বিশেষ নিবন্ধ
 

বাংলার হেঁশেলে ফিরছে দেশি চালের ভাত
রঞ্জন সেন

সবুজ বিপ্লবের ধামাকায় যাদের কথা আমরা ভুলতে বসেছিলাম, এমনকী কৃষকরাও যা চাষের কথা ভাবতেও পারছিলেন না বাংলার সেই বৈচিত্রময় ধানগুলি আবার ফিরে এসেছে। এই ধানগুলির চাষে জল, সার, কীটনাশক, পাম্পের ব্যবহার কম। বীজও কিনতে হয় না। বংশপরম্পরায় তা সঞ্চিত থাকে কৃষকের ভাঁড়ারে। আবার একইসঙ্গে তা রন্ধন উপযোগী, পুষ্টিগুণসম্পন্ন ও পরিবেশবান্ধব। স্বাদেও দারুণ। বাংলার আত্মনির্ভরশীল কৃষক সম্প্রদায় স্থানীয় এই ধান চাষের ওপর একসময় ভরসা করতেন। কারণ এই ধানবীজগুলি একান্তভাবেই স্থানীয় পরিবেশ, জল মাটির সঙ্গে মানানসই। একসময় বাংলার একেকটা গ্রামের খেতেই হ’ত ডজন খানেকেরও বেশি ধরনের ধানের চাষ। বহুদিন পর আবার ফিরে আসছে ধানচাষের সেই বৈচিত্র। বাংলার হেঁশেলে ফিরছে কাটারিভোগ, রাধাতিলক, বহুরূপী, কালোজিরা, কালোনুনিয়া, কবিরাজশাল চালের ভাত। বাংলার খেতে এইসব ধানের চাষ আবার ফিরিয়ে আনার জন্য অবশ্যই রাজ্যের কৃষিদপ্তরকে একটা বড় ধন্যবাদ দিতে হবে। তারও আগে ধন্যবাদ দিতে হবে আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন বিশিষ্ট কৃষিবিজ্ঞানী ফুলব্রাইট স্কলার ডঃ দেবল দেবকে। যিনি স্থানীয় পরিবেশের উপযোগী সুস্বাদু দেশি ধানগুলির চাষ আবার ফিরিয়ে আনার ব্যাপারে দীর্ঘদিন নীরবে কাজ করে চলেছেন। বস্তুত তিনিই পশ্চিমবঙ্গে, পরবর্তী সময়ে সারা ভারতে দেশি ধানের চাষ ফিরিয়ে আনার কাজে পথিকৃৎ।
২০০১ সালে নদীয়ার কৃষি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের এক একর জমিতে পাঁচরকম ধান জৈব পদ্ধতিতে চাষ শুরু করা হয়। তখন এই প্রচেষ্টাকে কেউ খুব একটা পাত্তা দেয়নি। জৈব পদ্ধতিতে পুরানো ধান চাষকে ফিরিয়ে আনার এই প্রচেষ্টাকে এখন অনেকেই গুরুত্ব দিচ্ছেন। দেবল বিভিন্ন রাজ্য থেকে স্থানীয় চালের নমুনা সংগ্রহ করে গড়ে তোলেন ব্রিহি বীজ কেন্দ্র নামে একটি সিড ব্যাংক। পরবর্তী কালে কেন্দ্রটি ওড়িশায় চলে যায়। সেখানে নিয়মগিরি পাহাড়ের ঢালের ২.৫ একর জমিতে দেবল ৯২০ রকম ধানের চাষ করেছেন। পাঁচরকম স্থানীয় ধান চাষ দিয়ে যে পদ্ধতির সূচনা হয়েছিল সেটাই এখন ফিরিয়ে এনেছে পাহাড় থেকে সমতল অবধি রাজ্যের ১৫টি জেলায় প্রায় ৪০০-র বেশি স্থানীয় ধান চাষ। স্থানীয় ধান চাষ মানেই নানা ধরনের ভাতের স্বাদের বৈচিত্র। কৃত্রিম সার ও কীটনাশকের ওপর একান্তভাবেই নির্ভর উচ্চফলনশীল শস্যের সঙ্গে তার কোনও তুলনাই হয় না। এছাড়াও উচ্চফলনশীল ধানের চাষে জল বেশি খরচ হয়, বিদ্যুৎ বেশি লাগে, অগভীর নলকূপ থেকে বেশি মাত্রায় জল তোলার ফলে ভূ-জলের স্তর নেমে যায় এবং শেষ অবধি জমিতে উৎপাদনশীলতাও কমে আসে। সামগ্রিকভাবে বাড়ে চাষের খরচ। পশ্চিমবঙ্গের মতো ধান চাষে এগিয়ে থাকা রাজ্যে এই ঘটনাই ঘটেছে।
অবস্থা সামাল দিতে চাষবাসের পরিবেশবান্ধব ব্যবস্থার দিকে তাকানো ছাড়া আর কোনও উপায় ছিল না। সাম্প্রতিককালে রাজ্যের কৃষিমন্ত্রকের প্রচেষ্টায় নদীয়ায় রাজ্যের কৃষি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে বাংলার পুরানো চালগুলিকে ফিরিয়ে আনার উদ্যোগ এক নতুন গতি পেয়েছে। ১৯১৩ সালে রাজ্যের কৃষিদপ্তর বাংলার বিলুপ্তপ্রায় চালগুলি সংগ্রহ ও সংরক্ষণ করার উদ্যোগ নেয়। এ কাজে রাজ্যের চাষি, বেসরকারি সংগঠন ছাড়াও অসম, ঝাড়খণ্ড, ওড়িশা, কেরালা, নাগাল্যান্ড প্রভৃতি রাজ্যের ধানের বীজ সংগ্রহ ও তা চাষের উদ্যোগ নেওয়া হয়। ২০১৬ সালে রাজ্যের ১১টা জেলায় ৪০০ জন কৃষক স্থানীয় ধানগুলির চাষের উদ্যোগ নেন। ১১৮, ১৮৫ হেক্টরের বেশি জমিতে প্রায় ১৫০ রকম স্থানীয় ধান চাষের উদ্যোগ নেন তাঁরা। এখানে একটা কথা বলে রাখা দরকার, এই ধানের বীজগুলি সংগ্রহ করাও ছিল একটা অত্যন্ত পরিশ্রমসাপেক্ষ কাজ। সাধারণত একটা বীজ দু’বছর বপন না করা হলেই তা মরে যায়। নিয়মিত চাষ না করার জন্য বাংলার বহু স্থানীয় ধানবীজ বিলুপ্ত হওয়ার মুখে এসে দাঁড়িয়েছিল। এখন কৃষি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের বীজ বিতরণ কেন্দ্রের মাধ্যমে কৃষকদের ২৬ রকম স্থানীয় ধানের বীজ দেওয়া হচ্ছে।
‘রাইস ওয়ারিয়র’ নামে ভূষিত কৃষিবিজ্ঞানী ডঃ দেবল দেব এবং পরবর্তী সময়ে নদীয়ার কৃষি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের সহকারী কৃষি প্রশিক্ষণ পরিচালক অনুপম পালের নেতৃত্বে বাংলার ধান্য বৈচিত্রের প্রায় ৯০ শতাংশ উদ্ধার করা সম্ভব হয়েছে এখন। এ সত্যিই এক বড় সাফল্য। তবে এই চাষে উৎসাহ দেওয়ার জন্য অবিলম্বে চালগুলি সংগ্রহের জন্য ন্যূনতম সহায়ক মূল্য স্থির করা দরকার। এ ব্যাপারে কেন্দ্রেরও দায়িত্ব আছে। দরকার আছে জিওগ্রাফিক্যাল ইনডেক্স ট্যাগের। তা না হলে এই ধানগুলি যে বাংলারই, এই দাবি আইনি বৈধতা পাবে না। সরকারি কৃষি বিপণন কেন্দ্রগুলিতে এই চালগুলি বিপণনের উদ্যোগ আরও জোরদার করতে হবে। ইতিমধ্যেই রাজ্য সরকার সে কাজ শুরু করেছে।
কোচবিহারে কালোজিরা, দার্জিলিঙের কালতুরা এবং জিরাসারি, উত্তর দিনাজপুরের কাটারিভোগ ও তুলাইপাঞ্জি, জলপাইগুড়ির কালোনুনিয়া, বীরভূমের গোবিন্দভোগ ও রাজভোগ চালগুলির চাষ শুরু হওয়া এই উদ্যোগেরই ফসল। তুলনামূলক অনুর্বর পুরুলিয়ার জমিতেও এখন চাষিরা ফলাচ্ছেন কেরালাসুন্দরী, আসানলিয়া এবং ভূতমুড়ির মতো চাল। বর্ধমানে ফলছে বহুরূপী, রাধাতিলক এবং কালাভাত, বাঁকুড়ায় রাধাতিলক, আসানলিয়া এবং ভূতমুড়ি। কলকাতার লাগোয়া হাওড়া, উত্তর ২৪ পরগনা, দক্ষিণ ২৪ পরগনাতেও বহুরূপী, জামাইনাড়ু, মৌলো, দুধের সর, খেজুরছড়ি, মরিচশাল চাল বাঙালি হেঁশেলের ভাতের পুরানো স্থানীয় স্বাদ ফিরিয়ে এনেছে। সত্যিই এক জেলা থেকে আরেক জেলাতে যেতেই চালের এত বৈচিত্র যেখানে, সেখানে উচ্চফলনশীল বীজের নামে বহুজাতিক কৃষি ব্যবসায়ীদের কাছে আমরা আমাদের স্বাদকে বন্ধক রাখব কেন?
এ কাজে রাজ্য কৃষিদপ্তর আয়োজিত কৃষিমেলাগুলিও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে। বাংলার পুরানো স্থানীয় ধানকে খুঁজে বার করা এবং তাকে আবার চাষ করার এই উদ্যোগের সূত্রেই এযাবৎকাল নিছকই সরকারি কৃষিদপ্তরের বিজ্ঞাপন হয়ে থাকা বা কোন জেলায় কে কতবড় আলু বা মুলো, ফুলকপি চাষ করল তা জানাতে ব্যস্ত থাকা কৃষিমেলাগুলো একটা নতুন দিশা দিতে শুরু করেছে। কৃষিমেলায় বসছে জৈব চাষের প্রশিক্ষণ শিবির। সেখানে চাষিরা শিখছে, জানছে স্থানীয় জল জমির জন্য উপযুক্ত ধানগুলি আবার চাষ করার পদ্ধতি।
২০০৯-এর আয়লায় সুন্দরবনের জল ও জমিতে নোনাভাব বেড়ে গিয়েছে। এই নোনা জমিতে আধুনিক বীজগুলি বাঁচতে পারে না। সেখানে এখন চাষিরা ফলাচ্ছে কাঁটারাঙ্গি এবং নিকো চাল। পরীক্ষা-নিরীক্ষা চলছে, জয়নগরের মোয়ায় ব্যবহৃত সুগন্ধি কনকচূড়, গোবিন্দভোগ, কামিনীভোগ, দাদশাল প্রভৃতি চাল নিয়ে। কীটনাশক এবং কৃত্রিম সারের দাপট কমায় জমিতে আবার ফিরে এসেছে কেঁচো এবং শামুক। মাটি ফিরে পাচ্ছে তার স্বাভাবিক উর্বরতা। মনে রাখতে হবে, একই জমিতে বছরের পর বছর শুধুমাত্র সার ও কীটনাশকনির্ভর উচ্চফলনশীল শস্যের চাষে কিন্তু দেশের জীব ও উদ্ভিদ বৈচিত্র আস্তে আস্তে হারিয়ে যায়। এই বৈচিত্রগুলি স্বাভাবিক পরিবেশেই টিকে থাকে।
আমাদের এই ভূখণ্ডে ধান চাষের ইতিহাস ৭৫০০ বছরের পুরানো। বাংলা ছিল ভারতের ধান্য ভাণ্ডার। দেশি ধানের প্রত্যাবর্তনের মধ্যে দিয়ে পশ্চিমবঙ্গ আবার সেই পুরানো অভিধা ফিরে পাবে। শুধু বৈচিত্র নয়, খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করার জন্যই হারিয়ে যাওয়া ধানগুলির চাষ জরুরি।
29th  August, 2017
জলযাত্রার সাতকাহন ও নতুন রূপকথা
সৌম্য বন্দ্যোপাধ্যায়

বেশ মনে পড়ছে, সোয়া বছর আগে ‘আরশিনগরের পড়শি’ যখন লেখা শুরু করি তখন একেবারে প্রথম দিকে উত্তর চব্বিশ পরগনায় আমাদের চারঘাট গ্রামের যমুনা নদীর চুরি হয়ে যাওয়ার গল্প লিখেছিলাম। বর্ষার সময় টলটলে ও ছলছলাৎ​ যমুনায় লঞ্চে চেপে আমরা আমাদের গ্রামের বাড়ি যাওয়া-আসা করতাম। কারণ, তখনও গোবরডাঙ্গা বা মছলন্দপুর স্টেশন থেকে গ্রামে যাওয়ার পাকা রাস্তা তৈরি হয়নি। ফলে ভরা বর্ষায় নৌকো বা লঞ্চই ছিল ভরসা।
বিশদ

22nd  October, 2017
দার্জিলিঙে পুলিশ খুন: গুরুং-বাহিনী কোথা থেকে এত সাহস পাচ্ছে!
শুভা দত্ত

বিষয়টা ক্রমশ মাত্রা ছাড়িয়ে যাচ্ছে না কি? মনে তো হচ্ছে তাই। লোকেও তো বলছে তেমনই! হচ্ছেটা কী? পাহাড়ে! দাঙ্গাহাঙ্গামা, জোরজুলুম, খুন, লুঠতরাজ, আগুন, বোমা দিনের পর দিন বন্‌ধ শঙ্কা-আশঙ্কার দোলায় জেরবার সারাদিন সারারাত, পড়াশোনা কাজকর্ম পর্যটন সব লাটে ওঠার জোগাড়। আর এসবের জেরে অতিষ্ঠ সাধারণ পাহাড়িয়া মানুষ!
বিশদ

22nd  October, 2017
দূষণ নিয়ন্ত্রণে পিপিপি মডেল ভাবনা 

কল্যাণ বসু: পিপিপি বললে এক লহমায় মনে আসে পাবলিক, প্রাইভেট, পার্টনারশিপের কথা—যা এখনকার দুনিয়ায় বহুচর্চিত একটি বিষয়। আবার বিশ্বের প্রধান তিন সমস্যা বা প্রবলেম (এর আদ্যক্ষরটিও ‘পি’) বোঝাতেও সেই পিপিপি—পপুলেশন, পভার্টি, পলিউশন। বিশ্বজুড়ে প্রতিবছরই একটা করে ‘পরিবেশ দিবস’ সমারোহে ‘উদ্‌যা঩পিত’ হয়। এবছরও হয়েছে যথাসময়ে, যথারীতি।  বিশদ

21st  October, 2017
অন্য এক মীরা: স্বাধীনতার ইতিহাসের এক নীরব অধ্যায় 

সর্বাণী বসু: ব্রিটিশ নৌবাহিনীর অ্যাডমিরাল স্যার এডমন্ড স্লেড তাঁর ড্রিঙ্করুমের সোফা সেটে বসে আছেন, এক হাতে পানীয়ের গ্লাস অন্য হাতে ধরা একটি চিঠি। মনোযোগ দিয়ে তিনি চিঠিটি পড়ছেন। মুখে খেলে যাচ্ছে অপ্রসন্ন অসহায়তার মেঘ। সামনের সোফায় বসে মিসেস স্লেড উৎকণ্ঠিত মুখে তাকিয়ে।
বিশদ

21st  October, 2017
পাহাড়জুড়ে রাজ্যের শান্তি প্রক্রিয়া এবং
উন্নয়নের মাঝেও কেন এই রাজনীতি?
নিমাই দে

রাজ্যে এক সময় ৬০ কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী ছিল। এখন তা কমে এসে দাঁড়িয়েছে মাত্র ৪৮ কোম্পানিতে। অথচ বিজেপি শাসিত অন্য কয়েকটি রাজ্যের দিকে তাকালে চিত্রটা পরিষ্কার হয়ে যাবে। ছত্তিশগড়ে ২৫২ কোম্পানি, ঝাড়খণ্ডে ১৪৪ কোম্পানি, দিল্লি ৪০ কোম্পানি ইত্যাদি। তারপরেও গত ১৫ অক্টোবর সাতসকালে কেন্দ্রের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক থেকে ফ্যাক্সবার্তায় জানিয়ে দেওয়া হল, পাহাড়ে থাকা মাত্র ১৫ কোম্পানির মধ্যে ১০ কোম্পনিই প্রত্যাহার করে নেওয়া হবে।
বিশদ

20th  October, 2017
নিজেদের মহানুভবতা সম্পর্কে উদাস বলেই
এদেশে কৃষকরা এত উপেক্ষার শিকার
রঞ্জন সেন

মহাত্মা গান্ধী বলেছিলেন, ‘‘কৃষকরা বিশ্বের পিতা, কিন্তু তাঁদের মহানুভবতা এই যে তাঁরা তা নিজেরাই জানেন না। তাঁরা নিজেরাই জানেন না তাঁদের কতটা মূল্য। তাঁরা তার ধারও ধারেন না।’’ কিন্তু স্বাধীনতার প্রায় ৭০ বছর পরেও দেশও কি তাদের মূল্য বুঝল?
বিশদ

20th  October, 2017
২০১৭ সালে অর্থনীতিতে নোবেল পুরস্কার প্রাপক থেলারের কাছ থেকে অর্থনৈতিক বিপর্যয়ের শিক্ষা নিক মোদি সরকার
দেবনারায়ণ সরকার

 যুক্তিবাদী অর্থনীতি থেকে জীবনমুখী অর্থনীতিতে উত্তরণের অন্যতম মুখ্য পথপ্রদর্শক হলেন ২০১৭ সালে অর্থনীতিতে নোবেল পুরস্কারপ্রাপ্ত বিখ্যাত অর্থনীতিবিদ রিচার্ড থেলার। থেলার তাঁর বিখ্যাত ‘‘Misbehaving: The making of behavioural economics’’ (‘অশোভন আচরণ: আচরণগত অর্থনীতির উদ্ভাবন’) গ্রন্থে বলেছিলেন, ‘অভিজ্ঞতা থেকে শিখতে গেলে দুটি উপাদান আবশ্যকীয়: বারবার অভ্যাস বা চর্চা করা এবং অবিলম্বে তাদের প্রতিক্রিয়া গ্রহণ করা’ বিশদ

19th  October, 2017
খিদে কি শুধুই পরিসংখ্যান?
শুভময় মৈত্র

 খবর এসে গিয়েছে যে খিদের সূচকে ভারত নাকি বিশ্বের মধ্যে বেশ খারাপ জায়গায়। আমাদের স্থান কাঁটায় কাঁটায় একশো, গত বছর যেটা ৯৭ ছিল। আশেপাশের দেশগুলোর মধ্যে ভারতের থেকে খিদে যাদের বেশি পাচ্ছে তারা হল পাকিস্তান (১০৬) আর আফগানিস্তান (১০৭)। ভারতের আগে আছে নেপাল (৭২), মায়নামার (৭৭), শ্রীলঙ্কা (৮৪) এবং বাংলাদেশ (৮৮)। যুদ্ধবিদ্ধস্ত ইরাক ৭৮-এ আর পরমাণু বোমা নিয়ে পেশিসঞ্চালনে পটুত্ব দেখানো উত্তর কোরিয়া ৯৩।
বিশদ

19th  October, 2017
একনায়ক কি জনপ্রিয়তা হারাচ্ছেন?
হিমাংশু সিংহ

 পুজোয় কয়েকদিন বারাণসীতে ছিলাম। পুরীর সঙ্গে পাল্লা দিয়ে যুগ যুগ ধরে বাঙালির দ্বিতীয় হোমটাউন বলে কথা। তার ওপর দেশের ইতিহাসে হালফিল সবচেয়ে ক্ষমতাশালী প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সংসদীয় কেন্দ্র।
বিশদ

17th  October, 2017
একনজরে
নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: পাতাল সফরে আরও বেশি এসি ট্রেন চাইছেন যাত্রীরা। বেড়েছে যাত্রীও। তবুও মেট্রোয় আসা দু’টি নতুন এসি রেককে যাত্রী পরিবহণে ব্যবহার করা হচ্ছে ...

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: ফিফা অনূর্ধ্ব ১৭ বিশ্বকাপ এখন শেষ লগ্নে। অন্যান্য যেসব রাজ্যে বিশ্বকাপের খেলা হয়েছে, তার তুলনায় কলকাতায় উন্মাদনা ছিল অনেক বেশি। তার মধ্যে বাংলার ছাত্রছাত্রীদের উৎসাহ ছিল চোখে পড়ার মতো। ...

সংবাদদাতা, ইসলামপুর: রবিবার বিকালে উত্তর দিনাজপুর জেলার গোয়ালপোখর থানার পাঞ্জিপাড়ায় ৩১ নম্বর জাতীয় সড়কে দুর্ঘটনায় বাইক আরোহী এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। দুর্ঘটনায় তার বাবা জখম হয়েছেন। পুলিশ জানিয়েছে, মৃত তানিয়া মিত্র(৬) ইসলামপুরের পুরাতনপল্লির বাসিন্দা। ...

নিজস্ব প্রতিনিধি, দক্ষিণ ২৪ পরগনা: স্বাস্থ্যকেন্দ্রগুলির পরিকাঠামো চাঙা করতে জেলা পরিষদ উদ্যোগী হল। ঠিক হয়েছে, স্বাস্থ্যকেন্দ্রগুলিতে রোগী পরিষেবাকে আরও সচল রাখতে প্রয়োজনীয় ছোটখাট যন্ত্রপাতি, অপারেশন থিয়েটার সংস্কার, লো-ভোল্টেজ ও লোডশেডিং ঠেকাতে গ্রিন জেনারেটর দেওয়া হবে। এজন্য পুরো টাকা দেবে জেলা ...


আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

ছোটখাট সমস্যার কারণে কর্মপ্রার্থীদের কর্মলাভে বিলম্ব হতে পারে। ব্যাবসা শুরু করা যেতে পার। মাঝে মাঝে ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৯৫৪: কবি জীবনানন্দ দাশের মৃত্যু
১৯৮৮: অভিনেত্রী পরিণীতি চোপড়ার জন্ম
২০০৮: চিত্রশিল্পী পরিতোষ সেনের মৃত্যু
২০০৮: চন্দ্রায়ন-১-এর সূচনা

22nd  October, 2017
ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৬৪.২০ টাকা ৬৫.৮৮ টাকা
পাউন্ড ৮৩.৭৮ টাকা ৮৬.৬৩ টাকা
ইউরো ৭৫.৬০ টাকা ৭৮.২৩ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
21st  October, 2017
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ২৯,৯১০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ২৮,৩৭৫ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ২৮,৮০০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৪০,৮০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৪০,৯০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

৬ কার্তিক, ২৩ অক্টোবর, সোমবার, চতুর্থী অহোরাত্র, নক্ষত্র-অনুরাধা, সূ উ ৫/৪০/১২, অ ৫/১/৫৬, অমৃতযোগ দিবা ঘ ৭/১১ মধ্যে পুনঃ ৮/৪২ গতে ১০/৫৮ মধ্যে। রাত্রি ঘ ৭/৩৫ গতে ১০/৫৬ মধ্যে পুনঃ ২/১৮ গতে ৩/৯ মধ্যে, বারবেলা ঘ ৭/৫ গতে ৮/৩০ মধ্যে পুনঃ ২/১২ গতে ৩/৩৭ মধ্যে, কালরাত্রি ৯/৪৭ গতে ১১/২১ মধ্যে।
৫ কার্তিক, ২৩ অক্টোবর, সোমবার, চতুর্থী রাত্রি ৫/০/৩৮, অনুরাধানক্ষত্র, সূ উ ৫/৪০/৮, অ ৫/১/৩৩, অমৃতযোগ দিবা ৭/১০/৫৯, ৮/৪১/৫১-১০/৫৮/৮ মধ্যে এবং রাত্রি ৭/৩৩/১৭-১০/৫৫/৩৬, ২/১৭/৫৪-৩/৮/২৮, বারবেলা ২/১১/১২-৩/৩৬/২৩, কালবেলা ৭/৫/১৯-৮/৩০/২৯, কালরাত্রি ৯/৪৬/১-১১/২০/৫০। 
২ শফর

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
  ভারতের নিকোবর আইল্যান্ডে ভূমিকম্প
নিকোবর আইল্যান্ডে আজ সন্ধ্যায় ভূমিকম্প অনুভুত হয়। রিখটার স্কেলে যার ...বিশদ

08:25:00 PM

বাগুইআটিতে গ্রেপ্তার হাইকোর্টের আইনজীবী
সিগন্যাল ভেঙে এগিয়ে যাওয়া একটি গাড়ি ধরায় এক সিভিক ভলান্টিয়ারকে ...বিশদ

07:26:00 PM

অনুর্ধ্ব ১৭ বিশ্বকাপের প্রথম সেমিফাইনাল গুয়াহাটির পরিবর্তে কলকাতায়

২৫ অক্টোবরের অনুর্ধ্ব ১৭ বিশ্বকাপের ইংল্যান্ড-ব্রাজিল সেমিফাইনাল ম্যাচটি গুয়াহাটির পরিবর্তে ...বিশদ

05:40:00 PM

দক্ষিণেশ্বরের রামকৃষ্ণ সারদা মিশনের উদ্যোগে বাগবাজারে ভগিনী নিবেদিতার সার্ধশত জন্মজয়ন্তী উদযাপন অনুষ্ঠানে ১৬ নং বোস পাড়া লেনের নিবেদিতার বাড়ি উদ্বোধন করলেন মূখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

04:51:00 PM

অমিতাভ মালিকের মৃত্যুর ঘটনায় তদন্তভার সিআইডির হাতে দিল রাজ্য সরকার 

04:30:10 PM

ডেবরায় তৃণমূলের বিরুদ্ধে গোষ্ঠী সংঘর্ষের অভিযোগ, জখম ১০ 
তৃণমূলের গোষ্ঠী সংঘর্ষে উত্তপ্ত পশ্চিম মেদিনীপুরের ডেবরা। ঘটনায় ...বিশদ

04:09:02 PM

পর্ণশ্রীতে আত্মঘাতী মহিলা 
পর্ণশ্রীতে গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মঘাতী হলেন এক মহিলা। ...বিশদ

02:33:00 PM