Bartaman Patrika
আমরা মেয়েরা
 

সমাজ সংস্কারক বিদ্যাসাগর
ও বিধবা বিবাহ প্রচলন

বাংলা সাহিত্যের প্রসার, সংস্কৃত সাহিত্যের সহজসরল অনুবাদ নারী শিক্ষা বিস্তারে বহু প্রবন্ধ লিখে সমাজে আলোড়ন তুলেছিলেন ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর। নারীর সম্মান ও আত্মমর্যাদা রক্ষার্থে সর্বদা সচেষ্ট ছিলেন তিনি। সমাজে বিধবা বিবাহ প্রচলন করে বিদ্যাসাগর বিশেষভাবে স্মরণীয় হয়ে আছেন।
এই বিধবা বিবাহ প্রচলন নিয়ে একটি ঘটনার উল্লেখ করা প্রয়োজন। ছোটবেলায় রাইমণি নামে খেলার সঙ্গিনী ছিল বিদ্যাসাগরের। রাইমণিকে ভালোবাসতেন তিনি। রাইমণির খুব অল্প বয়সে বিয়ে হয়ে যায়। কিছু বছর পরে বিধবা হয়ে একমাত্র সন্তান গোপালকে নিয়ে নিজের গ্রাম বীরসিংহে ফিরে আসে রাইমণি। বিদ্যাসাগরও গ্রামে ফিরে একদিন খোঁজ নিতে গিয়ে দেখেন রাইমণি শুকনো মুখে দাঁড়িয়ে আছে। সেদিন ছিল একাদশী। সারাদিন রাইমণির উপবাসের করুণ চিহ্ন প্রত্যক্ষ করে বিদ্যাসাগরের মনে একদিকে যেমন বৃষ্টির মতো কান্না ঝরছিল তেমনি অন্যদিকে আগুনও জ্বলছিল। তিনি অনুভব করেছিলেন হিন্দু বাল্য বিধবাদের বৈধব্য যন্ত্রণা থেকে মুক্তি দিতে হলে প্রয়োজন তাদের পুনর্বিবাহ। শুরু হয় বিদ্যাসাগরের লাগাতার আন্দোলন।
রামমোহন রায় জ্বলন্ত চিতার আগুন থেকে বিধবাদের ফিরিয়ে এনেছিলেন। কিন্তু সংসার আর সমাজের নির্মমতায় তারা প্রতিদিন দগ্ধ হচ্ছিল। সেই চিতার আগুন নেভানোর উদ্দেশ্যে বিধবা বিবাহের কাজে নিজেকে সম্পূর্ণ সমর্পণ করতে এগিয়ে এলেন বিদ্যাসাগর।
তিনি বুঝেছিলেন ধর্মের, সমাজের শাস্ত্রের গোঁড়ামি শাস্ত্র দিয়েই ভাঙতে হবে। শাস্ত্র ঘেঁটে ‘পরাশর সংহিতা’ থেকে বিধবা বিবাহের পক্ষে অকাট্য যুক্ত পেলেন। সেই যুক্তির নিরিখে বিধবাদের বিয়ের পক্ষে দুটি বই লিখলেন। এছাড়াও পত্র-পত্রিকায় লেখালেখির মাধ্যমে বিধবা বিবাহের সপক্ষে জনমত গঠন ও সেইসঙ্গে সরকারের দৃষ্টি আকর্ষণ করলেন। আইনের মাধ্যমে বিধবা বিবাহকে বৈধ করার লক্ষ্য নিয়ে ৯৮৭ জনের সই সংগ্রহ করে বিদ্যাসাগর আবেদনপত্র জমা দিলেন তৎকালীন ভারত সরকারের কাছে। তাঁর আবেদনপত্রের প্রবল বিরোধিতা করলেন সনাতন পন্থী হিন্দুরা। রক্ষণশীল সমাজের নেতা রাধাকান্ত দেবের নেতৃত্বে ৩৬,৭৬৩ জনের সই সংগ্রহ করে পাল্টা আবেদনপত্র ভারত সরকারকে জমা দিলেও বিদ্যাসাগরের যুক্তির কাছে হার মানল বিরোধীদের আবেদন।
রাধাকান্ত দেব কলকাতার শোভাবাজার রাজবাড়িতে পণ্ডিতসভা ডাকলেন। সেখানে তীব্র বাদানুবাদ হল বিদ্যাসাগর ও পণ্ডিত ব্রজনাথ বিদ্যারত্নের মধ্যে। বিদ্যাসাগর শাস্ত্রের ভুল ব্যাখ্যা দিচ্ছেন পণ্ডিতরা তা প্রমাণ করার জন্য জোর সওয়াল করলেন। তবু ব্যর্থ হলেন তাঁরা। রাধাকান্ত দেব এই বিধবা বিবাহে সমর্থন না করলেও বিদ্যাসাগরের যুক্তিতে মুগ্ধ হয়ে এক জোড়া শাল তাঁকে দেন। অবশেষে ১৮৫৬ সালের ২৬ জুলাই হিন্দু বিধবা বিবাহ বৈধ বলে আইন পাশ হল। সেই পরিপ্রেক্ষিতে গ্রামবাংলায় নানা আলোচনা, সভা হতে লাগল। এছাড়া ব্যঙ্গ, কবিতা, নাটক, নকশা, গল্প, পালা-গান রচনা হল।
বাংলাদেশের যেন এক নতুন যুগের সৃষ্টি হল। যাঁরা সমাজের ভয় করত তাঁরাও এগিয়ে এসে বিধবা বিবাহকে সমর্থন জানান। উমেশ চন্দ্র মিত্র লিখলেন বিধবা বিবাহ নাটক। প্রথমে সিঁদুর পাটির গোপাল মল্লিকের বাড়ি, পরে পাইকপাড়ার রাজবাড়িতে সেই নাটকের অভিনয় হল। যার উদ্যোক্তাদের মধ্যে অন্যতম ছিলেন কেশবচন্দ্র সেন। বিধবা বিবাহ নাটকের অভিনয়ে অংশগ্রহণ করেছিলেন ব্রাহ্মধর্মাবলম্বীরা। নাটক বেশ কয়েকবার দেখেন স্বয়ং বিদ্যাসাগর।
তাঁর উদ্যোগেই আয়োজিত হয় শ্রীশচন্দ্র-কালিমতীর ঐতিহাসিক বিধবা বিবাহ। যা ছিল ভারতে প্রথম। ১৮৫৬ সালের ৭ ডিসেম্বর, বাংলা ১২৬৩ সালের ২৩ অগ্রহায়ণ বিবাহ আসর নির্দিষ্ট হয়েছিল কলকাতার সুকিয়া স্ট্রিটের রাজকৃষ্ণ বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাড়ি।
কালিমতী ছিল বাল্য বিধবা। বাল্য বিধবাদের জীবনধারণ ছিল মৃত্যুযন্ত্রণার চেয়েও বেশি। সেই সময় অকাল বৈধব্য ছিল মেয়েদের জীবনে নিত্যসঙ্গী। তখনই বাল্য বিধবাদের ওপর খাদ্যাখাদ্য নিয়ে নানা বিধিনিষেধের পাশাপাশি পোশাক, অলঙ্কার পরার কড়াকড়ি থাকত। তবে সবচেয়ে নিষ্ঠুরতা ছিল অমাবস্যা, পূর্ণিমার উপবাস ও নির্জলা-একাদশী পালনের মতো পাশবিক নিয়মকানুন।
বিদ্যাসাগর সংস্কৃত কলেজের অধ্যক্ষ থাকাকালীন সেই কলেজের মেধাবী ছাত্র ছিল শ্রীশচন্দ্র। শ্রীশচন্দ্র ২৬ বছর বয়সে বাল্য বিধবাকে পুনর্বিবাহ করার মতো কাজে ব্রতী হন।
বাংলার লাটসাহেব স্যার ফ্রেডেরিক হ্যালিডেও এই বিবাহ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ঐতিহাসিক ঘটনাটির সাক্ষী হিসাবে। এ ছাড়া বিবাহ বাসর উজ্জ্বলতর হয়েছিল প্যারিচাঁদ মিত্র, কালিপ্রসন্ন সিংহ, শম্ভুনাথ পণ্ডিত, রাজা প্রতাপচন্দ্র সিংহ, রাজা দিগম্বর মিত্র, বিচারক হরচন্দ্র ঘোষ, দ্বারিকানাথ মিত্র প্রমুখের উপস্থিতিতে।
বিধবার বিয়ে দিয়ে এক অসাধ্যসাধন করলেন বিদ্যাসাগর। আর কোনও ক্রমেই বিধবা বিবাহ বন্ধ করতে না পেরে হিন্দু সমাজপতিরা রাগে অন্ধ হয়ে শ্রীশচন্দ্রকে সমাজ থেকে পতিত ঘোষণা করেন। এদিকে ধর্মান্ধরা আইনের বিচারে হেরে গিয়ে বিদ্যাসাগরকে রাতের অন্ধকারে কলকাতার ঠনঠনিয়ার কাছে গুন্ডাদের দিয়ে মারার চেষ্টা করে। কিন্তু বিদ্যাসাগরের সঙ্গী বীরসিংহের লাঠিয়াল শ্রীমন্ত সেই গুন্ডাদের হটিয়ে দেয়।
বিদ্যাসাগর গোটা নারীসমাজকে পথ দেখিয়ে নিজেও কিন্তু পিছিয়ে থাকলেন না। নিজের একমাত্র ছেলে নারায়ণ চন্দ্রর বিয়ে দিয়েছিলেন ভবসুন্দরী নামে এক বিধবার সঙ্গে। গ্রামের প্রতিবেশী ও আত্মীয়রা বিয়েতে না এলেও বিদ্যাসাগরের সংগ্রাম সফল ও সার্থক হয়েছে। বিদ্যাসাগর বলেছিলেন— ‘আমি দেশাচারের নিতান্ত দাস নহি, নিজের বা সমাজের মঙ্গলের নিমিত্ত যাহা উচিত বা আবশ্যক বোধ হইবে তাহা করিব, লোকের বা কুটুম্বের ভয়ে কদাচ সঙ্কুচিত হব না।’ রবীন্দ্রনাথ বলেছিলেন— তাঁর দেশের লোক যে যুগে বদ্ধ হয়ে আছেন। বিদ্যাসাগর সেই যুগকে ছাড়িয়ে জন্মগ্রহণ করেছিলেন। তার প্রমাণ বিদ্যাসাগরের জীবনে ছড়িয়ে আছে।
বিধবা বিবাহ প্রচলনের পাশাপাশি তাদের দুরাবস্থা থেকে বাঁচানোর জন্য হিন্দু ফ্যামিলি অ্যানুয়িটি ফান্ড প্রতিষ্ঠা করেছিলেন বিদ্যাসাগর। সারা জীবন কঠোর সংগ্রামী, স্বাজাত্যভিমানী, কোনও কারণেই আপোস না করা— এই চরিত্রিক বৈশিষ্ট্যের অধিকারী ছিলেন বিদ্যাসাগর। ১৮৯১ সালের ২৯ জুলাই তাঁর জীবনাবসান ঘটে।
অরূপকুমার ভৌমিক
 পাতার ছবি সংশ্লিষ্ট সংস্থার সৌজন্যে
27th  July, 2019
আমি সবার ভালোবাসা পেতে চাই
শ্রাবণী ভুঁইয়া

 দুই বোন কনক আর কাঁকন। খুব ছোটবেলায় ওরা ওদের বাবা-মাকে হারায়। তারপর একে অপরের পরিপূরক হয়ে জীবন কাটাতে শুরু করে। বড় বোন নাচ জানে এবং ছোট বোন একজন খেলোয়াড়। দু’জনেই দু’জনের স্বপ্ন পূরণ করার লক্ষ্যে এগিয়ে চলে। আর এই পথে বিভিন্ন ঘাত-প্রতিঘাতের সম্মুখীন হতে হয় ওদের। এই দুই বোনের পারস্পরিক বন্ধন নিয়েই কালারস বাংলায় শুরু হয়েছে মেগা ধারাবাহিক কনক কাঁকন। আজ আমরা কনক তথা শ্রাবণী ভুঁইয়ার মুখোমুখি। বিশদ

17th  August, 2019
 তিন তালাক আইন ও অভিমত

 বহুদিনের লড়াইয়ের পর মহিলাদের জয় হয়েছে। রদ হয়েছে তাৎক্ষণিক তিন তালাক। মুসলিম মহিলাদের একটা সামাজিক স্বীকৃতি লাভ বলা চলে একে। তিন তালাকে বিবাহ-বিচ্ছেদ এখন আইনত অপরাধ। বিষয়টি নিয়ে সরব লেডি ব্রাবোর্ন কলেজের ছাত্রীরা। তাঁদের মুখোমুখি শাকিলা খাতুন। বিশদ

17th  August, 2019
ভগিনী নিবেদিতা ও ভারতের স্বাধীনতা সংগ্রাম

ভগিনী নিবেদিতা ভারতের মাটিতে বিপ্লববাদের ভিত গড়ে তুলেছিলেন। নিবেদিতার পূর্ব নাম মার্গারেট এলিজাবেথ নোব্‌ল। তৎকালীন সমাজের বিদগ্ধ, স্বনামধন্য লেখক, বৈজ্ঞানিক, শিক্ষাবিদ, রাজনীতিবিদদের সঙ্গে মার্গারেটের স্বতঃস্ফূর্ত মেলামেশা, নিত্য ওঠাবসা ছিল। কিছুদিনের মধ্যেই তিনি লন্ডনের বুদ্ধিজীবী মহলে এক স্থান দখল করে নেন।
বিশদ

10th  August, 2019
স্বাধীনতার ইতিহাসে দুই জাপানি মহিলা ও রাসবিহারী বসু

ভারতের স্বাধীনতা সংগ্রামের ইতিহাসে অনেক মহিলা নিজেদের জীবন উৎসর্গ করেছিলেন, তাঁদের মধ্যে দুই বিদেশি মহিলা যাঁরা ভারতীয় না হয়েও ভারতের স্বাধীনতা অর্জনের লক্ষ্যে নিজেদের জীবন উৎসর্গ করেছিলেন তাঁদের কথা আজ বলি। ভারতীয় মহান বিপ্লবী রাসবিহারী বসুর জীবন রক্ষার্থেই সেই কাহিনী শুরু হয়েছিল।
বিশদ

10th  August, 2019
 মহাত্মা গান্ধীর জীবনে মহিলাদের প্রভাব

জাতির জনক মহাত্মা গান্ধীর (১৮৬৯-১৯৪৮) জীবনে একাধিক নারীর উপস্থিতি লক্ষ করা যায়। গান্ধীর জীবনে এঁরা বিভিন্ন সময়ে বিভিন্নভাবে উপস্থিত থেকে গভীর প্রভাব বিস্তার করেছেন। তাঁদের সম্পর্ক কখনও পারিবারিক, কখনও আশ্রমিক, আবার কখনও স্বাধীনতা আন্দোলনকেন্দ্রিক— এমনভাবে বহু স্তর বিভাজিত ছিল।
বিশদ

10th  August, 2019
গৌড়ীয় নৃত্যশিল্পী
মহুয়া মুখোপাধ্যায় 

বঙ্গীয় ধ্রুপদী নৃত্যের বিশেষ নৃত্যশৈলী গৌড়ীয় নৃত্য নিয়ে গবেষণা করেছেন নৃত্যশিল্পী মহুয়া মুখোপাধ্যায়। ছোট শহরে ওঁর জন্ম, কিন্তু অনেক বড় কীর্তির নজির সৃষ্টি করেছেন। সুদীর্ঘ কয়েক দশকের পথচলা।   বিশদ

03rd  August, 2019
রাধারানিদেবীর আত্মাহুতিই
এগিয়ে দিয়েছিল শিল্পী রামকিঙ্করকে 

শিল্পী রামকিঙ্করের জীবনের সঙ্গে ওতপ্রোত ভাবে জড়িয়ে রয়েছে তাঁর নাম। তিনি রাধারানি। তাঁর জন্ম বর্ধমানের আউশগ্রামের গুসকরার কাছে। জানা যায় গ্রামটির নাম ছিল সাহেব বাগান। তাঁর বাবার নাম চন্দ্র আর মা দুর্গাদেবী।  বিশদ

03rd  August, 2019
প্রভা ও প্রেমের আলোকে কবি সৃষ্ট নারী চরিত্র 

কবিগুরু প্রভা ও প্রেমের আলোকে অতীন্দ্রিয় অনুভূতি দিয়ে সৃষ্টি করেছেন কতই না নারী চরিত্র। কঠোরতা ও কোমলতার সংমিশ্রণে তারা আজও উজ্জ্বল। ২২ শ্রাবণ, কবির মৃত্যুবার্ষিকীর প্রাক্কালে তাঁকে তাঁরই সৃষ্টির মাধ্যমে স্মরণ করার সামান্য চেষ্টা করব।  বিশদ

03rd  August, 2019
২ কোটি টাকার প্রস্তাব
ফিরিয়ে দিলেন সাই পল্লবী

ফর্সা না হলে কপালে তো নানা দুর্ভোগ! পাত্রী পড়াশোনায় তুখোড় হলেও বিয়ে হবে না, ফর্সা না হলে যৌতুক দিতে হবে বেশি। এমনকী এই ফর্সা হওয়ার লড়াই পুরুষরাও চালিয়ে যাচ্ছেন। ফর্সা হওয়ার ক্রিম ও প্রসাধনী মাখলেই আপনি হয়ে উঠবেন অনন্য বা অনন্যা— একথা প্রচার করতে সবচেয়ে বেশি দেখা যায় চলচ্চিত্র তারকাদেরই।
বিশদ

27th  July, 2019
বিধায়কের উদ্যোগে গণবিবাহ

আবারও গণবিবাহের আয়োজন করলেন বিধায়ক পরেশ পাল। প্রতি বছরের মতো এ বছরও ৭ জুলাই ৪৮তম বর্ষে কাঁকুড়গাছি সিআইটি বিল্ডিং-এর সামনের রাস্তাটিতে তৈরি হয় বিশাল বড় বিবাহ আসর। মণ্ডপসজ্জা থেকে শুরু করে ছাদনাতলা সেজে উঠেছিল রজনীগন্ধা, জুঁইফুলে। বিশদ

27th  July, 2019
নারীর সমান অধিকার ৬টি দেশে

সারা পৃথিবীতে গড়ে পুরুষদের তিন ভাগের এক ভাগ মাত্র অধিকার ভোগ করেন নারীরা। বিশ্বব্যাঙ্ক জানিয়েছে, মাত্র ছয়টি দেশে নারী ও পুরুষের অধিকার সমান, বিশেষ করে অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে। বিশদ

27th  July, 2019
পুরাণের ধূসর পাতায় ঘুমিয়ে
থাকা এক অনামা নারী সুকন্যা

আমরা রামায়ণ, মহাভারত সহ নানা পুরাণ কথায় নারীর বীরত্বের পাশাপাশি ভয়ঙ্কর অবমাননা, কুৎসিত অপমান ও নিদারুণ অসম্মান লক্ষ করেছি। কোনও সময় দেখেছি দাঁতে দাঁত চেপে নারীর লড়াই। ক্রোধ, সন্দেহ, অশ্রু, আবেগ নিজের বুকে লুকিয়ে মাথা নিচু করে মেনে ও মানিয়ে নেওয়ার ইতিহাস পাতার পর পাতা জুড়ে ছড়িয়ে রয়েছে।
বিশদ

27th  July, 2019
পরিবর্তনের ঢেউ লেগেছে মুসলিম সমাজে 

একবিংশ শতাব্দীতে পদার্পণের আগে মুসলিম সমাজে নারী স্বাধীনতা প্রহসন ছিল বললে অত্যুক্তি হয় না। মাত্র কয়েক দশক আগেও মুসলিম নারী ছিল অন্তঃপুরবাসিনী। অবগুণ্ঠনের আড়াল থেকেই তাদের বিশ্বদর্শন হতো। কিন্তু সেই চিত্র আজ অনেকটাই বদলে গিয়েছে।  বিশদ

20th  July, 2019
মেয়েদের হার্টের পক্ষে
নাইট শিফট ক্ষতিকারক 

এই একবিংশ শতাব্দীতে দাঁড়িয়ে আপাতদৃষ্টিতে নারীর সঙ্গে পুরুষের পার্থক্যের সীমারেখা প্রায় ঘুচেই গিয়েছে বলা যায়। এখন পুরুষদের সঙ্গে নারীরাও সমানতালে সবকিছুই করছে। সে কঠিন বিজ্ঞান গবেষণা থেকে শুরু করে টোটো চালানো পর্যন্ত প্রায় সবকিছুই। একসময় যে নাইট শিফটে কাজ শুধুমাত্র পুরুষদের মধ্যেই সীমাবদ্ধ ছিল এখন সেখানেও মেয়েদের মৌরুসিপাট্টা। বিশদ

20th  July, 2019
একনজরে
 ইসলামাবাদ, ২২ আগস্ট (পিটিআই): সেপ্টেম্বরে রাষ্ট্রসঙ্ঘের সাধারণ সভার অধিবেশন চলাকালীন নিউ ইয়র্কে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বিরুদ্ধে বিক্ষোভ দেখানোর নির্দেশ দিলেন ইমরান খান। কাশ্মীর ইস্যুকে সামনে রেখে তাঁর পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফ দলের নেতা-কর্মীদের এই নির্দেশ দিয়েছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী। ...

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: চার বছরের বি টেক করতে করতে মাঝপথে কোর্স ছেড়ে দিতে পারবেন ছাত্রছাত্রীরা। সেরকম সংস্থান রাখা হবে। সেই পড়ুয়া যে ক’বছর পড়বেন, তার স্বীকৃতি দেওয়া হবে। পরে অবশ্য নির্ধারিত সময়ের মধ্যে পুরো কোর্স শেষ করার সুযোগ থাকবে তাঁর। ...

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: দীর্ঘ ১৯ বছর পর মোহন বাগান ঐতিহাসিক ডুরান্ড কাপ জয়ের সামনে দাঁড়িয়ে। মোহন বাগান শেষবার ডুরান্ডে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে ২০০০ সালে। সেবার দিল্লির ...

 অমিত চৌধুরী, তারকেশ্বর: তারকেশ্বর থানার কেশবচক পঞ্চায়েতের নছিপুর বারোয়ারিতলার মাটির তৈরি অঙ্গনওয়াড়ি কেন্দ্র বন্যার জলে বছর দুয়েক আগে ভেঙে গিয়েছে। ত্রিপল টাঙিয়ে চলছে পড়াশোনা। সাপের ভয়ে শিশুদের অঙ্গনওয়াড়ি কেন্দ্রে পাঠাতে ভয় পাচ্ছেন অভিভাবকরা। ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

উচ্চপদস্থ ব্যক্তির সহায়তায় কর্মস্থলে জটিলতার সমাধান। বাতজ বেদনায় কষ্ট পাবার সম্ভাবনা। প্রেম-প্রণয়ে সাফল্য। পরশ্রীকাতর ব্যক্তির ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৮৯৮-কথা সাহিত্যিক তারাশংকর বন্দ্যোপাধ্যায়ের জন্ম
১৯৪৪- অভিনেত্রী সায়রাবানুর জন্ম
১৯৯৪- ইংলিশ চ্যানেল অতিক্রমকারী সাঁতারু আরতি গুপ্তর (সাহা) মৃত্যু

ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭০.৭৯ টাকা ৭২.৪৯ টাকা
পাউন্ড ৮৫.৩৪ টাকা ৮৮.৫১ টাকা
ইউরো ৭৭.৯৮ টাকা ৮০.৯৪ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৩৮,২৮৫ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩৬,৩২৫ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৩৬,৮৭০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৪৪,০৫০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৪৪,১৫০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

৬ ভাদ্র ১৪২৬, ২৩ আগস্ট ২০১৯, শুক্রবার, সপ্তমী ৭/৪ দিবা ৮/৯। কৃত্তিকা ৫৬/৯ রাত্রি ৩/৪৭। সূ উ ৫/১৯/৪১, অ ৫/৫৯/১৩, অমৃতযোগ দিবা ৭/০ মধ্যে পুনঃ ৭/৫১ গতে ১০/২৩ মধ্যে পুনঃ ১২/৫৬ গতে ২/৩৭ মধ্যে পুনঃ ৪/১৮ গতে অস্তাবধি। রাত্রি ৭/৩০ গতে ৯/১ মধ্যে পুনঃ ৩/৩ গতে ৩/৪৮ মধ্যে, বারবেলা ৮/২৯ গতে ১১/৩৯ মধ্যে, কালরাত্রি ৮/৪৯ গতে ১০/১৪ মধ্যে।
৫ ভাদ্র ১৪২৬, ২৩ আগস্ট ২০১৯, শুক্রবার, অষ্টমী ৫৫/৩০/৩৯ রাত্রি ৩/৩১/১। কৃত্তিকানক্ষত্র ৪৭/২৮/৩০ রাত্রি ১২/১৮/৯, সূ উ ৫/১৮/৪৫, অ ৬/২/১৩, অমৃতযোগ দিবা ৭/২ মধ্যে ও ৭/৫২ গতে ১০/২০ মধ্যে ও ১২/৪৮ গতে ২/২৭ মধ্যে ও ৪/৬ গতে ৬/২ মধ্যে এবং রাত্রি ৭/১২ গতে ৮/৫১ মধ্যে ও ৩/৪ গতে ৩/৫১ মধ্যে, বারবেলা ৮/২৯/৩৭ গতে ১০/৫/৩ মধ্যে, কালবেলা ১০/৫/৩ গতে ১১/৪০/২৯ মধ্যে, কালরাত্রি ৮/৫১/২১ গতে ১০/১৫/৫৫ মধ্যে।
২১ জেলহজ্জ

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
লুধিয়ানায় সাইকেল মার্কেট এলাকায় ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড 

02:28:00 PM

চাকরি দেওয়ার নামে প্রতারণা, গ্রেপ্তার ৩
চাকরি পাইয়ে দেবার নাম করে ৩৭ লক্ষ টাকার প্রতারণার অভিযোগ। ...বিশদ

02:17:00 PM

৭০০ পয়েন্ট উঠল সেনসেক্স 

02:15:00 PM

সোমবার পর্যন্ত চিদাম্বরমকে গ্রেপ্তার করতে পারবে না ইডি, জানাল সুপ্রিম কোর্ট  

01:40:37 PM

কচুয়ায় পদপিষ্টের ঘটনায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৫ 
কচুয়ায় পদপিষ্টের ঘটনায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে হল ৫ জন। জানা ...বিশদ

01:15:00 PM

পাকিস্তানকে বর্ধিত কালো তালিকাভুক্ত করল এফএটিএফ

12:27:00 PM