শরীর ও স্বাস্থ্য
 

আত্মহত্যা আটকাবেন কীভাবে?

 আত্মহত্যার চিন্তা আর ঘুমের মধ্যে ভয়াল স্বপ্নের মধ্যে মিল একটাই— জেগে উঠলেই রোদ পড়ে চোখে। জীবনের ওম্‌ গায়ে মেখে, কাজ করার আনন্দে কাটিয়ে কাটিয়ে দিতে ইচ্ছে করে আরও হাজার বছর। তাই খারাপ স্বপ্ন থেকে জেগে উঠুন। অন্যদেরও ডাক দিন অন্ধকার থেকে আলোর পথে আসার। গত রবিবার, ১০ সেপ্টেম্বর ছিল ওয়ার্ল্ড সুইসাইড ডে। মৃত্যু নয় বেঁচে থাকার আনন্দ উদ্‌যাপন করতেই এই বিশেষ দিনটি পালন করা হয়। লিখেছেন বিশিষ্ট মনোরোগ বিশেষজ্ঞ ডাঃ কেদাররঞ্জন বন্দ্যোপাধ্যায়।

বর্ধমানের প্রত্যন্ত গ্রামের অঙ্কের মাস্টারমশাই রজত। বর্ধমানের মফস্‌সল এলাকাতেই বাড়ি, প্রতিদিন প্রায় দু’ঘণ্টা পথ পেরিয়ে কর্মস্থলে পৌঁছান তিনি। অন্যদিকে রজতের স্ত্রী সুচরিতা শহরের মেয়ে। ইংরেজি নিয়ে স্নাতকোত্তর স্তরের পড়াশুনা করলেও ভাগ্যে সুপ্রসন্ন ছিল না, তাই সরকারি স্কুলের শিক্ষিকা হতে পারেনি। তবে প্রাইভেট টিউশন পড়িয়ে এলাকায় রীতিমতো জনপ্রিয় হয়ে ওঠে সে। আশপাশের কলেজগুলোতে ছাত্রছাত্রীরা রীতিমতো নির্ভর করত সুচরিতা ম্যাডামের ওপর। রজত ও তাঁর ঠাকুমা বর্ধমানের একই পাড়ায় থাকতেন, সেই সুবাদেই ছোটবেলার বান্ধবীর একমাত্র নাতনির সঙ্গে নিজের বড় নাতির বিয়ে ঠিক করেন রজতের ঠাকুমা। এদিকে সাদামাটা সহজ সরল চরিত্রের মেয়ে সুচরিতাও পরিবারের ঠিক করে দেওয়া পাত্রের সঙ্গে বিয়েতে রাজি হয়ে যায়। আর হবে নাই বা কেন, জমিদার বংশের ছেলে রজত শিক্ষা-দীক্ষা রুচি-প্রকৃতি এমনকী পুরুষোচিত চেহারাতেও কোনও অংশ কম যায় না। তবে চারিত্রিক বৈশিষ্ট্যের নিরিখে সে সুচরিতার থেকে সম্পূর্ণ আলাদা। অর্থ নয় রজতের অহংকারের বিষয় হল তাঁর মেধা। সরকারি স্কুলের অঙ্কের টিচার রজত একটা জায়গায় চূড়ান্ত সফল। দশ বছরের শিক্ষকতার জীবনে আজ অবধি কোনও ছাত্র ফেল করেনি। শুধু তাই নয়, গোটা বর্ধমানের কৃতী ছাত্রদের একমাত্র নির্ভরের জায়গা রজত। পরপর চার বছর মাধ্যমিকে নজিরবিহীন ভালো নম্বর পেয়ে রাজ্যের মধ্যে প্রথম দশে জায়গা করে নিয়েছে।
গ্রামের সকলের প্রিয় আদর্শবান অঙ্কের স্যার রজত কোনওদিন ভাবতেও পারেনি তাঁর বিরুদ্ধে পক্ষপাতিত্বের অভিযোগ উঠবে। আশঙ্কা করেছিল যে খুব শীঘ্রই ষড়যন্ত্রের শিকার হতে চলেছে। পাশের গ্রামের গরিব অটোচালকের মেয়ে সোহিনী পড়াশোনায় অত্যন্ত মনোযাগী। শুধু অঙ্কের দুর্বল বলে প্রতিবছর পিছিয়ে পড়ে সেরা হওয়া দৌড়ে। এবছর মাধ্যমিক টেস্ট পরীক্ষার আগে রজতের কাছে ভরতি হয় সোহিনী। রজতও আগ্রহ সহকারে বিনা পারিশ্রমিকে পড়াতে রাজী হয়ে যায়। এমনকী অন্যান্য ছাত্রছাত্রীদের তুলনায় অনেক বেশি সময় ও গুরুত্ব দিতে শুরু করে সোহিনীকে। কখনও স্কুলের অফ পিরিয়ডে, কখনও বাড়িতে। খাওয়া-দাওয়া ভুলে রাতিদিন এক করে রজত স্যারের কাছে অঙ্ক করেছে সে। ফলাফল, টেস্ট পরীক্ষায় স্কুলে দ্বিতীয় হয়েছে সোহিনী। বিবাদের সূত্রপাত এখানেই। বয়েজ স্কুলের অঙ্কের স্যারের পাশের গ্রামের গরিব মেয়ের প্রতি এই বাড়তি মনোযোগ ভালো চোখে দেখেনি কেউই। ফলে একটু একটু করে আদর্শবান রজত স্যারের ইমেজে ফাটল ধরতে শুরু করে। গুজব ছড়াচ্ছে জেনেও মাধ্যমিক অবধি হল ছাড়েনি রজত ও সোহিনী। আশপাশের তিন চারটে গ্রাম মিলিয়ে ছাত্রীদের মধ্যে প্রথম হয় সে, অঙ্কেও যুগ্ম দ্বিতীয়। কিন্তু গরিব ঘরের মেয়েটিকে নিয়ে গোটা গ্রাম জুড়ে রটানো হল জঘন্য কুৎসা। যার দাপটে ফিকে হয়ে গেল সোহিনীর সাফল্য। এদিকে বাইরের অশান্তি সামনে ওঠার আগেই শুরু হয়েছে ঘরের অশান্তি। অবিশ্বাস বা সন্দেহের চোখে না দেখলেও সুচরিতার অভিযোগ ‘বদলে গিয়েছে রজত’। লজ্জা, তীব্র অপমানবোধ থেকেই স্ত্রীকে কিছুই জানতে পারেনি রজত। একটু একটু করে গুটিয়ে যেতে থাকে সে। একদিকে সহকর্মী ও ছাত্রদের কাছে সম্মান হারানোর যন্ত্রণা, অন্যদিকে স্ত্রীর চোখে অপরিচিত বিরক্তিকর পাত্র হয়ে ওঠা— সব মিলিয়ে জীবনের কাছে খুব সহজেই হার মানতে শুরু করেছিল সে। ওদের বিপদের আভাস পেয়ে আগেভাগে সুচরিতাকে সতর্ক করে দেয় পাড়ার ওষুধের দোকানের বৃদ্ধ কর্মচারী। তাঁর ছেলে রজতের কাছে পড়ত সেই সুবাদেই ওদের পরিবারে আনাগোনা রয়েছে। হঠাৎ একদিন পুরোনো প্রেসক্রিপশন দেখিয়ে ঘুমের ওষুধ কিনতে গিয়ে হাবেভাবে হতাশার কথা প্রকাশ করে ফেলেছিল রজত। তাই বাড়ি এসে গোটা বিষয়টি সুচরিতাকে জানিয়ে যান তিনি। পাঁচ বছরের বিবাহিত জীবনে সেদিনই প্রথম অহংকারী, দাম্ভিক স্বামীকে ভেঙে পড়তে দেখে সুচরিতা। স্ত্রীকে জড়িয়ে ধরে অঝোরে কেঁদে ফেলেছিলেন সে। বুদ্ধিমতী, দৃঢ়চেতা মনের অধিকারী সুচরিতা সেদিন মৃত্যুমুখ থেকে ফিরিয়ে আনে রজতকে। তবে রজতের অস্বাভাবিকতা অনেকদিন আগেই চোখে পড়েছিল সুচরিতার। তাই খুব সন্তর্পণে লক্ষ রেখেছিল সে রজতের প্রতি।
এরকমই কিছু আকস্মিক পরিবর্তন আমাদের বিপদের আভাস দেয়, জানিয়ে যায় যে আমাদের খুব কাছের মানুষ হঠাৎ সব কিছু ছেড়ে চলে যাওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছে। আত্মহত্যার প্রচেষ্টা কত অংশে সফল কত অংশে ব্যর্থ তা জানতে গেলে চোখ রাখতে হবে সাম্প্রতিক পরিসংখ্যান। ২০১৫ সালের পরিসংখ্যান বলছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে প্রায় বিভিন্ন বয়সের প্রায় ৪৪,০০০ জন নানাভাবে আত্মঘাতী হয়েছেন। মানসিক অবসাদ, সম্পর্কের টানাপোড়ের ইত্যাদি কারণে প্রতি এক লাখে ১০-১৪ বছর বয়সিদের মধ্যে ৪০৯ জন, ১৫-২৪ বছরের ৫৪৯১ জন, ২৫-৩৪ বছরের মধ্যে ৬৯৪৭ জন, ৩৫-৪৪ বছরের মধ্যে ৬৯৩৬ জন, ৪৫-৫৪ বছরের মধ্যে ৮৭৫১ জন, ৫৫-৬৪ বছরের মধ্যে প্রায় ৭৭৩৯ জন আত্মহত্যা করার খবর পাওয়া গিয়েছে।
মনোরোগ বিশেষজ্ঞরা এই আত্মহত্যা প্রবণতাকে এক ধরনের মানসিক অসুস্থতা হিসাবে ব্যাখ্যা করেছেন। তাদের কথায় এটি একধরনের জটিল মানসিক পরিস্থিতিকে মূল তৈরি হয় পারিপার্শ্বিক প্রভাব থেকে। কিন্তু পরে ধীরে ধীরে সেটা মন এবং মাথাকে এমনভাবে গ্রাস করে যার থেকে বেরিয়ে আসা প্রায় অসম্ভব হয়ে দাঁড়ায়। কিছু লক্ষণ অবশ্যই রয়েছে যার দ্বারা খুব সহজেই মানুষের মনের অবস্থা বোঝার চেষ্টা করা যায়, কিংবা এই আত্মহত্যা প্রবণ সত্ত্বাকে চেনা যায়। বিশেষত অল্পবয়সিদের মধ্যে এই বিষয়টা অনেক বেশি পরিচিত। সম্পর্কে ভাঙন, প্রতারণা, প্রেমে ব্যর্থতা, প্রিয় বন্ধুর সঙ্গে মনোমালিন্য ইত্যাদি নানা কারণে তৈরি হয়। একজন টিন এজারের জীবনে আর তা স্বাভাবিক কিছু নয়। তাই নিম্নলিখিত কয়েকটি লক্ষণ দেখা দিলেই সাবধান হতে হবে। যেমন-
—কিছু মানসিক অসুস্থতা থাকলে।
—অত্যন্ত প্রিয় বা কাছের কোনও জিনিসের প্রতি আগ্রহ হারানো।
—জীবন বা মৃত্যু সম্পর্কে দার্শনিক চিন্তাভাবনা, মৃত্যু সংক্রান্ত কোনও লেখা পড়া বা কবিতা বানানো।
— হঠাৎ করে কাছের মানুষদের প্রতি সন্দেহজনকভাবে ভালো ব্যবহার বা সবকিছু মেনে নেওয়ার প্রবণতা।
—মোবাইল ফোন কিংবা কম্পিউটার থেকে দূরে থাকা। সবার সঙ্গে আচমকা যোগাযোগ বন্ধ করে দেওয়া।
—হঠাৎ জীবনযাত্রা, খাওয়াদাওয়া ও অন্যান্য অভ্যাস বদলে ফেলা।
—যেকোনও বিষয়ে হাল ছেড়ে দেওয়া স্বভাব, আবার কখনও নিরুপায় ভাব দেখানো।
—নিজের সম্পর্কে খুব নেতিবাচক মনে করা বা অন্যের সামনে নিজেকে অপদার্থ মনে হওয়া।
জীবনের প্রতি আগ্রহ কমে যাওয়ার কারণে বা পারিপার্শ্বিক অবসাদগ্রস্ত পরিপ্রেক্ষিকে সবসময় সতর্ক থাকা যায় না। তবু কারণ হিসেবে কয়েকটি বিষয়ে উল্লেখ করা যায়। যেমন- চরম কোনও আর্থিক সংকট, পারিবারিক অশান্তি, চতুর্দিকে ধারদেনা বা পাওনাদারের কাছে অপমান, ছাত্রছাত্রীদের কাছে পড়াশোনার ব্যর্থতা সম্পর্কের টানাপোড়েন, বাবা-মায়ের সম্পর্কের প্রভাব ইত্যাদি নানাকারণে ‘লড়াই’-এর বদলে ‘পালাই’-এর মন্ত্র উচ্চারিত হয়ে থাকে অন্তরের অন্তরস্থলে।
ঠিক এই মুহূর্তে কাছের লোকটির জন্য প্রয়োজন হয়ে পড়ে উপযুক্ত চিকিৎসা বা কাউন্সেলিং-এর। সঠিক সময়ে সঠিক চিকিৎসা কাউন্সেলিংই পারে মুক্তির পথ দেখাতে।

কয়েকটি চাঞ্চল্যকর তথ্য

আত্মহত্যার পরিসংখ্যান
দেউলিয়া এবং ঋণগ্রস্ত হয়ে— ৪,৩৫৭
বিবাহসংক্রান্ত সমস্যায়— ৬,৪১২
পরীক্ষায় অকৃতকার্য হয়ে— ২,৬৪৬
বন্ধ্যত্ব—৪৪৮
অন্যান পারিবারিক সমস্যা— ৩৬,৯২৮
শারীরিক অসুস্থতা
(এইডস, এসটিডি, ক্যানসার, প্যারালাইসিস, মানসিক অসুস্থতা, দীর্ঘদিন ধরে অসুস্থতা)— ২১,১৭৮
প্রিয়জনের মৃত্যু— ৯৫১
ড্রাগ সেবন/আসক্তি— ৩,৬৭০
সামাজিক সম্মান নষ্ট হয়ে— ১,০৯৩
আদর্শগত কারণ/কাউকে আদর্শ হিসাবে কল্পনা করে— ৫৭
প্রেম সংক্রান্ত কারণ— ৪,৪৭৬
দারিদ্র— ১,৬৯৯
বেকারত্ব—২,৭২৩
সম্পত্তি সংক্রান্ত কারণে— ২,৪৯১
সন্দেহের বশে /অবৈধ সম্পর্ক—৪৭৪
(অবৈধ) গর্ভধারণ সংক্রান্ত সমস্যা—৪৯
ধর্ষণ, শ্লীলতাহানি—৮০
পেশাগত সমস্যায়— ১,৫৯০
কারণ জানা যায়নি— ১৬,২১৪
অন্যান্য কারণে—২৬,০৮৭
মোট সংখ্যা —১৩৩৬২৩
 প্রতি ১ ঘন্টায় একজন পড়ুয়া আত্মহত্যা করে এদেশে।
 প্রতি ঘন্টায় ১৫ জন মানুষ আত্মহত্যা করেন এদেশে।
তথ্যসূত্র : এনসিআরবি ও ল্যানসেট
মহিলাদের আত্মহত্যা
১৯৯৭ সাল থেকেই প্রতিবছর গড়ে প্রায় ২০ হাজার গৃহবধূ আত্মঘাতী হন। পণপ্রথা এবং গার্হস্থ্য হিংসাও এই ধরনের ঘটনার পিছনে অন্যতম কারণ। গ্লোবাল বার্ডেন অব ডিজিজ স্টাডি-এর করা সমীক্ষা অনুযায়ী সারাবিশ্বের মধ্যে মহিলাদের আত্মহত্যার ক্ষেত্রে আমাদের দেশ রয়েছে উপরের দিকে।
সমগ্র বিশ্বে
হু’র তথ্য অনুযায়ী প্রতিবছর প্রায় ১০ লক্ষ মানুষ আত্মহত্যা করে মারা যান। প্রতি ৪০ সেকেন্ডে একজন আত্মহত্যা করেন। ১৫ থেকে ২৯ বছর বয়সের মধ্যে প্রাণ হারানোর দ্বিতীয় বৃহত্তম কারণ হল আত্মহত্যা।
ব্লু-হোয়েল
নোভায়া গেজাটা সংবাদপত্রের তথ্য অনুযায়ী নীল তিমির ডাকে সাড়া দিয়ে বাচ্চা এবং কমবয়সি ছেলেমেয়ে মিলিয়ে প্রায় ১৩০ জন আত্মহত্যা করেছে। তবে সংখ্যাটা আরও বেশি বলেই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

14th  September, 2017
 বাচ্চারও যখন ডায়াবেটিক

প্রত্যেক বছর ১৪ নভেম্বর বিশ্ব ডায়াবেটিস দিবস পালিত হয়। লক্ষণীয় বিষয় হল—১৪ নভেম্বরের আরেকটি গুরুত্বও আছে—সেটি হল এই দিনটি শিশু দিবস। এই দুটি বিষয়কে আমরা যদি একই দিনে উদ্‌যাপিত করতে পারি, তবে পেডিয়াট্রিক ডায়াবেটিস বা শৈশবের মধুমেহর আলোচনা আরও প্রাসঙ্গিক হয়ে পড়ে।
বিশদ

16th  November, 2017
  চন্দননগরে বার্থ

 চলতি বছরে চন্দননগরে উদ্বোধন হল বেঙ্গল ইনফার্টিলিটি অ্যান্ড রিপ্রোডাকটিভ থেরাপি হসপিটালের (বার্থ) আরও একটি শাখার। অনুষ্ঠানে উপস্থিত বার্থ-এর প্রতিষ্ঠাতা ও মেডিক্যাল ডিরেক্টর ডাঃ গৌতম খাস্তগীর, পুর ও নগরন্নোয়ন মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম, মাননীয় সাংসদ রত্না দে নাগ, চন্দননগর পৌরসভার মেয়র শ্রী রাম চক্রবর্তীসহ বহু বিশিষ্ট মানুষ।
বিশদ

16th  November, 2017
সুরক্ষার ডায়াবেটিস সচেতনতা শিবির

 এদেশে ক্রমশ বেড়েই চলেছে টাইপ-২ ডায়াবেটিসে আক্রান্তর সংখ্যা। মূলত অনিয়ন্ত্রিত জীবনযাপন, খাদ্যগ্রহণে অংসযম, শরীরচর্চায় অনীহা হল টাইপ-২ ডায়াবেটিস হওয়ার মূল কারণ। এই কারণেই কমবয়সিদেরও, বিশেষ করে মহিলাদের ডায়াবেটিস রোগটি নিয়ে আরও সতর্ক হতে হবে।
বিশদ

16th  November, 2017
শিশুদের পাশে সরোজ গুপ্ত ক্যানসার

শিশু দিবস উপলক্ষ্যে কলকাতার সরোজ গুপ্ত ক্যানসার সেন্টার অ্যান্ড রিসার্চ ইনস্টিটিউটের পেডিয়াট্রিক ক্যানসারে আক্রান্তদের জন্য একটি অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছিল। অনুষ্ঠানে ক্যানাসারে আক্রান্ত শিশুদের সামনে ক্যানসার থেকে ফিরে আসা শিশুদের উপস্থিত করেছিল হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। পাশাপাশি সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের ব্যবস্থাও ছিল সেখানে।
বিশদ

16th  November, 2017
হাড়ের ক্ষয় আটকাবেন কীভাবে?

দীর্ঘদিন ধরে গায়ে হাত-পায়ে ব্যথা হলে মোটেই এড়িয়ে চলা যাবে না। দেখা গিয়েছে চল্লিশোর্ধ্ব মহিলা এবং বয়স্কদের ক্ষেত্রে এই ধরনের ব্যথার কারণ হতে পারে অস্টিওপোরোসিস বা হাড়ের ক্ষয়জনিত অসুখ। চিকিৎসা না করালে সমস্যা আরও জটিল হয়ে পড়ে। জানাচ্ছেন অ্যাপোলো হাসপাতালের অর্থোপেডিক বিভাগের ডিরেক্টর ডাঃ বুদ্ধদেব  চট্টোপাধ্যায় এবং ন্যাশনাল রিসার্চ ইনস্টিটিউট অব আয়ুর্বেদিক ড্রাগ ডেভেলপমেন্ট-এর চিকিৎসাবিজ্ঞানী ডাঃ দেবজ্যোতি দাস।
বিশদ

09th  November, 2017
 ক্যানসার মোকাবিলায় মৈত্রী

সারা ভারতে সমস্ত ধরনের ক্যানসারে আক্রান্তের সংখ্যার নিরিখে ব্রেস্ট ক্যানসারে আক্রান্তরা সংখ্যায় দ্বিতীয়। আর ভারতসহ পশ্চিমবঙ্গেও এই রোগের প্রকোপ দিন দিন বাড়ছে বলে ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অব মেডিকেল রিসার্চের তথ্যে উঠে এসেছে। এমন সংকটজনক পরিস্থিতিতে ব্রেস্ট ক্যানসারে আক্রান্তের সুবিধার্থে হাওড়ার নারায়ণা সুপারস্পেশালিটি হাসপাতালের পক্ষ থেকে ‘মৈত্রী’ নামের একটি ক্যানসার সহায়তা গোষ্ঠী তৈরি করা হয়েছে।
বিশদ

09th  November, 2017
বাঙালি চিকিৎসকের বিশ্বজয়

 সম্প্রতি কলকাতার ইনস্টিটিউট অব নিউরোসায়েন্সেস-এর কর্ণধার অধ্যাপক ডক্টর রবিন সেনগুপ্তকে বেঙ্গল রোয়িং ক্লাবে বিশেষ সম্মানে সম্মানিত করা হল। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন রামকৃষ্ণ মঠ ও মিশনের স্বামী অভিরামানন্দ মহারাজ, ব্রিটিশ ডেপুটি হাইকমিশনের প্রতিনিধিসহ বহু বিশিষ্ট মানুষ।
বিশদ

09th  November, 2017
ঋতু পরিবর্তনের অসুখবিসুখে 
সাবধান থাকবেন কীভাবে?

ঠান্ডা আবহাওয়ায় প্রধানত বাড়ে শ্বাসতন্ত্রের রোগ। যদিও এ রোগের প্রধান কারণ ভাইরাস। তথাপি বাইরের তাপমাত্রার সঙ্গেও এর সম্পর্ক রয়েছে। শীতে বাতাসের তাপমাত্রা কমার সঙ্গে আর্দ্রতাও কমে যায়, যা শ্বাসনালির স্বাভাবিক কর্ম প্রক্রিয়াকে বিঘ্নিত করে ভাইরাসের আক্রমণকে সহজ করে। এছাড়া ধূলোবালির পরিমাণ বেড়ে যায়। ঠান্ডা, শুষ্ক বাতাস হাঁপানি রোগীর শ্বাসনালিকে সরু করে দেয়, ফলে হাঁপানির টান বাড়ে।
বিশদ

02nd  November, 2017
জ্বর-জ্বালায় হোমিওপ্যাথি

যখন কোনও মানুষের দৈহিক তাপমাত্রা খুব বৃদ্ধি পায়, তখন আমরা তাকে জ্বর বলি। প্রথমেই বলি, আমাদের শরীরের স্বাভাবিক তাপমাত্রা ৩৬-৩৭ সেন্ট্রিগ্রেড বা ৯৪-১০০ ডিগ্রি ফারেনহাইট। এছাড়া এমনিতেই দিনের বিভিন্ন সময় আমাদের শরীরের তাপমাত্রা বিভিন্ন রকম হয়ে থাকে। সন্ধ্যায় সর্বাধিক, আবার নিম্নতম হয় ভোরবেলা বা সকালের দিকে। এই ধরনের ব্যতিক্রম ছাড়া শরীরের তাপমাত্রা স্বাভাবিকের বেশি হওয়ার পিছনে নানা কারণ থাকে। বিশদ

02nd  November, 2017
ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে হাঁটার গুরুত্ব

আগামী ১৪ নভেম্বর বিশ্ব ডায়াবেটিস দিবস। এই উপলক্ষ্যে বাংলার জনগণের মধ্যে ডায়াবেটিস সম্বন্ধে সচেতনতা বাড়াতে বিশেষ সচেতনতাবৃদ্ধিমূলক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছিল নেওয়া হয়েছিল জি ডি হসপিটাল এবং ডায়াবেটিস ইনস্টিটিউটের তরফে। উপস্থিত ছিলেন সংস্থার সি ই ও-মুসরেফা হোসেন, সংস্থার চেয়ারম্যান প্রফেসর ডাঃ সুকুমার মুখোপাধ্যায়, সংস্থার দন্ত বিভাগের প্রধান ডাঃ দীপ্ত দে, চক্ষুরোগ বিশেষজ্ঞ ডাঃ সৈকত চক্রবর্তী, এন্ডোক্রিনোলোজিষ্ট ডাঃ নীলাঞ্জন সেনগুপ্তসহ বহু বিশিষ্টজন। ডাঃ সুকুমার মুখোপাধ্যায় বলেন, প্রতিদিন হাঁটাহাঁটি করলে যথেষ্ট পরিমাণ ক্যালরি খরচ হয়।
বিশদ

02nd  November, 2017
স্কুলে যাওয়া নিশ্চিত করতে বিমা

 দুঃস্থ পরিবারের কোনও পড়ুয়া হাসপাতালে ভরতি হলে তার চিকিৎসার খরচ বহন করতেই বাবা-মা হিমশিম খান। অনেকক্ষেত্রে এই অর্থনৈতিক বোঝা বাচ্চার লেখাপড়ায় ব্যাঘাত করে। আবার বাড়ির একমাত্র রোজগেরে সদস্যটির অকালপ্রয়াণ ঘটলেও কোপ পড়ে বাচ্চার পড়াশোনায়।
বিশদ

02nd  November, 2017
উপোস
শরীরের লাভ হয় না ক্ষতি?

 মানবদেহে উপোসের প্রভাব কী?
 দেখুন, এই প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার আগে উপোস সম্বন্ধে একটু জেনে নেওয়া দরকার। আসলে উপোসের ধারণাটি বহু প্রাচীন। প্রায় সকল ধর্মের সঙ্গেই উপোসের একটা নিবিড় যোগাযোগ রয়েছে।
আবার ধর্ম ছাড়াও প্রতিবাদের ভাষা হিসাবেও উপোসের চল রয়েছে। মানুষের দীর্ঘ প্রতিবাদের ইতিহাসে আমরা অনশনের একটা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা দেখতে পাই। এটা একটা দিক।
বিশদ

26th  October, 2017
রিউম্যাটয়েড আর্থ্রাইটিস : দ্রুত রোগ নির্ণয় জরুরি

 রিউম্যাটয়েড আর্থ্রাইটিস রোগে আক্রান্তের সংখ্যা দিন দিন বেড়েই চলেছে। আর সময়ে এই রোগের চিকিৎসা শুরু না করলে সমস্যা গুরুতর আকার নেয়। তাই বিশ্ব আর্থ্রাইটিস দিবসে প্রাথমিক স্তরে রোগ নির্ণয়ের উপর বিশেষ গুরুত্ব আরোপ করছেন শহরের বিশিষ্ট রিউম্যাটোলজিস্টরা।
বিশদ

26th  October, 2017
রবীন্দ্রনাথের হোমিওপ্যাথি প্রীতি

 অ্যাসোসিয়েশন অব ভলেন্টারি ব্লাড ডোনারস পশ্চিমবঙ্গ শাখার প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ছিলেন প্রয়াত ডাঃ লাবণ্যকুমার গাঙ্গোপাধ্যায়। সম্প্রতি তাঁরই নামাঙ্কিত স্মারক বক্তৃতার আয়োজন করা হয়েছিল কলকাতার ইন্দুমতী সভাগৃহে। রবীন্দ্রনাথ এবং গণস্বাস্থ্য বিষয়ক বক্তৃতার বক্তা ছিলেন ডাঃ শ্যামল চক্রবর্তী।
বিশদ

26th  October, 2017
একনজরে
বিএনএ, শিলিগুড়ি: শনিবার গভীর রাতে ভক্তিনগর থানার সেভক রোডের একটি গুদামে দুষ্কৃতী হামলায় এক নিরাপত্তা রক্ষী খুন হন। পুলিস জানিয়েছে, নিহত নিরাপত্তারক্ষীর নাম রঘুনাথ রায়(৬২)। অভিযুক্তের খোঁজে পুলিস তল্লাশি শুরু করেছে।  ...

কাবুল, ১৯ নভেম্বর (এপি): আফগানিস্তানের পশ্চিমে ফারা প্রদেশে পুলিশের একাধিক চেক পোস্টে হানা দিল তালিবান জঙ্গিরা। তালিবানের হানায় মৃত্যু হয়েছে ৬ জন পুলিশকর্মীর। শনিবার বিকালের ঘটনা। প্রাদেশিক সরকারের মুখপাত্র নাসের মেহরি বলেন, জঙ্গিদের আটজনের একটি দল ওই হামলা চালিয়েছে। এই ...

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: বিজ্ঞানে এবছর নতুন পাঠ্যক্রম চালু হয়েছে আইসিএসই স্কুলগুলিতে। কিন্তু সেখানে নতুন বিষয়গুলি শিক্ষকরা কীভাবে পড়াবেন, তার জন্য প্রশিক্ষণ বা কর্মশালার প্রয়োজন রয়েছে। তবে সময়ের মধ্যে তা হয়ে ওঠেনি। তাই প্রযুক্তির মাধ্যমে সেই কাজ সেরে ফেলতে চাইছে কাউন্সিল। ...

সংবাদদাতা, কান্দি: কান্দি মহকুমা এলাকায় অযত্নে শুকিয়ে নষ্ট হচ্ছে সবুজমালা প্রকল্পের বহু মূল্যবান গাছ। বছরখানেক আগে কান্দি মহকুমা এলাকার বিভিন্ন রাস্তার দু’পাশে ওই গাছগুলি লাগানো হয়েছিল। কিন্তু বছর পেরনোর আগেই অর্ধেক গাছ শুকিয়ে নষ্ট হয়ে গিয়েছে যত্নের অভাবে। গাছের চারদিকের ...


আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

প্রেম-প্রণয়ে নতুনত্ব থাকবে। নতুন বন্ধু লাভ, ভ্রমণ ও মানসিক প্রফুল্লতা বজায় থাকবে। কোনও কোনও ক্ষেত্রে ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৭৫০- মহীশূরের শাসক টিপু সুলতানের জন্ম।
১৯১০- রুশ সাহিত্যিক লিও তলস্তয়ের মৃত্যু।
১৯১৭- কলকাতায় প্রতিষ্ঠা হল বোস রিসার্চ ইনস্টিটিউট।
১৯৫৫- নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে ভারতের পক্ষে টেস্টে প্রথম দ্বিশতরান করলেন উমরিগড় (২২৩)।  

ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৬৪.০০ টাকা ৬৫.৬৮ টাকা
পাউন্ড ৮৪.৩২ টাকা ৮৭.১৯ টাকা
ইউরো ৭৫.২০ টাকা ৭৭.৮৩ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
18th  November, 2017
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৩০,১৯৫ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ২৮,৬৫০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ২৯,০৮০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৪০,২০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৪০,৩০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]
19th  November, 2017

দিন পঞ্জিকা

৪ অগ্রহায়ণ, ২০ নভেম্বর, সোমবার, দ্বিতীয়া রাত্রি ৯/৩৬, নক্ষত্র-জ্যেষ্ঠা রাত্রি ১২/৪৮, সূ উ ৫/৫৬/২৫, অ ৪/৪৮/৪, অমৃতযোগ দিবা ঘ ৭/২৩ মধ্যে পুনঃ ৮/৫০ গতে ১১/০ মধ্যে। রাত্রি ঘ ৭/২৬ গতে ১০/৬ মধ্যে পুনঃ ২/২৭ গতে ৩/১৯ মধ্যে, বারবেলা ঘ ৭/১৮ গতে ৮/৪০ মধ্যে পুনঃ ২/৫ গতে ৩/২৬ মধ্যে, কালরাত্রি ৯/৪৪ গতে ১১/২২ মধ্যে।
৩ অগ্রহায়ণ, ২০ নভেম্বর, সোমবার, দ্বিতীয়া রাত্রি ৭/৪২/২৮, জ্যেষ্ঠানক্ষত্র ১১/৫৫/৩৬, সূ উ ৫/৫৬/৫৮, অ ৪/৪৬/৫৮, অমৃতযোগ দিবা ৭/২৩/৩৮, ৮/৫০/১৮-১১/০/১৮ মধ্যে এবং রাত্রি ৭/২৪/৫৮-১০/৫৫/১৮, ২/২৫/৩৭-৩/১৮/১৮, বারবেলা ২/৪/২৮-৩/২৬/৪৩, কালবেলা ৭/১৮/১৩-৮/৩৯/২৮, কালরাত্রি ৯/৪৩/১৩-১১/২১/৫৮। 
৩০ শফর

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
বারুইপুর স্টেশনে অবরোধ উঠল, শিয়ালদহ বিভাগের প্রতিটি শাখায় ৮টা ৩৪ মিনিট থেকে ফের শুরু ট্রেন চলাচল

09:07:41 PM

রেল অবরোধ ঘিরে ধুন্ধুমার বারুইপুর স্টেশন

 বেআইনি উচ্ছেদ অভিযানের প্রতিবাদে রেল অবরোধকে কেন্দ্র করে ...বিশদ

08:40:29 PM

লুধিয়ানায় প্লাস্টিক কারখানায় আগুন, মৃত ৩
লুধিয়ানায় একটি প্লাস্টিকের ব্যাগ তৈরির কারখানায় ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডে ...বিশদ

08:13:00 PM

ফের দালাল চক্রের অভিযোগ এসএসকেএম হাসপাতালে

 ফের দালাল চক্রের অভিযোগ উঠল এসএসকেএম হাসপাতালে। টাকা নিতে গিয়ে ...বিশদ

07:10:02 PM

 বিহারের গোপালগঞ্জে হাইটেনশন লাইনের বিদ্যুৎস্পৃশ্য হয়ে মৃত ৫, গুরুতর আহত ৩

06:22:00 PM