাই পরিষেবাও লাটে উঠেছে। মরার উপর খাঁড়ার ঘায়ের ...

 ইসলামাবাদ, ১৭ সেপ্টেম্বর (পিটিআই): আংশিক স্বস্তি পেলেন পাকিস্তানের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফের কন্যা মারিয়ম শরিফ। দলের সহ সভানেত্রী পদে থাকার ক্ষেত্রে তাঁর আর কোনও বাধা রইল না। তবে, দলের কার্যকরী কোনও পদে তিনি বসতে পারবেন না। ...

 নয়াদিল্লি, ১৭ সেপ্টেম্বর (পিটিআই): দেশের আর্থিক মন্দা নিয়ে ফের সরব কংগ্রেস নেত্রী প্রিয়াঙ্কা গান্ধী। দেশের অর্থনীতির বিপর্যয়ের দায় এড়াতে পারে না মোদি সরকার। নজর ঘোরানোর ...

 নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: সল্টলেক তথা বিধাননগরে জল চুরি রুখতে লাগাতার অভিযান চলছে। এবার আর শুধু সাধারণ স্থানীয় বাসিন্দা নন, এলাকার ‘রাঘববোয়াল’দের দিকেও নজর রয়েছে বিধাননগর পুরসভার। সূত্রের খবর, একাধিক হোটেল, রেস্তরাঁ, বেসরকারি কোম্পানি এই তালিকায় রয়েছে। ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

কর্মক্ষেত্রে অশান্তি সম্ভাবনা। মাতৃস্থানীয় কারও শরীর-স্বাস্থ্যের অবনতি। প্রেমে সফলতা। বাহন ক্রয়-বিক্রয়ের যোগ। সন্তানের বিদ্যা-শিক্ষায় উন্নতি।প্রতিকার— ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

আন্তর্জাতিক সফটওয়্যার স্বাধীনতা দিবস
১৫০২ - কোস্টারিকা আবিষ্কার করেন ক্রিস্টোফার কলম্বাস
১৮৯৯- সাহিত্যিক ও চিন্তাবিদ রাজনারায়ণ বসুর মৃত্যু
১৯৫০- অভিনেত্রী শাবানা আজমির জন্ম
১৯৭৬- ব্রাজিলের ফুটবলার রোনাল্ডোর জন্ম
২০০৬- ফুটবলার সুদীপ চট্টোপাধ্যায়ের মৃত্যু

ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭১.০২ টাকা ৭২.৭৩ টাকা
পাউন্ড ৮৭.৬০ টাকা ৯০.৮০ টাকা
ইউরো ৭৭.৬২ টাকা ৮০.৬২ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৩৮,৪৩০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩৬,৪৬০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৩৭,০০৫ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৪৬,৩৫০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৪৬,৪৫০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

১ আশ্বিন ১৪২৬, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯, বুধবার, চতুর্থী ৩১/৫১ সন্ধ্যা ৬/১২। অশ্বিনী ৩/১১ দিবা ৬/৪৪। সূ উ ৫/২৭/৩১, অ ৫/৩৪/৪১, অমৃতযোগ দিবা ৬/১৫ মধ্যে পুনঃ ৭/৪ গতে ৭/৫৩ মধ্যে পুনঃ ১০/১৮ গতে ১২/৪৪ মধ্যে। রাত্রি ৬/২২ গতে ৭/১০ মধ্যে পুনঃ ৮/৪৫ গতে ৩/৫ মধ্যে, বারবেলা ৮/২৯ গতে ১০/০ মধ্যে পুনঃ ১১/৩১ গতে ১/১ মধ্যে, কালরাত্রি ২/২৯ গতে ৩/৫৮ মধ্যে।
৩১ ভাদ্র ১৪২৬, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯, বুধবার, চতুর্থী ২৪/৪০/১০ দিবা ৩/১৯/১৪। অশ্বিনী ০/৫/৪৪ প্রাতঃ ৫/২৯/২৮, সূ উ ৫/২৭/১০, অ ৫/৩৬/৩০, অমৃতযোগ দিবা ৭/২ মধ্যে ও ৯/৩১ গতে ১১/১০ মধ্যে ও ৩/১৮ গতে ৪/৫৭ মধ্যে এবং রাত্রি ৬/৩৩ গতে ৮/৫৩ মধ্যে ও ১/৩১ গতে ৫/২৭ মধ্যে, বারবেলা ১১/৩১/৫০ গতে ১/৩/১ মধ্যে, কালবেলা ৮/২৯/৩০ গতে ১০/০/৪৪ মধ্যে, কালরাত্রি ২/২৯/৩০ গতে ৩/৫৮/২০ মধ্যে। 
১৮ মহরম 

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
মোদিকে তাদের আকাশপথ ব্যবহার করতে দেবে না পাকিস্তান
 

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির মার্কিন সফরের জন্য পাকিস্তানের আকাশপথ ব্যবহার ...বিশদ

08:02:00 PM

দ্বিতীয় টি২০: টসে জিতে বোলিংয়ের সিদ্ধান্ত বিরাট কোহলির 

06:40:25 PM

প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ভালো কথা হয়েছে: মমতা 
দীর্ঘ দিন পর প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে একান্তে বৈঠক করলেন ...বিশদ

05:31:00 PM

খানাকুল ও পুরশুড়া থেকে তৃণমূলে যোগ দিলেন ১২জন
 

খানাকুল ও পুরশুড়া থেকে গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধান সহ ১২ জন ...বিশদ

05:15:00 PM

রেল কর্মীদের জন্য সুখবর 
উৎসবের মরশুমে সুখবর। বুধবার রেলকর্মীদের জন্য ৭৮ দিনের উৎপাদনভিত্তিক বোনাস ...বিশদ

05:13:50 PM

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় 

05:04:26 PM