Bartaman Patrika
শিক্ষা-কেরিয়ার
 

 চাকরির অবস্থার পরিবর্তন হলেও বাজারে নতুন চাকরির সুযোগও কম নয়

পড়ার বিষয়ের যেমন বদল ঘটছে তেমনই পড়ুয়াদেরও সুযোগ রয়েছে নতুন নতুন বিষয়কে কেরিয়ার হিসেবে বেছে নেওয়ার। চাকরির বাজারে চূড়ান্ত প্রতিযোগিতা থাকলেও সঠিকভাবে তৈরি হতে পারলে এখনও ভালো প্রতিষ্ঠানে চাকরি হাতের নাগালের বাইরে নয়। এসব নিয়েই কথা বললেন কলিঙ্গ ইনস্টিটিউট অব ইন্ডাস্ট্রিয়াল টেকনোলজি’র প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক ডঃ অচ্যুত সামন্ত।

 আমরা তো উন্নয়নশীল দেশের মানুষ। শিক্ষা কীভাবে সমাজ গঠনে সাহায্য করতে পারে বলে আপনার মনে হয়?
 শিক্ষা একমাত্র মাধ্যম যাতে সমাজের প্রগতি এবং উন্নতি হতে পারে। যেখানে শিক্ষা নেই সেখানে সমাজ বদ্ধ, তার এগনোর কোনও জায়গাও নেই। শিক্ষা সমাজের সবথেকে বড় উপহারও বলা যায়। যে দেশে কিংবা প্রদেশে শিক্ষা আছে আপনি দেখুন সেখানে উন্নতি ততই বেশি। শিক্ষিত মানুষ যেভাবে সমাজকে এগিয়ে নিয়ে যেতে পারে তা আর কারও পক্ষেই সম্ভব নয়। আর শিক্ষিত মানুষ যেখানে বেশি থাকবে সেখানেই সমাজ সঠিক পথে, সঠিক ভাবে এগোবে।
 আপনি ‘কিট’- এর ফাউন্ডার। আপনি আজ বিশ্বের কাছে নিজের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে তুলে ধরেছেন। আচ্ছা কেরিয়ারের কোন পর্যায় এসে আপনার মনে হল এরকম একটি প্রতিষ্ঠানের দরকার?
 আমার ছোট থেকে বড় হওয়ার মধ্যে কোথাও একটা এই স্বপ্ন লুকিয়ে ছিল। আমি খুব গরিব পরিবারে জন্মেছিলাম, না খেতে পাওয়া পরিবারে বড় হতে হতে বুঝেছিলাম কোথাও গিয়ে শিক্ষার খুব দরকার। আমি নিজে খুব মন দিয়ে পড়াশোনা করা শুরু করি। বড় হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে শিক্ষামাধ্যমে কিছু করার ইচ্ছা এবং স্বপ্নটাও বড় হতে লাগল। তারপর মাত্র ২৫ বছর বয়সে আমি আরম্ভ করলাম ‘কিট’ এবং ‘কিস’ (কলিঙ্গ ইনস্টিটিউট অব সোশ্যাল সায়েন্সেস)। ভাড়া বাড়িতে খুব কম সংখ্যক ছাত্রছাত্রী নিয়ে আমি এটা শুরু করি। এখন ‘কিট’- এ সারা বিশ্ব থেকে ছাত্রছাত্রী আসে। পশ্চিমবঙ্গ থেকেও অনেকে আসে। আর ‘কিস’ হল গরিব আদিবাসীদের জন্য। ওদের থেকে আমি কোনও টাকা নিই না। ওদের ছোট থেকে বিশ্ববিদ্যালয় পর্যন্ত পড়াশোনা আমাদের এখানে হয়। এই দুই সংস্থাকে বিশ্বমানের তৈরি করার জন্য আমরা পরের স্টেপগুলো নিলাম।
এখন ৫৩ টা দেশের ছেলেমেয়ে এখানে পড়ে। লন্ডনের ‘অ্যাক্রেডেশান ইনস্টিটিউট অব ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড টেকনোলজি ইউ কে’-সেটাও আমরা পেয়েছি।
 ‘কিট’-এর শিক্ষাব্যবস্থা নিয়ে জানতে চাই। কী বিষয় পড়ানো হয় এবং ভবিষ্যতের সুযোগগুলি কী কী?
 তিরিশ হাজার ছেলেমেয়ে আমাদের এই সংস্থায় আছে। এখানে তারা বহু বিষয় পড়ার সুযোগ পায়। তার মধ্যে আছে ইঞ্জিনিয়ারিং, মেডিক্যাল, ডেন্টাল, নার্সিং, ম্যানেজমেন্ট, ল, বায়োটেকনোলোজি, রুরাল ম্যানেজমেন্ট, ফ্যাশন ম্যানেজমেন্ট, মাস কমিউনিকেশন সব কিছু গ্র্যাজুয়েশন পর্যন্ত এখানে পড়ানো হয়। তাছাড়া এখানে স্কুল লেভেলেও শিক্ষা দেওয়া হয় যা সিবিএসসি-র সঙ্গে যুক্ত। ২৫ টা ক্যাম্পাস আছে। বিশ্বমানের নানা সুযোগ এখানে দেওয়া হয়ে থাকে।
 ‘কিস’- নিয়ে যদি কিছু বলেন।
 গরিব আদিবাসী ছেলেমেয়েদের জন্য এটা তৈরি। আমি নিজেই যেহেতু ছোটবেলায় গরিবি দেখেছি তাই আমি জানি একজন ছেলে বা মেয়ে এই দারিদ্র্যের জন্য ঠিক করে শিক্ষা পায় না। ফলে তাদের আর উন্নতি হয় না। তাদের কীভাবে মূলস্রোতে আনা যেতে পারে সেটাই আমার মূল ভাবনা ছিল কারণ একবার তারা শিক্ষিত হলে সমাজে তাদের অবস্থার উন্নতি হবে। তারা নিজে রোজগার করে পরিবারকে সাহায্য করতে পারবে এবং তাদের সন্তানদের আর তাদের মতো অসুবিধার মধ্যে পড়তে হবে না। এটা খুব বড় সাফল্য আমার কাছে। এখান থেকে কুড়ি হাজার ছেলে মেয়ে পাশ করে গিয়েছে। আরও তিরিশ হাজার ছেলে মেয়ে এখানে আছে এখন। পড়ছে তারা। এখান থেকে স্পোর্টস এবং অ্যাথলেটিক্সে অনেক ছেলে মেয়ে সুযোগ পায়, তাদের মধ্যে অনেকেই আজ দেশের হয়ে খেলছে, ভারতকে ট্রফি এনে দিচ্ছে।
 ওড়িশার শিক্ষাব্যবস্থার ক্ষেত্রে তার উন্নতি, ভবিষ্যতে এই শিক্ষাব্যবস্থা কোন জায়গায় যেতে পারে এবং সেক্ষেত্রে আপনি কীভাবে সেই যাত্রার অংশ হয়ে উঠবেন বলে মনে করেন?
 ওড়িশার শিক্ষা ব্যবস্থা বেশ ভালো এবং তা ভবিষ্যতে আরও ভালো হবে। এমনিতেই ওড়িশাকে ‘এডুকেশনাল হাব অব ইস্টার্ন জোন’- বলা হচ্ছে। ওখানে এখন আমাদের মুখ্যমন্ত্রী নবীন পট্টনায়কের নেতৃত্বে ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট খুলেছে। তাই বলব ওড়িশার আগামীদিনের এডুকেশন সিনারিও খুব আশাব্যাঞ্জক।
 রাজনৈতিক সক্রিয়তার পাশাপাশি একজন বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ আপনি। এই দুটি দিক আপনি একসঙ্গে সামলান কীভাবে?
 সমস্যা হয় না খুব একটা। কারণ আমি সোশ্যাল ওয়ার্কার এবং শিক্ষাবিদ হিসেবে প্রায় তিরিশ বছর ধরে কাজ করছি। আর তাই আমার কাছে এই কাজটা খুব ভালোবাসার জায়গায় আছে এবং প্রায় জীবনের একটা অংশ হয়ে উঠেছে। এর মাঝেই নানা লোকের সঙ্গে দেখা করা-মেলামেশা-কথা চলছিল। এখন রাজনীতিতে এসে ওই লোকেদের সঙ্গেই কাজ করব আমি। শুধু আরও বড় করে এবং ভালোভাবে কাজটা করতে পারব।
 একটা শিক্ষা সংস্থার আদর্শ পরিবেশ কেমন হওয়া উচিত বলে আপনার মনে হয়?
 একটা শিক্ষানিকেতনকে ‘ছাত্র-বান্ধব’ হতে হবে। তারপর ‘কর্মচারী-বান্ধব’ হতে হবে এবং শেষ কিন্তু সবথেকে বড় বিষয় যেটা সেটা হল শিক্ষাগত মান বজায় রাখতে হবে। ছাত্র ছাত্রীদের কোনওরকম সমস্যা হলে সেটা জানতে হবে এবং সেটাকে সমাধানের চেষ্টা করতে হবে। অভিভাবকদের সঙ্গেও সংযোগ রাখতে হবে। ছাত্র ছাত্রীরাই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সম্পদ, তাদের ঘিরেই সব, তাই তাদের কথা মাথায় রেখে সংস্থাকে এগতে হবে। আমাদের সংস্থায় যেমন আছে টিউটর-মেন্টর প্রোগ্রাম। যেখানে ২০-২৫ জন ছাত্রছাত্রীকে নিয়ে একজন শিক্ষক শিক্ষাদান করেন। সবার সমস্যা আলাদা করে শোনা এবং তা সমাধান করাই এখানে আসল বিষয়।
 বর্তমানে অনলাইন বা ডিজিটাল এডুকেশন মানুষের কাছে ধীরে ধীরে গ্রহণযোগ্য হয়ে উঠছে। এই ব্যবস্থা নিয়ে আপনার কী মত? কতটা গ্রহণযোগ্য এই শিক্ষা?
 এটা নির্ভর করে কে কোন শিক্ষা দিচ্ছে তার উপর এবং কে কীভাবে দিচ্ছে তার ওপর। প্র্যাক্টিকাল বিষয় যাতে থাকে সেটা অনলাইনে পুরোটা করা সম্ভব নয়। এবার দেখতে হবে রেগুলার ক্লাস যে করছে আর অনলাইন ক্লাস যে করছে তাদের
মধ্যে কে বেশি সেলেবেল। যে বেশি সেলেবেল তার কেরিয়ারে সুযোগ বেশি কিংবা সে বেশি ভালো চাকরি পাবে।
তুলনায় শিক্ষার হার বাড়লেও এখন চাকরি কম। অনেকেই পড়াশোনা করছে কিন্তু চাকরি পাচ্ছে না। তাদের আপনি কী বলবেন?
 এখন আগের থেকে চাকরির অবস্থা যেমন অন্যরকম হয়েছে ঠিক সেভাবে মার্কেটে অনেক নতুন রকম চাকরি তৈরি হয়েছে। এখন অনেক বিষয় নিয়ে পড়ার সুবিধা আছে। আমাদের সময় সেসব কিছুই ছিল না। এখন স্কোপ অনেক বেশি। ছাত্র ছাত্রীদের কাজের ইন্টারেস্ট কোথায়, যোগ্যতা কী সেসব দেখে সঠিক কেরিয়ার বেছে নিতে হবে। তারপর সেই লাইনে কীভাবে এগিয়ে যাওয়া যায় সেটাই দেখতে হবে।
 সাম্প্রতিক যুব সম্প্রদায়কে একজন শিক্ষাবিদ হিসেবে কী বলবেন?
 ওদের এটাই বলব যে তোমাদের কাছে এখন সুবিধা অনেক। অনেক কিছুই আছে যেমন কম্পিউটার কিংবা ইন্টারনেট যেগুলো আগে ছিল না। আমাদের সময় কেবল ছিল ক্লাসরুম টিচিং ব্যস আর কিছুই নয়।
এখন অনেক স্কোপ আছে ছাত্র ছাত্রীদের। তার সঠিক ব্যবহার করা উচিত। যার যাতে ইন্টারেস্ট সেটাই পড়ো। মনে রেখো সব লাইনেই স্কোপ আছে। শুধু চাই এগিয়ে চলার ইচ্ছা আর কঠোর পরিশ্রম করার শক্তি।
কৌশানী মিত্র
26th  August, 2019
ইঞ্জিনিয়ারিং না পড়লে
জীবন ব্যর্থ নয়

সুপার থার্টি। রীতিমতো সাড়া ফেলে দেওয়া ফিল্ম। সমাজের নিম্নবর্গের ছেলেমেয়েদের আইআইটি-র মতো প্রতিষ্ঠানে মোটামুটি গ্যারান্টি দিয়ে ভর্তি করিয়ে দেন পাটনার শিক্ষক আনন্দকুমার। 
বিশদ

চাকরিতে টিকে থাকার টিপস

একজন কর্মী যখন সহকর্মী বা অধঃস্তনের দোষ নিজের ঘাড়ে নিয়ে নেন এবং উল্টোদিকে সাধুবাদ যতটা প্রাপ্য ততটা মোটেই দাবি করেন না—তিনি কিন্তু গোটা অফিসের কাছে দৃষ্টান্ত হয়ে থাকেন। বিশদ

 মুখোমুখি

 মাঝবয়সি ব্যক্তির কাল হল হঠাৎ করে ২৫ বছরের চাকরি ছেড়ে দিয়ে নিজের ব্যবসা খোলার ভাবনা। বেসরকারি বিমা সংস্থাতে ২৫ বছরের অভিজ্ঞতা কম নয়। সমস্ত জমা-পুঁজি, ইতিউতি ঋণ নিয়ে শুরু করলেন শেয়ার ট্রেডিং। এক বছরের মধ্যেই মোহভঙ্গ। বিনিয়োগের সমস্ত অর্থ ডুবল। সংসার চালানো দায়।
বিশদ

অধ্যাপনার জন্য আবশ্যক নেট

সারা বছর ধরেই দেশের সরকারি ও বেসরকারি কলেজগুলিতে অধ্যাপক নিয়োগ হয়। রাজ্যের পাশাপাশি দেশের অন্যান্য প্রান্তের কলেজে অধ্যাপনা করতে হলে আপনাকে নেট উত্তীর্ণ হতেই হবে। বহু প্রতিষ্ঠানেই চাহিদা অনুসারে দক্ষ শিক্ষক-শিক্ষিকার জোগান অপ্রতুল। ডিসেম্বর মাসে নেট পরীক্ষার জন্য আবেদন গ্রহণ প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে গত ৯ সেপ্টেম্বর। স্নাতোকোত্তর স্তরে পড়াশোনার পরেই নেট পরীক্ষায় বসার প্রস্তুতি নিতে পারেন। তবে শুধু অধ্যাপনা নয়, যাঁরা মৌলিক বিষয়ে গবেষণা করতে চান তাঁদের ক্ষেত্রেও রয়েছে সুযোগ। আগ্রহীদের জন্য রইল এই পরীক্ষার নিয়মের খুঁটিনাটি। 
বিশদ

16th  September, 2019
 এনএসএইচএম-এর শর্ট ফিল্ম প্রতিযোগিতা

ছোট সিনেমার বিরাট জগৎ সম্পর্কে যুবা ফিল্মোৎসাহীদের আরও বিশদে জানাতে ‘ফার্স্ট কাট - শর্ট ফিল্ম অ্যান্ড মোর’ নামে একটি প্রতিযোগিতা করল এনএসএইচএম স্কুল অব মিডিয়া অ্যান্ড কমিউনিকেশন। 
বিশদ

16th  September, 2019
 রাষ্ট্রসংঘের পুরস্কার পেল জিএনআইটি

সবুজায়নে বিশেষ ভূমিকা রাখার জন্য রাষ্ট্রসংঘের পুরস্কার পেল গুরুনানক ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজি (জিএনআইটি)। ইউনাইটেড নেশনস ফ্রেমওয়ার্ক কনভেনশন (ইউএনএফসিসি)-এর তৃতীয় ক্যাটিগরিতে ভারত থেকে এই পুরস্কার পেয়েছে তারা।
বিশদ

16th  September, 2019
জেইই মেইন ২০২০ আবেদনের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ 

জয়েন্ট এন্ট্রান্স একজামিনেশন (মেইন) ২০২০ অন লাইনে আবেদন করা যাচ্ছে। ৩০ সেপ্টেম্বর রাত ১১ টা ৫০ পর্যন্ত আবেদন করা যাবে। ক্রেডিট কার্ড, ডেবিট কার্ড, নেট ব্যাঙ্কিং, ইউপিআই এবং পেটিএম দিয়ে ফি দেওয়া যাবে। পরীক্ষা নেওয়া হবে ৬ থেকে ১১ জানুয়ারির মধ্যে।  
বিশদ

16th  September, 2019
এফটিটিআইয়ের ক্র্যাশ কোর্স 

সাত দিনের ‘স্মার্টফোন ফিল্ম মেকিং’ কোর্স নিয়ে এসেছে ফিল্ম অ্যান্ড টেলিভিশন ইনস্টিটিউট অব ইন্ডিয়া। নয়াদিল্লির লক্ষ্মীবাঈ কলেজে ৭ থেকে ১৩ অক্টোবর এই কোর্স করানো হবে। ১৮ সেপ্টেম্বর বিকাল চারটের মধ্যে এই কোর্সের জন্য নাম নথিভুক্ত করতে হবে। কোর্স ফি ৮ হাজার ২৬০ টাকা। বিশদ জানতে দেখুন: www.ftii.sc.in। 
বিশদ

16th  September, 2019
 ভোকেশনাল এডুকেশন অ্যান্ড স্কিল ডেভেলপমেন্টের বিভিন্ন কোর্সে ভর্তি প্রক্রিয়া শুরু

ভর্তি নেওয়া হবে ডিপ্লোমা, পিজি ডিপ্লোমা, ফার্মাসি, এইচএমসিটি, ডিএজি, এমওপিএম, সেফটি, এইচআরডিএলডব্লু, বিএসএলজিএম এবং এফএসএমে।   বিশদ

16th  September, 2019
রূপকলা কেন্দ্রের একগুচ্ছ কোর্স 

২০১৯-২০২১ শিক্ষাবর্ষে পাঁচটি বিষয়ের উপরে দুই বছরের পোস্ট গ্র্যাজুয়েট ডিপ্লোমা কোর্স নিয়ে এল রূপকলা কেন্দ্র। এই পাঁচটি কোর্স হল, ডেভেলপমেন্ট কমিউনিকেশন, ডিরেকশন, মোশন পিকচার ফোটোগ্রাফি, এডিটিং এবং সাউন্ড ডিজাইনিং।  
বিশদ

16th  September, 2019
 চাহিদা বাড়ছে বায়োকেমিস্টদের

বায়োকেমিস্ট্রির উপর সম্পূর্ণভাবে নির্ভরশীল আধুনিক চিকিৎসাশাস্ত্র। শুধুমাত্র ওষুধই নয় চাষাবাদের যুগান্তকারী পরিবর্তনেও সাহায্য করেছে এই বায়োকেমিস্ট্রিই। বেশি উৎপাদন কীভাবে সম্ভব, পোলট্রি এবং মাছের জন্য কেমন খাবার প্রয়োজন, দানা শস্যে মজুত বিষাক্ত জিনিস অপসারণ করে খাদ্য উপযোগী কী করে করা যায় এসবই দেখে বায়োকেমিস্ট্রি।
বিশদ

09th  September, 2019
একঘেয়ে রান্নাই যখন পেশা

বর্ণালী ঘোষ: নিত্যনৈমিত্তিক কাজের মধ্যে রান্না এক একঘেয়ে কাজের মধ্যে পরে। অথচ এই রান্না এখন পেশার দুনিয়াতেও জায়গা করে নিয়েছে। এই পেশায় যেমন রয়েছে চ্যালেঞ্জ, তেমনই গ্ল্যামারও। আবার শৈল্পিক সত্তার বিকাশেরও সুযোগ করে দিচ্ছে এই রান্না পেশা। তবে প্রতিদিনের ঘরের রান্নার চেয়ে এই রান্নার ধরন কিছুটা আলাদা।
বিশদ

09th  September, 2019
 গ্লোবসিন ফিনিশিং স্কুলের অনুষ্ঠান

 সম্প্রতি হয়ে গেল গ্লোবসিন এবং থার্ড লাইফের যৌথ প্রযোজনায় একটি সম্মাননা জ্ঞাপন অনুষ্ঠান। সেখানে উপস্থিত ছিলেন আরও নানা ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজের ছাত্রছাত্রীরা। গ্লোবসিনের কর্ণধার রাহুল দাশগুপ্ত জানালেন, ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ চালানোর পাশাপাশি তাদের একটি আইটি সলিউশন কোম্পানি আছে।
বিশদ

09th  September, 2019
 ফেস্টিভ্যাল ফর ফিউচার

সম্প্রতি কলকাতা সেন্টার ফর ক্রিয়েটিভিটির উদ্যোগে এবং ব্রিটিশ কাউন্সিলের সহায়তায় হয়ে গেল ‘ফেস্টিভ্যাল ফর ফিউচার’। সেখানে উপস্থিত ছিলেন ব্রিটিশ কাউন্সিলের ডিরেক্টর দেবাঞ্জন চক্রবর্তী, কলকাতা সেন্টার ফর ক্রিয়েটিভিটির রিনা ধাওয়ান,বাংলানাটক ডট কমের অনন্যা ভট্টাচার্য প্রমুখ।
বিশদ

09th  September, 2019
একনজরে
বিএনএ, রায়গঞ্জ: শনিবার দুপুরে রায়গঞ্জের বাহিন গ্রাম পঞ্চায়েতের শঙ্করপুরে জমিতে কাজ করার সময় এক মহিলা শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে। পুলিস জানিয়েছে, মৃতের নাম লক্ষ্মী দাস(২৫)। মৃতের বাড়ি বাহিনের হাঁটমুনি গ্রামে।  ...

 ওয়াশিংটন ও হিউস্টন, ২১ সেপ্টেম্বর (পিটিআই): ‘হাউডি মোদি’ অনুষ্ঠান ঘিরে আমেরিকায় সাজ সাজ রব। মোদি-জ্বরের উন্মাদনায় অন্তিম মুহূর্তের জন্য প্রহর গুনছে ভারতীয় বংশোদ্ভূত মার্কিন নাগরিকরা। ...

 নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: বৃহস্পতিবার রাতে ছাত্র বিক্ষোভের জেরে অগ্নিগর্ভ পরিস্থিতির মধ্যে উপাচার্য-সহ উপাচার্যের অনুপস্থিতিতে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়কে উদ্ধার করতে রাজ্যপাল জগদীপ ধনকার ক্যাম্পাসে যেতে ...

 জম্মু, ২১ সেপ্টেম্বর (পিটিআই): দক্ষিণ কাশ্মীরের পুলওয়ামা জেলার বিভিন্ন জায়গায় তল্লাশি চালাল পুলিস। গ্রেপ্তার করা হল জয়েশ-ই-মহম্মদের দুই সক্রিয় কর্মীকে। কিছুদিন আগেই ট্রাক নিয়ে পাঞ্জাব থেকে কাশ্মীর আসার পথে কাঠুয়ায় প্রচুর অস্ত্রশস্ত্র সহ গ্রেপ্তার হয়েছিল তিন জঙ্গি। ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

বেফাঁস মন্তব্যে বন্ধুর সঙ্গে মনোমালিন্য। সম্পত্তি নিয়ে ভ্রাতৃবিরোধ। সৃষ্টিশীল কাজে আনন্দ। কর্মসূত্রে দূর ভ্রমণের সুযোগ।প্রতিকার— ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৫৩৯: পাঞ্জাবের শহর কর্তারপুরে প্রয়াত গুরু নানক
১৭৯১: ইংরেজ বিজ্ঞানী মাইকেল ফ্যারাডের জন্ম
১৮৮৮: ন্যাশনাল জিওগ্রাফিক ম্যাগাজিন প্রথম প্রকাশিত
১৯১৫ - নদিয়া পৌরসভার নামকরণ বদল করে করা হয় নবদ্বীপ পৌরসভা
১৯৩৯: প্রথম এভারেস্ট জয়ী মহিলা জুনকো তাবেইয়ের জন্ম
১৯৬২ – নিউজিল্যাণ্ডের প্রাক্তন ক্রিকেটার তথা ধারাভাষ্যকার মার্টিন ক্রোর জন্ম
১৯৬৫: শেষ হল ভারত-পাকি স্তান যুদ্ধ। রাষ্ট্রসংঘের আহ্বানে সাড়া দিয়ে দু’দেশ যুদ্ধ বিরতি ঘোষণা করল
১৯৭০: লেখক শরদিন্দু বন্দ্যোপাধ্যায়ের মৃত্যু
১৯৭৬: ব্রাজিলের প্রাক্তন ফুটবলার রোনাল্ডোর জন্ম
১৯৮০: ইরান আক্রমণ করল ইরাক
১৯৯৫: নাগারকোভিল স্কুলে বোমা ফেলল শ্রীলঙ্কার বায়ুসেনা। মৃত্যু হয় ৩৪টি শিশুর। যাদের মধ্যে বেশিরভাগই তামিল
২০১১: ক্রিকেটার মনসুর আলি খান পতৌদির মৃত্যু

ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৬৯.১৯ টাকা ৭২.৭০ টাকা
পাউন্ড ৮৬.৪৪ টাকা ৯১.১২ টাকা
ইউরো ৭৬.২৬ টাকা ৮০.৩৮ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
21st  September, 2019
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৩৮, ৩৩৫ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩৬, ৩৭০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৩৬, ৯১৫ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৪৬, ১০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৪৬, ২০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

৫ আশ্বিন ১৪২৬, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯, রবিবার, অষ্টমী ৩৫/৫৪ রাত্রি ৭/৫০। মৃগশিরা ১৫/৪৪ দিবা ১১/৪৬। সূ উ ৫/২৮/৪০, অ ৫/৩০/৩৮, অমৃতযোগ দিবা ৬/১৬ গতে ৮/৪১ মধ্যে পুনঃ ১১/৫৪ গতে ৩/৭ মধ্যে। রাত্রি ৭/৫৫ গতে ৯/৩০ মধ্যে পুনঃ ১১/৫৪ গতে ১/২৯ মধ্যে পুনঃ ২/১৭ গতে উদয়াবধি, বারবেলা ৯/৫৯ গতে ১/০ মধ্যে, কালরাত্রি ১২/৫৯ গতে ২/২৯ মধ্যে।
৪ আশ্বিন ১৪২৬, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯, রবিবার, অষ্টমী ২৩/৭/৩২ দিবা ২/৪৩/৩১। মৃগশিরা ৬/৫২/৫৬ দিবা ৮/১৩/৪০, সূ উ ৫/২৮/৩০, অ ৫/৩২/৩০, অমৃতযোগ দিবা ৬/২০ গতে ৮/৪১ মধ্যে ও ১১/৪৭ গতে ২/৫৪ মধ্যে এবং রাত্রি ৭/৪২ গতে ৯/২১ মধ্যে ও ১১/৪৯ গতে ১/২৭ মধ্যে ও ২/১৭ গতে ৫/২৯ মধ্যে, বারবেলা ১০/০/০ গতে ১১/৩০/৩০ মধ্যে, কালবেলা ১১/৩০/৩০ গতে ১/১/০ মধ্যে, কালরাত্রি ১/০/০ গতে ১১/৩০/৩০ মধ্যে।
 ২২ মহরম

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
টি ২০: ভারত ৭৬/৩ (১০ ওভার) 

07:53:38 PM

টি ২০: ভারত ৪১/১ (৫ ওভার) 

07:30:18 PM

পূর্ব মেদিনীপুরের রামনগরে বাসের ধাক্কায় যুবকের মৃত্যু, জখম ১ 

06:59:00 PM

তৃতীয় টি ২০: টসে জিতে প্রথমে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত ভারতের 

06:42:49 PM

মালদহে বজ্রাঘাতে তিনজনের মৃত্যু
রবিবার দুপুরে মালদহের পরানপুর চুনাখালী মাঠে বাজ পড়ে তিনজনের মৃত্যু ...বিশদ

04:09:46 PM

রায়গঞ্জে ব্যাপক বৃষ্টি 

03:42:00 PM