বিশেষ নিবন্ধ
 

একটু ভেবে বলুন, বিষয়টা জুয়া
সৌম্য বন্দ্যোপাধ্যায়

সম্প্রতি পিঠোপিঠি দুটো খবর প্রকাশিত হয়েছে। একটা বিদেশের, অন্যটা দেশের। দুটো খবরই একে অন্যের সঙ্গে সম্পর্কযুক্ত। নিশ্চয় অনেকেই খবর দুটো পড়েছেন। আমার কাছে দুটো খবরই বেশ ইন্টারেস্টিং লেগেছে। তাই এই নিবন্ধ।
আগে বিদেশের খবরটা বলি।
সৌদি যুবরাজ মাজেদ বিন আবদুল্লা বিন আবদুলাজিজ আল সৌদ দেশে-বিদেশে খুবই আলোচিত নাম। নানা ধরনের নেশা-ভাঙে তাঁর জুড়ি মেলা ভার। যৌন কেলেঙ্কারিও তাঁর পিছু ছাড়ে না। বৈভবের চূড়ায় বাস করেন বলে টাকা-পয়সা খোলামকুচির মতো ব্যবহার করেন। জুয়ায় বসলে যুবরাজের আর হুঁশ থাকে না। পারলে কৌপীনটাও হারাতে রাজি।
যুবরাজ সম্প্রতি মিশর দেশ বেড়াতে গিয়েছিলেন সপরিবারে। পরিবার মানে বিবি, বাচ্চাকাচ্চা, ফাইফরমাশ খাটার বাঁদি এবং নিজের কাছের খিদমতগার। বিবি আবার একটা দুটো নয়। নয় নয় করে ন’জন বিবি তাঁর।
মিশরের বিখ্যাত সিনাই গ্র্যান্ড ক্যাসিনোয় তিনি জুয়ায় বসলেন। পোকার। বেশিক্ষণ নয় মাত্র ছ’ঘণ্টায় তিনি হারলেন ৩৫ কোটি ৯০ লাখ ডলার! হারতে হারতে টাকা ফুরিয়ে গেলে যুবরাজ একে একে বাজি রাখলেন পাঁচ বিবিকে। হুঁশ ফিরল যখন, দেখলেন, মাত্র চার বিবি অবশিষ্ট! তাঁদের বগলদাবা করে ফিরে গেলেন দেশে।
ঘটনার পর ক্যাসিনোর ডিরেক্টর আলি শামুন জানান, অনেকেই পশু-পাখি, ঘোড়া-উট বাজি রেখে টাকা নেয়। পরে টাকা ফেরত দিয়ে সেসব ছাড়িয়েও নেয়। মেয়েমানুষ বা স্ত্রী বাজি রাখার ঘটনা একেবারেই যে ঘটে না তা নয়। তবে খুব কম। অনেক আরব দেশে এই নজির আছে। এমন কাজ আইনত সিদ্ধও। এ ক্ষেত্রে পাঁচ বউয়ের বিনিময়ে যুবরাজ আড়াই কোটি ডলার ক্যাসিনো থেকে ধার নেন। কিন্তু হেরে যাওয়ার পর টাকা দিয়ে বউ ফেরত না নিয়েই দেশে ফিরে গিয়েছেন।
এটা আপাতত মিশর সরকারের মাথাব্যথা। কী করবে তারা এখনও অজানা। যুবরাজ নিজে বা রয়্যাল ফ্যামিলির কেউ টাকা শোধ দিয়ে বিবিদের না ফেরালে কী হবে? মিশরের বিদেশমন্ত্রী সামেহ শোকরি বলেছেন, টাকা শোধ করলে পাঁচ বিবিকে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব সৌদিতে পাঠানো হবে। সে বন্দোবস্ত সরকারই করবে। মাসকয়েক অপেক্ষাও তারা করবে সেজন্য।
কিন্তু কেউ যদি ধার শোধ করে তাঁদের ফেরত না নেন? তাহলে ইয়েমেন বা কাতারের আন্তর্জাতিক বাজারে পাঁচ বিবিকে নিলামে চড়ানো হবে। এখন মুশকিল হল, যে আরব দেশগুলি কাতারের সঙ্গে যাবতীয় সম্পর্ক ছেদ করেছে, মিশর তাদের অন্যতম। যুবরাজের ঘটনাটা ঘটেছে ওই সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগে। এর মানে কাতারের বাজার মিশরীয়দের জন্য বন্ধ। নিলামের জন্য খোলা থাকছে শুধু ইয়েমেন।
সৌদি নারীদের কপাল কত খারাপ, কিংবা নারী প্রগতি বা স্বাধীনতার বিষয় নিয়ে আমি আলোচনায় বসিনি। এই নিবন্ধের মূল বিষয় জুয়া। বিষয়টার সঙ্গে আমরা পরিচিত সেই মহাভারতের সময় থেকে। পাশা খেলার কাহিনি আমরা সবাই জানি। গল্প উপন্যাসেও আকছার এসেছে নানাবিধ জুয়া খেলার প্রসঙ্গ । সিনেমাতেও। জুয়ায় বড়লোকের বাউণ্ডুলে ছেলের জেরবার হওয়ার কত কাহিনি আমাদের চারদিকে ছড়িয়েছিটিয়ে আছে। সুপ্রতিষ্ঠিত বাপের সুন্দরী মেয়ের স্বামী তাস ও রেসের মাঠে হেরে হেরে ঘটিবাটি বেচে বস্তিতে উঠে গিয়েছেন, হাত পেতে পেতে স্ত্রীর সব সম্মান শেষ, এমন ঘটনাও ভূরি ভূরি। একটা সিনেমার ডায়লগ মনে পড়ে গেল। এমন এক অভাগীর উদ্দেশে এক বৃদ্ধা বলছেন, ‘অতি বড় সুন্দরী না পায় বর, অতি বড় ঘরনি না পায় ঘর।’
বিস্তারে যাওয়ার আগে দ্বিতীয় খবরটা বলি।
মে মাসের শেষ দিনে ভারতের আইন কমিশন একটা বিজ্ঞপ্তি জারি করেছে। তাতে বলা হয়েছে, বেটিং ও জুয়াকে আইনত সিদ্ধ করা উচিত কি না সে বিষয়ে জনগণ কমিশনের কাছে তাদের মত জানাক। যাঁরা সব ধরনের জুয়াকে আইনি তকমা দিতে চান, তাঁরা তাঁদের যুক্তি দিন। যাঁরা চান না, তাঁরাও তাঁদের যুক্তি দেখান। সব ধরনের যুক্তি বিবেচনা করে কমিশন তার মত জানাবে যাতে সরকার এই বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে পারে।
আইন কমিশনের এই বিজ্ঞপ্তি জারি করার কারণও আছে। বছর খানেক আগে বিচারপতি রাজেন্দ্র মল লোধা ২০১৩ সালের আইপিএল-এ বেটিং ও স্পট ফিক্সিং কেলেঙ্কারির তদন্ত রিপোর্ট দেওয়ার সময় খেলাধুলোর ক্ষেত্রে বেটিংকে আইনি তকমা দেওয়ার সুপারিশ করেছিলেন। লোধা কমিটির সুপারিশ অনুযায়ী সুপ্রিম কোর্ট ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ডের সংস্কারের কাজে হাত দেয়। সেই সময় সর্বোচ্চ আদালত বেটিংয়ের বিষয়টায় সরাসরি হস্তক্ষেপ করেনি। সুপ্রিম কোর্ট মনে করেছিল, এটা করতে গেলে আইন আনা দরকার। তা করার আগে আইন কমিশন বিষয়টা আরও ভালো করে পরীক্ষা করুক। ভালোমন্দ বিচার করুক। তারপর না হয় সিদ্ধান্ত নেওয়া যাবে। সুপ্রিম কোর্টের ওই অভিমতের পরেই মে মাসের ৩১ তারিখ আইন কমিশনের চেয়ারম্যান বিচারপতি বলবীর সিং চৌহান ওই বিজ্ঞপ্তি জারি করেন।
বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, বহুদিন ধরে দেশের বহু মিডিয়াতে বেটিং ও জুয়া নিয়ে লেখালেখি হচ্ছে। বলা হচ্ছে, বেটিং ও বিভিন্ন ধরনের জুয়া ভারতে নিষিদ্ধ হলেও প্রকাশ্যে অথবা গোপনে তা রমরম করে চলছে। কঠোর আইন সত্ত্বেও বন্ধ করা যাচ্ছে না। মূল পান্ডারা অনেকেই দেশের বাইরে থেকে এসব পরিচালনা করছে। অনলাইন জুয়া আর একটা বিষয় যা ঠেকানো প্রায় অসম্ভব। হাজার হাজার কোটি টাকা এই বেআইনি কারবারে খাটছে। বেটিং ও জুয়া সমান্তরাল একটা অর্থনীতি পর্যন্ত চালু করে দিয়েছে। আইনতভাবে রোজগারের টাকা বেআইনিভাবে চলা অনলাইন জুয়ায় দেশের বাইরে চলে গিয়ে কালো টাকায় পরিণত হচ্ছে। বহু পরিবার সর্বস্বান্ত হচ্ছে যেমন, বহু মানুষের কপালও ফিরে যাচ্ছে। জেলেও পচতে হচ্ছে কাউকে কাউকে। কিন্তু মোদ্দা কথা, জিনিসটা বন্ধ করা যাচ্ছে না।
জনগণের কাছে কমিশন বেশ কয়েকটা বিষয় জানতে চেয়েছে। যেমন, বেআইনিভাবে চলা বেটিং ও জুয়াকে আইনত সিদ্ধ ঘোষণা হলে ভালো না খারাপ? আইনগত তকমা দিলে মানুষ বেআইনি পথে হাঁটা ছাড়বে কি না। এতে সরকারের লাভ হবে ঠিকই, কিন্তু ভারতীয় সংস্কৃতি ও ঐতিহ্যের ক্ষেত্রে তা খারাপ হবে কি না। বিষয়টা আইনি হলে সরকারের আয় বাড়বে যেমন, তেমনই কর্মসংস্থানের সুযোগও বেড়ে যাবে। এই দিকে কি তাহলে নজর দেওয়া প্রয়োজন? সব ধরনের জুয়াকে আইনি মর্যাদা দেওয়া নৈতিকতার দিক থেকে উচিত না অনুচিত? আইনি তকমা দেওয়া হলেও যাঁরা জুয়া খেলেন, তাঁরা যাতে সর্বস্বান্ত না হন সেজন্য কোনও রক্ষাকবচ রাখা যায় কি না। আইনি হলে বিদেশি কোম্পানিকে কি এদেশে জুয়া বা বেটিংয়ে অংশগ্রহণ করতে দেওয়া উচিত? এক কথায়, পক্ষে-বিপক্ষে যাবতীয় যুক্তি ও সুপারিশ জনগণকে দিতে বলা হয়েছে যাতে আইন কমিশন তার মনোভাব সরকারের কাছে পাঠাতে পারে। তারপর সেটা সরকারের বিষয়। তারা মনে করলে প্রয়োজনীয় আইন আনবে, মনে না করলে আনবে না।
খবরটা পড়ার পর থেকে আমি বিষয়টা নিয়ে ভেবেই চলেছি। আমাদের কলকাতায় রেসকোর্সে বারদুয়েক ঘোড়দৌড় দেখতে গিয়েছি। বেশ লেগেছিল পরিবেশটা। হাজার হাজার মানুষ বাজি ধরে জিতছে হারছে। কিন্তু হা হুতাশ চোখে পড়েনি। আমার এক বন্ধু কলেজ থেকেই এই নেশায় আচ্ছন্ন ছিল। বৃহস্পতি, শনি ও রবি সে রেসকোর্স যাবেই। বিয়ে-থা করেনি, সংসার ভাসিয়ে দেওয়ার অভিযোগও তাকে শুনতে হয়নি। কয়েকজনকে জানি, যাঁরা প্রতি মাসে নিয়ম করে গোছা গোছা লটারির টিকিট কেনেন। এটাও তো জুয়াই। কেউ কেউ নিশ্চয় টাকা পান। কাগজে তো দেখি অমুখ ফার্স্ট, তমুক সেকেন্ড, তুসুক থার্ড প্রাইজ পেয়েছে। আই লিগের সময় ইন্টারনেটে খেলার লাইভ স্কোর দেখতে গিয়ে দেখেছি একটা কোনায় ‘বেটিং চালু’ লেখা রয়েছে। একটা লাল বিন্দু জ্বলছে নিভছে। তার মানে বেটিং হয় যে না তা নয়। বেটিং বা স্পট ফিক্সিং কিংবা ম্যাচ ফিক্সিংয়ের দুনিয়াটা যে কী বিশাল তার কোনও আন্দাজ সাধারণ মানুষের জানার কথা নয়। আমি শুধু জানি, সবই জুয়ার রকমফের। ঘোড়ার দৌড় যেমন জুয়া, বেটিং যেমন, লটারিও তেমন।
আমি কোনওদিন লটারির টিকিট কাটিনি। মেধা বা শ্রমহীন রোজগারে কোনওদিন আগ্রহী হইনি। কিছু না করে টাকা কামানোয় কেন যেন মন কখনও সায় দেয়নি। কেন যেন আজও মনে হয়, লটারির ফার্স্ট প্রাইজের প্রতি কত মানুষের লোলুপ দৃষ্টি থাকে। কত সাধ, কত বাসনা, কত স্বপ্ন। এত মানুষকে বঞ্চিত করে যে জিতছে তার কি কখনও ভালো হতে পারে? আবার এ কথাও ভাবি, কত দুস্থ-দুঃখী মানুষ এই লটারির স্বপ্ন ফিরি করে সংসারের জোয়ালটা টেনে যাচ্ছেন!
সব ধরনের বেটিং যা কিনা জুয়ারই একটা রূপ, তাকে আইনি তকমা দেওয়া ঠিক কি না ভেবে আপনারা আইন কমিশনকে জানান। কমিশন তিরিশ দিন সময় দিয়েছে। আমার মত জানতে চাইলে বলতে পারি, আমি কোনও কিছু নিষিদ্ধ করার বিরুদ্ধে। দেশ, সমাজ, সংসারে ভালো ও মন্দ দুই-ই ছড়িয়েছিটিয়ে থাকে। প্রকৃত শিক্ষা মানুষকে সচেতন করে। বেশিরভাগ মানুষই ভালোকে গ্রহণ ও মন্দকে বর্জন করে। জোর করে কিছু চাপাতে গেলে কোনওদিন কোথাও ভালো হয় না। হতে পারে না।
18th  June, 2017
রাজ্যের উদ্বেগজনক বন্যা পরিস্থিতি নিয়ে কেন্দ্র এত উদাসীন কেন?
শুভা দত্ত

 ‘কেন্দ্রের বিমাতৃসুলভ আচরণ’ বলে একটা কথা একসময় খুব শোনা যেত। ইন্দিরা গান্ধীর আমলে তো বটেই, তার পরে তাঁর পুত্র রাজীব গান্ধী বা তাঁর পরের প্রধানমন্ত্রীদের আমলেও এ রাজ্যে ওই ‘বিমাতৃসুলভ আচরণ’ নিয়ে রাজনৈতিক হইচই যথেষ্ট হয়েছে।
বিশদ

আহা, সেই নতুন ভারত ভয়মুক্ত হোক
সৌম্য বন্দ্যোপাধ্যায়

 স্বাধীনতা দিবসে লাল কেল্লা থেকে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির চতুর্থ ভাষণ বেশ মন দিয়েই শুনলাম। স্বচ্ছ ভারত, স্মার্ট সিটি, মেক ইন ইন্ডিয়া, স্টার্ট আপ ইন্ডিয়া, জন ধন প্রকল্প, নমামি গঙ্গে, বেটি বাঁচাও বেটি পড়াও, ডিজিটাল ইন্ডিয়া, কংগ্রেস মুক্ত ভারত, কালো টাকা ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে কোমর-কষা লড়াই ইত্যাদি ইত্যাদি প্রতিজ্ঞা ও স্বপ্নের জাল গত চারটি ভাষণে শোনানোর পর সেদিন তিনি ‘নিউ ইন্ডিয়া’ বা নতুন ভারত গড়ার কথা শোনালেন।
বিশদ

সফলতা বনাম সফলতা
অভিজিৎ তরফদার

 সংবাদপত্রের প্রথম পাতা আলো করে কোন ব্যক্তিরা শোভা পান? তাঁরা জনপ্রতিনিধি। তাঁরা দেশের আইনও প্রণয়ন করেন। দুর্জনে বলে তাঁদের এক চতুর্থাংশ বা তারও বেশিজনের নামে ফৌজদারি মামলা আছে। খুন-ধর্ষণ-ডাকাতি ইত্যাদি ভয়ানক সব অভিযোগে তাঁরা অভিযুক্ত। কিন্তু আমরা, আম জনতা, তাঁদের ফুল্লবিকশিত মুখশোভা সংবাদপত্রে দেখতেই অভ্যস্ত হয়ে গিয়েছি।
বিশদ

19th  August, 2017
ভারত চীন যুদ্ধ হলে চীন পরাজিত হবে
প্রশান্ত দাস

 সারা ভারতজুড়ে এখন একটাই আলোচনা ঝড় তুলেছে—ডোকালাম নিয়ে চীন ভারতকে আক্রমণ করবে কি? চীন অনবরত ভারতকে চমকে চলেছে। মার্কিন প্রতিরক্ষা বিভাগের মুখপত্র গ্যারিরস বলেছেন—কোনও দেশ যেন নিজেকে সর্বশক্তিমান না ভাবে। চীন এবং ভারত মুখোমুখি আলোচনায় বসে ব্যাপারটি মিটিয়ে নেয়।
বিশদ

19th  August, 2017
শুধুই প্রচার, রেজাল্ট কই!
সমৃদ্ধ দত্ত

 গোরখপুর থেকে ৪৩ কিলোমিটার দূরের জৈনপুর গ্রামের লক্ষ্মী আর শৈলেন্দ্র তিন সপ্তাহ বয়সি মেয়ের মৃতদেহ নিয়ে অনেক দেরি করে বাড়িতে ফিরতে পেরেছিল। গোরখপুরের হাসপাতালে অক্সিজেনের অভাবে শ্বাসরুদ্ধ হয়ে মেয়ে মারা যাওয়ার পর হাসপাতালের বাবুদের কাছে বারংবার ধমক খেতে হয়েছে তাঁদের।
বিশদ

18th  August, 2017
 কেন্দ্রের দায়িত্বজ্ঞানহীন আচরণেই মেডিকেল ভরতিতে রাজ্যের ছাত্রছাত্রীরা বঞ্চনার শিকার
গৌতম পাল

 নিট পরীক্ষার দায়িত্ব সিবিএসই-কে দিয়ে কেন্দ্রীয় সরকার ক্ষমতাকে কেন্দ্রীভূত করেছে। নিট পরীক্ষায় যাঁরা বিষয় বিশেষজ্ঞ হিসাবে সাহায্য করেছেন তাঁরা অধিকাংশই দিল্লির কলেজ বা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, এবং বেশিরভাগই কেন্দ্রীয় সরকার পরিচালনাকারী একটি বড় রাজনৈতিক দলের সদস্য বা কাছের মানুষ। অথচ পশ্চিমবাংলার বা অন্যান্য রাজ্যের খ্যাতনামা যে সকল অধ্যাপক অত্যন্ত দক্ষতা এবং স্বচ্ছতার সঙ্গে রাজ্যের প্রবেশিকা পরীক্ষায় এ যাবৎ সাহায্য করে এসেছেন, সিবিএসই কিন্তু তাঁদেরকে নিটের সঙ্গে অন্তর্ভুক্ত করেনি, বা এই সম্পর্কে রাজ্যের কোনও মতামতও নেয়নি। অনেকেই বলছেন রাজ্যের পাঠ্যক্রম সংশোধন করে নিটের সমমানের করলেই রাজ্যের ছেলে-মেয়েরা নিটে ভালো র‌্যাংক করবে।
বিশদ

17th  August, 2017
স্বাধীনতার ৭০ বছর, নেতাতন্ত্র বনাম গণতন্ত্র?
হিমাংশু সিংহ

বিয়াল্লিশের ভারত ছাড়ো আন্দোলন আমি দেখিনি। ৪৭-এর ঐতিহাসিক স্বাধীনতা লাভের মুহূর্তে মধ্যরাতের জওহরলাল নেহরুর সেই ঐতিহাসিক ভাষণ চাক্ষুষ করার সুযোগও হয়নি। হওয়ার কথাও নয়, কারণ ওই ঘটনার প্রায় দু’দশক পর আমার জন্ম। সেদিনের কথা বইয়ে, ইতিহাসের পাতায় পড়েছি মাত্র।
বিশদ

15th  August, 2017
গভীর রাতের নাটক শেষে স্যালুট
সৌম্য বন্দ্যোপাধ্যায়

জেতা ম্যাচ কী করে হারতে হয়, এই নির্বাচন তার একটা বড় উদাহরণ হয়ে থাকবে। হারতে হারতে জিতে গিয়েছেন আহমেদ প্যাটেল। এই দুর্দিনে তাঁর জয় কংগ্রেসের মরা গাঙে বান হয়তো ডেকে আনবে না, তবে মনোবল সামান্য হলেও বাড়াবে। সোনিয়া গান্ধীর দলের এই দুর্দিনে এটাই বা কম কী? তবে আহমেদ প্যাটেল নন, অমিত শাহও নন, শেষ বিচারে আসল জয়ী নির্বাচন কমিশন। ভারতীয় গণতন্ত্রের সৌন্দর্য এটাই। ওই গভীর রাতে নির্বাচন কমিশনকেই তাই স্যালুট জানিয়েছি।
বিশদ

13th  August, 2017
স্বাধীনতা দিবসের প্রাক্কালে: কিছু প্রশ্ন
শুভা দত্ত

শুধু ভারত ছাড়ো কেন? রামনবমী রাখিবন্ধন পুজোপাঠ স্বাধীনতা দিবস প্রজাতন্ত্র—সবকিছুতেই এখন এত বেশি বেশি রাজনৈতিক দখলদারি শুরু হয়েছে যে, সাধারণ মানুষের পক্ষে উৎসবের মেজাজ ধরে রাখাই মুশকিল হচ্ছে। রাজনীতি ছাড়া যেন কিছু হতেই পারে না!
বিশদ

13th  August, 2017



একনজরে
ডাম্বুলা, ১৯ আগস্ট: হোয়াইটওয়াশের নেশায় বুঁদ হয়ে আছেন বিরাট কোহলিরা। টেস্ট সিরিজে শ্রীলঙ্কাকে ৩-০ ব্যবধানে চুরমার করার পর দারুণ চনমনে ‘টিম ইন্ডিয়া’। এক দিনের ...

 নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: উত্তরবঙ্গের বন্যাবিধ্বস্ত জেলাগুলির কৃষকদের সাহায্য করতে ৫০০ কোটি টাকা চেয়ে কেন্দ্রকে চিঠি দিচ্ছে রাজ্যের কৃষি দপ্তর। শনিবার এই কথা জানিয়েছেন রাজ্যের কৃষিমন্ত্রী পূর্ণেন্দু বসু। তিনি বলেন, উত্তরবঙ্গের বন্যায় এখনও পর্যন্ত আমাদের কাছে যে তথ্য এসেছে, তাতে দেখা ...

সংবাদদাতা, কান্দি: শুক্রবার রাতে ১৬হাজার টাকার জালনোট সহ এক যুবককে গ্রেপ্তার করল বড়ঞা থানার পুলিশ। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, ধৃতের নাম আসেব্বর শেখ। বড়ঞা থানার সাটিতাড়া গ্রামে তার বাড়ি। ...

সংবাদদাতা, আলিপুরদুয়ার: প্রতারণা চক্রের জালে পড়ে শুক্রবার বিকালে শামুকতলা থানার ব্রজেরকুঠি গ্রামের এক যুবক প্রতারিত হলেন। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, প্রতারিত যুবক তরুণকান্তি দাস ওই চক্রের দেওয়া ব্যাংক অ্যাকাউন্টে টাকা জমা দিয়ে প্রতারিত হন। ...


আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

কর্মপ্রার্থীদের কর্মপ্রাপ্তি বিলম্ব হবে। ব্যাবসা সংক্রান্ত কাজে যুক্ত হলে ফল শুভ হবে। উপার্জন একই থাকবে। ... বিশদ



ইতিহাসে আজকের দিন

বিশ্ব মশা দিবস
১৮২৮: ব্রাহ্মসমাজ প্রতিষ্ঠা করলেন রাজা রামমোহন রায়
১৮৬৪: লেখক রামেন্দ্রসুন্দর ত্রিবেদির জন্ম
১৮৯৬: ফুটবলার গোষ্ঠ পালের জন্ম
১৯০৬: প্রথম ভারতীয় র্যাংেলার আনন্দমোহন বসুর মৃত্যু
১৯৪৪: ভারতের সপ্তম প্রধানমন্ত্রী রাজীব গান্ধীর জন্ম
১৯৮৬: গীতিকার গৌরীপ্রসন্ন মজুমদারের মৃত্যু


ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৬৩.৩৫ টাকা ৬৫.০৩ টাকা
পাউন্ড ৮১.২৫ টাকা ৮৪.২১ টাকা
ইউরো ৭৩.৯৬ টাকা ৭৬.৫৭ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
19th  August, 2017
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) 29465
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) 27955
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) 28375
রূপার বাট (প্রতি কেজি) 39100
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) 39200
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

৩ ভাদ্র, ২০ আগস্ট, রবিবার, চতুদর্শী রাত্রি ২/১০, পুষ্যানক্ষত্র অপঃ ৫/২২, সূ উ ৫/১৮/৫৪, অ ৬/১/১৬, অমৃতযোগ দিবা ৬/৯-৯/৩৩ রাত্রি ৭/৩২-৯/২, বারবেলা ১০/৫-১/১৫, কালরাত্রি ১/৫-২/৩০।
৩ ভাদ্র, ২০ আগস্ট, রবিবার, চতুদর্শী রাত্রি ৫/৫১/৫৬, পুষ্যানক্ষত্র সন্ধ্যা ৫/৫৬/৪৩, সূ উ ৫/১৬/২৯, অ ৬/৩/৯, অমৃতযোগ দিবা ৬/৬/৩৬-৯/৩১/২ রাত্রি ৭/৩২/৫৬-৯/২/৪২, বারবেলা ১০/৩/৫৯-১১/৩৯/৪৯, কালবেলা ১১/৩৯/৪৯-১/১৫/৩৯, কালরাত্রি ১/৩/৫৯-২/২৮/৯।
 ২৭ জেল্কদ

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
কালিম্পংয়ে সোশ্যাল ফরেস্ট বাংলো জ্বালিয়ে দিল দুষ্কৃতীরা 

12:11:00 AM

কালিম্পঙে আরও একটি বিস্ফোরণ: সূত্র 

12:06:34 AM

কালিম্পঙে বিস্ফোরণের ঘটনায় ১ সিভিক ভলান্টিয়ারের মৃত‍্যু 

19-08-2017 - 11:43:11 PM

কালিম্পং থানায় বিস্ফোরণ, জখম ২ 
২৪ ঘণ্টার ব্যবধানে ফের বিস্ফোরণে কাঁপল পাহাড়। এদিন রাতে কালিম্পংয়ে বাদামতামের কাছে থানায় বিস্ফোরণ হয়। ঘটনায় পুলিশের এক হোমগার্ড ও এক সিভিক ভলান্টিয়ার জখম হয়েছেন। 

19-08-2017 - 10:44:00 PM

ট্রেন দুর্ঘটনা: মৃত বেড়ে ২৩, জখম বহু

19-08-2017 - 09:33:00 PM

ট্রেন দুর্ঘটনায় হতাহতদের জন্য আর্থিক সাহায্যের ঘোষণা রেলের 
উত্তরপ্রদেশের মুজফফরনগরে ট্রেন দুর্ঘটনায় হতাহতদের আর্থিক সাহায্যের ঘোষণা রেলমন্ত্রী সুরেশ প্রভুর। তিনি জানিয়েছেন, মৃতদের পরিবার পিছু সাড়ে ৩ লক্ষ টাকা করে দেওয়া হবে। গুরুতর জখমরা পাবেন ৫০ হাজার টাকা করে। যাঁদের আঘাত অপেক্ষাকৃত কম গুরুতর তাঁদের ২৫ হাজার টাকা করে দেওয়া হবে। 

19-08-2017 - 08:41:54 PM